দারিদ্র্য বিমোচনে ক্ষুদ্রঋণ

0
545

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশঃ বাংলাদেশের দারিদ্র্য বিমোচনে ক্ষুদ্রঋণ অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। স্বাধীনতার পর থেকে এদেশের দারিদ্র্যক্লিষ্ট মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রমের অবদান অপরিসীম। দারিদ্র্য বিমোবচনে সরকারি ও বেসরকারি নানাবিধ উদ্যোগ কাজ করছে। এখনও বাংলাদেশে দারিদ্র্যসীমার নিচের জনসংখ্যার হার ৩১.৫ শতাংশ। সহস্রাব্দ  উন্নয়ন লক্ষ্যে ২০১৫ সালের মধ্যে দারিদ্র্য কমিয়ে আনা। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা হল ২০১৫ সালের মধ্যে দারিদ্র্যসীমা ২৯ শতাংশে নামিয়ে আনা। ক্ষুদ্রঋণ বা মাইক্রো ক্রেডিট বলতে শুধুমাত্র গ্রামীণ ব্যাংক বা এনজিওর কার্যক্রমকে বোঝায় না। এখানে সরকারি উদ্যোগও বিবেচনা করতে হবে। বহু আগে সরকারি উদ্যোগে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম চালু হয়। পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, সমাজসেবা অধিদফতর, পল্লী উন্নয়ন একাডেমি, ক্ষুদ্র কৃষক উন্নয়ন ফাউন্ডেশন, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি, মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থানের জন্য ক্ষুদ্রঋণ, সমবায় অধিদফতর প্রভৃতি সরকারি প্রতিষ্ঠান দারিদ্র্য বিমোচনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।

প্রথমে সরকারি উদ্যোগে ক্ষুদ্রঋণ সংক্রান্ত কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করা হল। ২০১২-১৩ অর্থবছরে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে পিকেএসএফ ও এসডিএফ এর মাধ্যমে ক্ষুদ্রঋণ বাবদ যথাক্রমে ৫০ কোটি ও ২৮৮.৭০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। সামাজিক নিরাপত্তা ও সামাজিক ক্ষমতায়ন খাতে ২০১২-১৩ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে মোট ৩৪২.৭০ কোটি টাকা ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচিতে বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থানের জন্য ২০০৩-০৪ অর্থবছর থেকে ২০০৭-০৮ অর্থবছর পর্যন্ত ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম বাস্তবায়নের নিমিত্ত ৬৪টি জেলার আওতাধীন ৪৭৩টি উপজেলায় ৩২২৫ লাখ টাকা ঋণ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ খাতে ২০১২-১৩ অর্থবছরে প্রায় ১.৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়।

জাতীয় মহিলা সংস্থার আওতাধীন স্ব-কর্মসহায়ক ঋণ কার্যক্রমে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তহবিল থেকে ১২০ লাখ টাকার তহবিল প্রদান করা হয়। এ কর্মসূচির আওতায় ৫ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ প্রদান করা হয়। বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক কৃষি সমবায় সমিতি ক্ষুদ্রঋণ প্রদান করে থাকে। বর্তমানে এ ধরনের সমিতির সংখ্যা ৪৭৪টি এবং শেয়ার মূলধন ৪৬০.৪৭ লাখ টাকা এবং সঞ্চয় আমানত ৪৪৩.০৯ লাখ টাকা। ক্ষুদ্র কৃষক উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে ১৭,০৪৬ লাখ টাকা জামানতবিহীন ক্ষুদ্রঋণ বিতরণ করা হয়। এক্ষেত্রে আদায়যোগ্য ঋণ আদায়ের হার ৯২.৯৩ শতাংশ। দেশের পল্লী অঞ্চলের ক্ষুদ্র কৃষক ও ভূমিহীন পরিবারের আর্থসামাজিক উন্নয়ন তথা দারিদ্র্য বিমোচন এ ফাউন্ডেশনের প্রধান লক্ষ্য। পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন (পিডিবিএফ) ফাউন্ডেশনের আওতায় ৭টি বিভাগের ৪৪টি জেলার ৩১০টি উপজেলায় ফেব্র“য়ারি ২০১৩ পর্যন্ত ৫,৫২২ কোটি টাকার ক্ষুদ্র ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।

কার্টেসিঃ ড. মোঃ মনিরুজ্জামান

Leave a Reply