কখন একটি ব্যাংক ধ্বং‌সের প‌থে চ‌লে?

1
2296

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশঃ কখন একটি ব্যাংক ধ্বং‌সের প‌থে চ‌লে? ওহ! তার আগে ছোট্ট এক‌টি গল্প। অস্ট্রে‌লিয়ার গল্প। একসময় সে‌দে‌শে প্রচুর খাদ্য উৎপাদ‌নের জ‌মি গু‌লো‌তে আগাছা হ‌য়ে‌ছিল। সেগু‌লো প‌রোক্ষভা‌বে দম‌নের জন্য আগাছা‌ ভো‌জি পোকার ব্যাপক বংশবৃ‌দ্ধি ক‌রে আগাছা দমন করা হয়। কিন্তু পরব‌র্তি‌তে পোকার উৎপাত বৃদ্ধি পাওয়ায় ইদুর, তারপর ইদুর দম‌নে খর‌গোশ, তারপর ব্যাপক খর‌গোশ বৃ‌দ্ধি পাওয়ায় ক্যাংগারু বৃ‌দ্ধি পায়। আজও সেই ক্যাংগারু দম‌নে কত উপায় চল‌ছে।

কোথায় থে‌কে কোথায় এখন। প্রথ‌মেই য‌দি প্রত্যক্ষ উপায় অবলম্বন ক‌রে আগাছা দমন করা হ‌তো ত‌বে এতো কা‌হিনী, অর্থ ব্যয়, সময়, শ্রম লাগ‌তো না।

সেই রকম ব্যাংকের অপ্র‌য়োজনীয় কা‌জে যে ব্যাংক শাখা যত সময় ব্যয় কর‌বে গ্রাহক‌কে কস্ট দি‌বে সে শাখার সমস্যা কোন‌দিন কম‌বে না। শাখার সুনাম হা‌রি‌য়ে আস্তে আস্তে ধ্বং‌সের প‌থে যা‌বে। শাখা ধ্বংস মা‌নে আস্তে আস্তে ব্যাংক ধ্বংস। আর ঠান্ডা মাথায় ধ্বংস কর‌ছে কিছু দালাল ধর‌নের বোকা, অদূরদর্শী ব্যাংকার। এরা একই কাজ বার বার ঘুরিয়ে ফিরিয়ে করে। ফলে ব্যাংকের শাখার কোন লাভ হয়না।

এরা পুট‌ি মাছ মার‌তে মার‌তে বোয়াল, কাতলা মারার যোগ্যতা, সু‌যোগ হাত ছাড়া কর‌ছে। কতিপয় অযোগ্য, বোকারা এভা‌বেই বেতন নি‌য়ে অপ্রয়োজনীয় কা‌জে ব্যাংক‌কে ব্যস্ত ক‌রে ‌নির‌বে গ্রাহক অসন্তুষ্ঠ ক‌রে ব্যাংক গু‌লো‌কে ধ্বংস কর‌ছে কিছু সময় হা‌তে নি‌য়ে।

এরা কারা? ম্যা‌নেজ‌মেন্ট ঘু‌মি‌য়ে আছে ব‌লেই তা‌দের সুক্ষ আচরন সনাক্ত কর‌তে পা‌রে না।

কার্টেসিঃ আকাশের নীল রং

১টি মন্তব্য

Leave a Reply