ব্র্যাক ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং-বিকাশ

0
1014

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশঃ বিকাশ (ইংরেজি: bKash) বাংলাদেশে মোবাইল ফোন ভিত্তিক অর্থ আদান প্রদানের একটি সার্ভিস। মোবাইল ফোনে বিকাশ একাউন্ট খুলে একজন গ্রাহক বাংলাদেশের যেকোনো স্থান থেকে তার মোবাইলে অর্থ জমা, উত্তোলন এবং নিজের মোবাইল থেকেই বিভিন্ন ক্ষেত্রে অর্থ স্থানান্তর করতে পারেন।

এক নজরে

History (ইতিহাস)
আর্থিক সেবা দেশের প্রান্তিক জনগণের আওতার মধ্যে নিয়ে আসার লক্ষ্যে বিকাশ লিমিটেড (একটি ব্র্যাক ব্যাংক প্রতিষ্ঠান) ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, বাংলাদেশ নিয়ে গবেষণামূলক প্রাথমিক কাজ শুরু হয় ২০০৭ সালে। রবি আজিয়াটা লিমিটেড, বাংলাদেশকে মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর পার্টনার হিসেবে নিয়ে বিকাশ আনুষ্ঠানিকভাবে মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানের কার্যক্রম শুরু করে ২০১১ এর ২১ এ জুলাই।

তারপর বিকাশ লিমিটেড বাংলাদেশ এবং মানি ইন মোশন এলএলসি, ইউএসএ এর একটি যৌথ উদ্যোগ গ্রহণ করে। ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসে ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্রুপের সদস্য ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশন (আইএফসি) বিকাশ -এর ইকুইটি পার্টনার এবং ২০১৪ সালে বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন ইনভেস্টর হিসেবে যোগদান করে। বিকাশ-এর মূল উদ্দ্যেশ্য হলো বাংলাদেশের মানুষের জন্যে ব্যাপক পরিসরে আর্থিক সেবা নিশ্চিত করা। বিশেষ করে স্বল্প আয়ের জনগোষ্ঠীকে সুবিধাজনক, সাশ্রয়ী, এবং নির্ভরযোগ্য সেবা প্রদানের মাধ্যমে অর্থনৈতিক কার্যকলাপের সাথে সম্পৃক্ত করা।

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ৭০ ভাগেরও বেশি গ্রামে বাস করে, যেখান থেকে প্রাতিষ্ঠানিক আর্থিক সেবা পাওয়া কষ্টসাধ্য। অথচ প্রিয়জনের পাঠানো টাকা পাওয়া, বা আর্থিক সেবা ব্যবহার করে নিজেদের অবস্থার উন্নয়নের জন্যে গ্রামের এই মানুষগুলোরই এধরনের সেবার প্রয়োজন সবচেয়ে বেশি। বর্তমানে ১৫ ভাগেরও কম বাংলাদেশী প্রথাগত ব্যাংকিং পদ্ধতির আওতায় আছে, যেখানে ৬৮ ভাগেরও বেশি মানুষের কাছে মোবাইল ফোন রয়েছে। এই মোবাইল ফোনগুলো শুধুমাত্র কথা বলার উপকরণই নয়, বরং আরও অনেক প্রয়োজনীয় এবং পরিশীলিত কার্যক্রমও পরিচালনা করতে সক্ষম। বিকাশ প্রাথমিকভাবে এই মোবাইল ডিভাইসগুলো এবং পুরো বাংলাদেশে বিস্তৃত টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্কের সদ্ব্যবহার করে একটি নিরাপদ প্লাটফর্মের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রান্তিক ও বঞ্চিত মানুষের কাছে আর্থিক সেবাসমূহ পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে।

সার্ভিস

Services (সেবা সমূহ)
একজন বিকাশ একাউন্ট হোল্ডার তার বিকাশ একাউন্টে পর্যাপ্ত টাকা থাকলে যেকোন সময় যেকোন জায়গা থেকেই বিকাশ এর বিভিন্ন সেবা উপভোগ করতে পারেন। বিকাশ নির্ধারিত এজেন্ট থেকে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয়। বিকাশ এর বর্তমান সেবাগুলো হচ্ছেঃ-
» বিকাশ একাউন্ট খোলা;
» একাউন্টে টাকা জমা করা;
» একটি বিকাশ একাউন্ট থেকে আরেকটি বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠানো;
» একাউন্ট থেকে এজেন্ট অথবা ব্র্যাক ব্যাংক এটিএম থেকে টাকা তোলা;
» মোবাইলের এয়ারটাইম কেনা;
» পণ্য কেনাকাটা বা সেবার বিনিময়ে মূল্য পরিশোধ করা; ও
» বিদেশ থেকে রেমিটেন্স গ্রহণ করা।

bKash Account Open (বিকাশ একাউন্ট খোলা)
বিকাশ একাউন্ট খোলা যায় সহজে এবং বিনামূল্যে! বর্তমানে সকল এয়ারটেল, বাংলালিংক, টেলিটক, গ্রামীণফোন এবং রবি গ্রাহকগণ বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন।

এজেন্ট পয়েন্টে বিকাশ একাউন্ট খুলুন
নিকটবর্তী এজেন্ট পয়েন্টে বিকাশ একাউন্ট খুলতে সাথে নিয়ে আসুন-
১। মোবাইল ফোন;
২। জাতীয় পরিচয় পত্র (মূল এবং ফটোকপি);
৩। ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

বিকাশ প্লাসে বিকাশ একাউন্ট খুলুন
নিকটবর্তী বিকাশ প্লাসে বিকাশ একাউন্ট খুলতে সাথে নিয়ে আসুন-
১। মোবাইল ফোন;
২। জাতীয় পরিচয় পত্র (ফটোকপি)/ড্রাইভিং লাইসেন্স (মূল এবং ফটোকপি)/পাসপোর্ট (মূল এবং ফটোকপি);
৩। ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

বিকাশ সেন্টারে বিকাশ একাউন্ট খুলুন
নিকটবর্তী বিকাশ সেন্টারে বিকাশ একাউন্ট খুলতে সাথে নিয়ে আসুন-
১। মোবাইল ফোন;
২। জাতীয় পরিচয় পত্র (মূল এবং ফটোকপি)/মূল ড্রাইভিং লাইসেন্স/মূল পাসপোর্ট;
৩। ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি;
একাউন্ট ওপেনিং ফরমটি পূরণ করুন এবং আপনার বৃদ্ধাঙ্গুলির ছাপ ও স্বাক্ষর দিন।

বিকাশ মোবাইল মেন্যু এক্টিভেট
বিকাশ একাউন্ট খোলার পর আপনাকে আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যুটি এক্টিভেট করে নিতে হবে। আপনার মোবাইল মেন্যু এক্টিভেট করতে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করুনঃ
১। *২৪৭# ডায়েল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান;
২। “এক্টিভেট মোবাইল মেন্যু” বেছে নিন;
৩। বিকাশ একাউন্টের জন্য ৫ ডিজিটের পিন নম্বরটি প্রবেশ করান;
৪। কনফার্ম করার জন্য আপনার পিন নম্বরটি আবার প্রবেশ করান;
* আপনার পিন নম্বরটি সব সময় গোপন রাখুন।

সকল প্রক্রিয়া সঠিক ভাবে সম্পন্ন হবার পর আপনার মোবাইল নম্বরটি একটি বিকাশ একাউন্ট নম্বর হিসেবে গণ্য হবে। আপনার বিকাশ একাউন্ট এর মাধ্যমে প্রাথমিক ভাবে “ক্যাশ ইন” এবং টাকা গ্রহণ সেবা ব্যবহার করতে পারবেন। তবে, আপনার KYC ফরম এর তথ্য যাচাই হয়ে গেলে, ৩-৫ কার্য দিবস পর আপনি “ক্যাশ আউট”, “মোবাইল রিচার্জ”, “পেমেন্ট” এবং বিকাশ এর অন্যান্য সেবা সমূহ উপভোগ করতে পারবেন। আপনার একাউন্টটি সম্পূর্ণভাবে সক্রিয় হওয়ার পর *247# ডায়াল করে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা, সপ্তাহে ৭ দিন বিকাশের সেবা ব্যবহার করতে পারবেন।

ব্যাংক ট্রান্সফার
আপনি ইন্টারনেট ব্যাংকিং-এর মাধ্যমে ব্যাংক একাউন্ট থেকে বিকাশ কাস্টমার একাউন্টে ফান্ড ট্রান্সফার করতে পারেন। এর জন্য প্রথমে আপনাকে বেনিফিশিয়ারি হিসেবে বিকাশ অ্যাকাউন্ট অ্যাড করতে হতে পারে এবং তারপর ফান্ড ট্রান্সফার করতে হবে।

বেনিফিশিয়ারি অ্যাড করার পদ্ধতি
» মোবাইল অ্যাপ বা ওয়েবের মাধ্যমে আপনার ইন্টারনেট ব্যাংকিংএকাউন্টে লগ ইন করুন;
» Manage beneficiary অপশনে যান;
» নির্দেশিত ধাপগুলো অনুসরণ করে বেনিফিশিয়ারি হিসেবে বিকাশ একাউন্ট অ্যাড করুন;
» এবার আপনি বেনিফিশিয়ারি বিকাশ একাউন্টে ফান্ড ট্রান্সফার করতে পারবেন।

ফান্ড ট্রান্সফার করার পদ্ধতি
» আপনার ইন্টারনেট ব্যাংকিং মোবাইল অ্যাপ বা ওয়েবের মাধ্যমে Fund Transfer অপশনে যান;
» ফান্ড-এর উৎস (একাউন্ট নাম্বার) সিলেক্ট করুন;
» ট্রান্সফার অপশন হিসেবে বিকাশ একাউন্ট সিলেক্ট করুন;
» বেনিফিশিয়ারি লিস্ট থেকে বিকাশ একাউন্ট সিলেক্ট করুন;
» টাকার পরিমাণ ও রেফারেন্স দিন; ও
» এবার ব্যাংকের লেনদেন পদ্ধতি অনুসরণ করে সফলভাবে ফান্ড ট্রান্সফার সম্পন্ন করুন।

সার্ভিস ফি
» গ্রাহকদের জন্য কোন ফি প্রযোজ্য নয়।

স্পেশাল নোট
ঢাকা ব্যাংকের ইন্টারনেট ব্যাংকিং সার্ভিস ব্যবহারকারী এবং সিটি ব্যাংকের একাউন্ট হোল্ডাররা যারা citytouch DIGITAL BANKING সার্ভিসটি ব্যবহার করেন তারা এখন iBanking–এর মাধ্যমে ব্যাংক একাউন্ট থেকে বিকাশ একাউন্টে ফান্ড ট্রান্সফারের সুবিধা পাচ্ছেন। ফান্ড ট্রান্সফার শুধুমাত্র বিকাশ কাস্টমার একাউন্টে করা যাবে।

Cash In (ক্যাশ ইন)
বিকাশ প্রদত্ত সেবাসমূহ ব্যবহার করতে আপনার একাউন্টে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা থাকতে হবে। ক্যাশ ইন সেবার মাধ্যমে আপনি যেকোন বিকাশ এজেন্ট থেকে আপনার বিকাশ একাউন্টে টাকা জমা করতে পারবেন। ক্যাশ ইন করার জন্যে নিম্নলিখিত ধাপগুলো অনুসরণ করুন-
১। যেকোনো বিকাশ এজেন্টের কাছে যান;
২। এজেন্ট কে আপনার টাকা জমা দেয়ার পরিমাণ বলুন;
৩। আপনার একাউন্ট নাম্বার এবং টাকা জমার পরিমাণ এজেন্ট এর রেজিস্টার-এ লিখুন;
৪। আপনি যে পরিমাণ টাকা জমা করতে চাইছেন তা এজেন্ট কে দিন;
৫। এজেন্ট আপনার একাউন্টে সমপরমাণ টাকা জমা করে ক্যাশ ইন সম্পন্ন করবেন; ও
আপনি এবং এজেন্ট দুজনই কনফার্মেশন মেসেজ পাবেন। এজেন্ট এর স্থান ত্যাগ করার পূর্বে এজেন্ট রেজিস্টারে আপনার স্বাক্ষর দিতে ভুলবেন না।

Cash Out (ক্যাশ আউট)
বিকাশ থেকে ক্যাশ আউট এর দুটি পদ্ধতি রয়েছে-

এজেন্ট থেকে
আপনার বিকাশ একাউন্টে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা থাকলে আপনি সারাদেশে বিস্তৃত যেকোনো বিকাশ এজেন্ট থেকে টাকা ক্যাশ আউটের মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। এজেন্ট থেকে ক্যাশ আউট এর জন্যে-
১। যেকোনো বিকাশ এজেন্ট এর কাছে যান;
২। এজেন্ট কে আপনার টাকা তোলার পরিমাণ বলুন;
৩। আপনার বিকাশ একাউন্ট নাম্বার এবং টাকার পরিমাণ এজেন্ট রেজিস্টার-এ লিখুন;
৪। বিকাশ মোবাইল মেন্যুর জন্য আপনার মোবাইলে *২৪৭# ডায়াল করুন;
৫। “ক্যাশ আউট” সিলেক্ট করুন;
৬। “ফ্রম এজেন্ট” সিলেক্ট করুন;
৭। এজেন্ট এর বিকাশ একাউন্ট নম্বরটি দিন (এজেন্টকে জিজ্ঞাসা করুন);
৮। টাকার পরিমাণ লিখুন; ও
৯। আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যু পিন দিয়ে ক্যাশ আউট সম্পন্ন করুন।
আপনি এবং এজেন্ট দুজনই কনফার্মেশন মেসেজ পাবেন। টাকা গুনে নিন এবং কাউন্টার ত্যাগ করার পূর্বে এজেন্ট এর রেজিস্টার বইতে স্বাক্ষর করুন।

এটিএম ক্যাশ আউট রিকোয়েস্ট
বিকাশ একাউন্ট থেকে ক্যাশ আউট করা যায় এরকম যেকোনো ব্র্যাক ব্যাংক এটিএম থেকে টাকা তুলতে প্রথমে একটি সিকিউরিটি কোড প্রয়োজন হবে। সিকিউরিটি কোডের জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন-
» *247# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান;
» ‘Cash Out’ অপশনটি বেছে নিন;
» ‘From ATM’ অপশনটি বেছে নিন;
» আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যু পিন (PIN) নাম্বারটি দিন; ও
» এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার মোবাইলে আপনি একটি সিকিউরিটি কোড (OTP) পাবেন যা পরবর্তী ৫ (পাঁচ) মিনিট সক্রিয় থাকবে এবং ১ (এক) বারই ব্যবহার করা যাবে।

এটিএম থেকে টাকা উত্তোলন
বিকাশ একাউন্ট থেকে ক্যাশ আউট করা যায় এমন যেকোনো ব্র্যাক ব্যাংক এটিএম থেকে টাকা তুলতে করতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন-
» এটিএম স্ক্রিনের নিচের দিকে বাম কোনায় থাকা ‘bKash Cash Out’ বাটনে চাপ দিন;
» আপনার পছন্দের ভাষা বেছে নিন;
» বিকাশ একাউন্ট নাম্বার দিন;
» যতো টাকা ক্যাশ আউট করতে চান তার পরিমাণ;
» এসএমএস এর মাধ্যমে পাওয়া সিকিউরিটি কোডটি দিন;
» আপনার দেয়া তথ্যাদি যাচাই করে নিশ্চিত করুন;
» টাকা এবং রশিদ গ্রহণ করুন; ও
» আপনি বিকাশ থেকে একটি কনফার্মেশন এসএমএস পাবেন।

Send Money (সেন্ড মানি)
সেন্ড মানি সেবার মাধ্যমে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে আরেকটি বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারেন যেকোন সময়। সেন্ড মানি করতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন-
১। *২৪৭# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান;
২। “সেন্ড মানি” সিলেক্ট করুন;
৩। আপনি যে বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠাতে চান সেই একাউন্ট নাম্বারটি লিখুন;
৪। আপনি যে পরিমাণ টাকা পাঠাতে চান সেই পরিমাণ টি লিখুন;
৫। লেনদেনের একটি রেফারেন্স/তথ্যসূত্র দিন (একটি শব্দের বেশি ব্যবহার করবেন না, স্পেস এবং বিশেষ অক্ষর এর ব্যবহার এড়িয়ে চলুন);
৬। আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যু পিনটি দিয়ে লেনদেনটি সম্পন্ন করুন; ও
আপনি এবং প্রাপক দুজনই বিকাশ থেকে কনফার্মেশন মেসেজ পাবেন।

Payment (পেমেন্ট)
পেমেন্ট সেবার মাধ্যমে, বিকাশ গ্রহণ করে এমন যেকোন মার্চেন্টকে আপনি পেমেন্ট করতে পারেন আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে। এখন আপনি দেশজুড়ে ৪৭,০০০-এর বেশি দোকানে কেনাকাটার পেমেন্ট বিকাশ করতে পারবেন। পেমেন্ট বিকাশ করতে নীচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন-
১। *২৪৭# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান;
২। “পেমেন্ট” সিলেক্ট করুন;
৩। আপনি যে মার্চেন্টকে পেমেন্ট করতে চান তার মার্চেন্ট বিকাশ একাউন্ট নম্বর দিন;
৪। আপনি যে পরিমাণ টাকা পেমেন্ট করতে চান তার পরিমাণ লিখুন;
৫। আপনার কেনাকাটার একটি তথ্যসূত্র দিন (আপনি আপনার লেনদেনের উদ্দেশ্য একটি শব্দের মধ্যে উল্লেখ করতে পারেন, উদাহরণস্বরূপ, বিল);
৬। কাউন্টার নম্বরটি লিখুন (কাউন্টারে অবস্থানরত বিক্রেতা আপনাকে নম্বরটি বলে দেবেন);
৭। আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যু পিনটি দিয়ে পেমেন্ট সম্পন্ন করুন; ও
আপনি বিকাশ থেকে একটি কনফার্মেশন মেসেজ পাবেন।
*যদি তথ্যসূত্র বা কাউন্টার নম্বর কিংবা দুটোই প্রযোজ্য না হয়, তাহলে আপনি এই ধাপগুলো “০” প্রবেশ করিয়ে এরিয়ে যান।

Mobile Recharge (মোবাইল রিচার্জ)
মোবাইল রিচার্জ সেবার মাধ্যমে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে মোবাইল এয়ার টাইম কিনতে পারবেন। শুধু নিজের মোবাইলেই নয়, আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে অন্যের মোবাইলেও এয়ারটাইম রিচার্জ করতে পারবেন।

➡ মোবাইলের ব্যালেন্স বিকাশ করতে
১। *২৪৭# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান;
২। “মোবাইল রিচার্জ” সিলেক্ট করুন;
৩। আপনার অপারেটর সিলেক্ট করুন;
৪। আপনার সংযোগের ধরন সিলেক্ট করুন;
৫। যে নম্বরে রিচার্জ করতে চান সেই নম্বরটি দিন;
৬। যত টাকার এয়ারটাইম কিনতে চান তার পরিমাণ লিখুন;
৭। আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যু পিন নম্বর দিয়ে লেনদেনটি নিশ্চিত করুন; ও
৮। আপনি বিকাশ থেকে একটি কনফারমেশন মেসেজ পাবেন।
বর্তমানে এই সেবাটির মাধ্যমে একজন বিকাশ একাউন্ট থেকে সকল গ্রামীনফোন, বাংলালিংক, টেলিটক, রবি এবং এয়ারটেল নাম্বারে মোবাইলের ব্যালেন্স বিকাশ করতে পারবেন।

রেমিটেন্স

Remittance (রেমিটেন্স)
বিদেশে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীরা খুব সহজে এবং সুবিধাজনক পদ্ধতিতে অনুমোদিত এবং তালিকাভুক্ত ফরেইন ব্যাংক, মানি ট্রান্সফার অর্গানাইজেশন(এমটিও) এবং মানি এক্সচেইঞ্জ হাউজগুলোর মাধ্যমে বাংলাদেশে প্রিয়জনের বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন।

বিদেশ থেকে বাংলাদেশে বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠাতে
» অনুমোদিত এবং পার্টনার ব্যাংক ব্রাঞ্চ/মানি এক্সচেইঞ্জ/এমটিও এজেন্ট-এর কাছে যান;
» বিকাশ একাউন্ট নাম্বার এবং পুরো নাম প্রদান করুন (বিকাশ একাউন্ট খোলার সময় উল্লিখিত);
» প্রয়োজনীয় টাকা প্রদান করুন এবং ব্যাংক/মানি এক্সচেইঞ্জ/এমটিও এজেন্ট-কে কাজটি শুরু এবং সম্পন্ন করতে অনুরোধ করুন;

➡ ব্যাংক/এক্সচেঞ্জ হাউজ/এমটিও এজেন্ট বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর সময় নিম্নলখিত বিষয়গুলো নিশ্চিত করে থাকেন
» প্রাপকের একটি রেজিস্টার্ড এবং বৈধ বিকাশ একাউন্ট রয়েছে;
» প্রাপকের বিকাশ একাউন্ট নাম্বার এবং পুরো নাম সঠিকভাবে প্রদান করা হয়েছে;
» পাঠানো রেমিটেন্স (বাংলাদেশী টাকায়) সীমা অতিক্রম করছে না।

তালিকাভুক্ত মানি এক্সচেঞ্জ/ব্যাংক ব্র্যাঞ্চসমূহ এবং যেসব দেশ থেকে রেমিট্যান্স বা টাকা পাঠানো যাবে
» বিশ্বব্যাপী;
» ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন;
» ট্রান্সফাস্ট;
» মধ্যপ্রাচ্য;
» ইউএই এক্সচেঞ্জ;
» ইনডেক্স;
» ইউরোপ;
» এনইসি মানি;
» মালয়শিয়া;
» মার্চেন্ট্রেড;
» ভ্যাল ইউ; ও
» ট্র্যাংলো।

বাংলাদেশে ব্যাংক পার্টনার সমূহ
» ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড;
» মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড;
» ব্যাংক এশিয়া; ও
» ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন।

বাংলাদেশের মানুষকে সবচেয়ে সহজ উপায়ে ইন্টারন্যাশনাল রেমিটেন্স গ্রহণের সুবিধা দিতে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন, মাস্টারকার্ড ও বিকাশ যৌথভাবে যুগান্তকারী রেমিটেন্স সেবা চালু করেছে। এখন বিদেশ থেকে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন-এর মাধ্যমে পাঠানো টাকা বিকাশ ব্যবহারকারীরা ঘরে বসেই, দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা, সপ্তাহে ৭ দিন সুবিধা মতো নিজের বিকাশ একাউন্টে গ্রহণ করতে পারবেন। মাস্টারকার্ড এর সুরক্ষিত নেটওয়ার্কের মাধ্যমে টাকা আসার ফলে নতুন এই সেবাটি অত্যন্ত নিরাপদ। বিশ্বের ২০০ টিরও বেশি দেশ থেকে প্রবাসীরা বাংলাদেশে থাকা প্রিয়জনদের কাছে সহজেই টাকা পাঠাতে পারবেন। অ্যাক্টিভ বিকাশ একাউন্ট থেকে যে কেউ রেমিটেন্স সেবাটি নিতে পারবেন।

➡ নিজের বিকাশ একাউন্ট-এ রেমিটেন্স গ্রহণ করতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন:
» বিকাশ মোবাইল মেন্যুর জন্য *247# ডায়াল করুন;
» 5 টাইপ করে Remittance সিলেক্ট করুন;
» 1 টাইপ করে Western Union সিলেক্ট করুন;
» ১০ সংখ্যার MTCN নাম্বারটি দিন (রেমিটেন্স প্রেরকের কাছ থেকে ১০ সংখ্যার MTCN নাম্বারটি জেনে নিন);
» টাকার পরিমাণ দিন (রেমিটেন্স প্রেরকের কাছ থেকে টাকার পরিমাণ জেনে নিন);
» আপনার মোবাইল মেন্যু পিন (PIN) নাম্বারটি দিন;
» অনুগ্রহপূর্বক আপনার কনফারমেশন এসএমএস-এর জন্য অপেক্ষা করুন;
» আপনার বিকাশ একাউন্টে টাকা জমা হওয়ার কনফারমেশন এসএমএস পাবেন;
» বর্তমানে গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি, টেলিটক ও এয়ারটেল নম্বরের বিকাশ একাউন্ট ব্যবহারকারীরা রেমিটেন্স সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

ইন্টারেস্ট ও লিমিট

Interest (ইন্টারেস্ট)
টাকা নিরাপদে রাখার পাশাপাশি, আপনি বিকাশ একাউন্টে টাকা জমিয়ে বছরে ৪% পর্যন্ত ইন্টারেস্ট পেতে পারেন। ইন্টারেস্ট শুধুমাত্র বিকাশ কাস্টমারের জন্য প্রযোজ্য।

ইন্টারেস্ট রেট
ব্যালেন্স/স্ল্যাব (টাকা) ও বাৎসরিক হার
» ১,০০০ – ৫,০০০.৯৯ = ১.৫%
» ৫,০০১ –১৫,০০০.৯৯ = ২%
» ১৫,০০১ – ৫০,০০০.৯৯ = ৩%
» ৫০,০০১ এবং এর অধিক = ৪%
উদাহরণস্বরুপ, আপনার বিকাশ একাউন্টে যদি একটি মাসজুড়ে কমপক্ষে ১,০০০ টাকা থাকে, ঐ মাসে ২ টি লেনদেন করেন এবং ঐ মাসের গড় ব্যালেন্স যদি ১,০০০ থেকে ৫,০০০.৯৯ টাকার মধ্যে থাকে তাহলে আপনি ঐ মাসের গড় ব্যালেন্সের উপর ১.৫% বাৎসরিক হারে ইন্টারেস্ট পাবেন।

ইন্টারেস্ট পাবার শর্তসমূহ
» আপনার KYC ফরম বিকাশ কর্তৃক গৃহীত হতে হবে এবং আপনার একাউন্টটি একটিভ থাকতে হবে;
» মাসে কমপক্ষে আপনাকে ২ টি আর্থিক লেনদেন (“ক্যাশইন”, “ক্যাশআউট”, “ATM ক্যাশআউট”, “পেমেন্ট”, “সেন্ডমানি” অথবা “মোবাইল রিচার্জ”) করতে হবে;
» মাসজূড়ে প্রতি দিনশেষে আপনার একাউন্টে কমপক্ষে ১,০০০ টাকা ব্যালেন্স থাকতে হবে;
» মাসশেষে প্রতিদিনের গড় ব্যাল্যান্সের উপর আপনার প্রাপ্ত ইন্টারেস্টের পরিমান হিসাব করা হবে; ও
» সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ভ্যাট এবং ট্যাক্স কর্তন সাপেক্ষ্যে বছরে দুই দফায় আপনার একাউন্টে ইন্টারেস্ট প্রদান করা হবে।

ইন্টারেস্ট সেবা চালু করা
উপরোক্ত শর্ত পালনের মাধ্যমে সকল নতুন এবং পুরাতন বিকাশ কাস্টমারগণ তাদের বিকাশ একাউন্টে ইন্টারেস্ট পাবেন। সেবাটি চালু করার জন্যে কিছুই করতে হবেনা।

ইন্টারেস্ট গ্রহণ বন্ধ করা
আপনার একাউন্টে ইন্টারেস্ট গ্রহণ করতে না চাইলে নীচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন-
» আপনার বিকাশ একাউন্ট নম্বর থেকে 16247 এ কল করুন;
» ভাষা নির্বাচন করুন (বাংলার জন্যে ১ এবং ইংরেজীর জন্যে ২);
» জমানো টাকার উপর ইন্টারেস্ট এবং অন্যান্য তথ্যের জন্য ৫ চাপুন;
» ইন্টারেস্ট সংক্রান্ত তথ্যের জন্যে ১ চাপুন;
» ইন্টারেস্ট গ্রহণ বন্ধ করতে ১ চাপুন (সেবাটি পূর্বে বন্ধ করা থাকলে পুনরায় চালু করতে চাইলে ২ চাপুন); ও
» আপনার অনুরোধটি গৃহীত হলে আপনাকে মেসেজ এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।

Transaction Limit (লেনদেন লিমিট)
ব্র্যাক ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ এর লেনদেন সীমা তুলে ধরা হলো-

বিঃদ্রঃ
» একজন বিকাশ একাউন্ট হোল্ডার তার বিকাশ একাউন্ট থেকে প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১০,০০০ টাকা এবং প্রতি মাসে সর্বোচ্চ ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত টাকা তুলতে পারবেন (এজেন্ট এবং এটিএম থেকে সম্মিলিতভাবে)।
» একজন বিকাশ একাউন্ট হোল্ডার যে কোন মুহূর্তে তার একাউন্টে-এ সর্বোচ্চ ৩০০,০০০ টাকা রাখতে পারবেন।
» একটি বিকাশ একাউন্ট থেকে যেকোনো সময়ে একবারে প্রিপেইড নম্বরে সর্বোচ্চ *১,০০০ টাকা এবং পোস্টপেইড নম্বরে সর্বোচ্চ *৫,০০০ টাকার এয়ারটাইম ব্যালেন্স রিচার্জ করতে পারবেন।

মাই বিকাশ

My bKash (মাই বিকাশ)
আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যুর “মাই বিকাশ” অপশন থেকে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স চেক, লেনদেনের সংক্ষিপ্ত বিবরণী, বিকাশ মোবাইল মেন্যু পিন পরিবর্তন, এবং এটিএম পিন পরিবর্তন করতে পারেন।

চেক ব্যালেন্স
আপনার বর্তমান একাউন্ট ব্যাল্যান্স চেক করার জন্য –
১। *২৪৭# ডায়াল করে বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান;
২। “মাই বিকাশ” সিলেক্ট করুন;
৩। “চেক ব্যালেন্স” সিলেক্ট করুন;
৪। আপনার পিন নম্বরটি দিন;
আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টের বর্তমান ব্যালেন্স দেখতে পাবেন।

রিকোয়েস্ট স্টেটমেন্ট
এখন গ্রাহকরা বিকাশ একাউন্ট থেকে করা লেনদেনের মিনি স্টেটমেন্ট দেখতে পারবেন। বিকাশ একাউন্ট থেকে করা সর্বশেষ ৬টি লেনদেনের সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেখতে গ্রাহক নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করবেন।
১. বিকাশ মোবাইল মেন্যুর জন্য *247# ডায়াল করুন;
২. মেন্যু থেকে My bKash বেছে নিন;
৩. মেন্যু থেকে Request Statement বেছে নিন;
৪. আপনার Menu PIN টাইপ করুন;
৫. আপনি আপনার শেষ ৬টি লেনদেন সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য Mini Statement আকারে জানতে পারবেন।

মোবাইল মেন্যু পিন পরিবর্তন
আপনার বিকাশ একাউন্ট আরো সুরক্ষিত করতে ৫ ডিজিট-এর পিন (PIN) নাম্বার ব্যবহার করুন। পিন (PIN) নাম্বার পরিবর্তন করতে *247# ডায়াল করে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন:
-৬ টাইপ করে My bKash সিলেক্ট করুন;
-৩ টাইপ করে Change Mobile Menu PIN সিলেক্ট করুন;
-আপনার বর্তমান পিন (PIN) নাম্বারটি দিন;
-৫ ডিজিটের একটি নতুন পিন (PIN) নাম্বার দিন;
-পুনরায় নতুন পিন (PIN) নাম্বার দিয়ে কনফার্ম করুন;
-আপনার মোবাইলে একটি কনফার্মেশন পাবেন।

পিন (PIN) নাম্বার পরিবর্তনের ক্ষেত্রে নিচের বিষয়গুলো খেয়াল রাখুন:
– পিন (PIN) নাম্বার অবশ্যই ৫ ডিজিটের হতে হবে;
– পিন (PIN) নাম্বার দেয়ার সময় শুধু সংখ্যা ব্যবহার করতে হবে;
– নতুন পিন (PIN) নাম্বার সেট করার ক্ষেত্রে সর্বশেষ ব্যবহৃত তিনটি পিনের কোনোটিই ব্যবহার করা যাবে না;
– এক ঘণ্টার মধ্যে তিন বার ভুল পিন (PIN) দিলে, পিন (PIN) লক হয়ে যাবে;
– পিন (PIN) নাম্বারের প্রথম সংখ্যাটি শূন্য (০) হওয়া যাবে না;
– আট (৮) ঘণ্টার মধ্যে দুই বার পিন (PIN) পরিবর্তন করা যাবে না;
– ধারাবাহিক এবং একই ডিজিটের নাম্বারগুলো পিন (PIN) নাম্বার হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না; যেমন 1111, 22222, 12345, 23456, 98765, 87654, 54321 ইত্যাদি।

এটিএম পিন পরিবর্তন
মাই বিকাশ এর চেঞ্জ এটিএম পিন অপশন থেকে আপনি আপনার বিকাশ এটিএম ক্যাশ আউট পিন পরিবর্তন করতে পারবেন। যেভাবে করবেন-
১। *২৪৭# ডায়াল করে আপনার বিকাশ মোবাইল মেন্যুতে যান;
২। “মাই বিকাশ” এ যান;
৩। “চেঞ্জ এটিএম পিন” সিলেক্ট করুন;
৪। বর্তমান পিনটি দিন;
৫। এবার ৫ ডিজিটের একটি নতুন পিন নাম্বার দিন;
৬। নিশ্চিত করার জন্য নতুন পিনটি পুনঃরায় লিখুন;
আপনি আপনার মোবাইলে একটি কনফার্মেশন মেসেজ পাবেন।

নিরাপত্তা

নিরাপত্তা পরামর্শ
একটু সচেতনতা আমাদের অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে রক্ষা করতে পারে। আপনার বিকাশ একাউন্ট এবং লেনদেনের নিরাপত্তা নিশ্চিতের লক্ষ্যে কিছু পরামর্শ নিম্নরুপঃ-

করণীয়
১| সত্য, সঠিক, এবং পূর্ণাঙ্গ তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন ফরমটি পূরন করুন। পরবর্তীতে, পিন ভুলে গেলে, মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে, অথবা, অন্য কোনো প্রয়োজনে, আপনার দেয়া এই তথ্যের মাধ্যমেই আপনার বিকাশ একাউন্টের মালিকানা যাচাই করা হবে। কাজেই, রেজিস্ট্রেশন শেষে গ্রাহক কপিটি বুঝে নিন এবং সংরক্ষন করুন।
২| আপনার পিন নম্বর, “সিক্রেট কোড”, এবং “সিকিউরিটি কোড” সবসময় গোপন রাখুন।
৩| আপনার “বিকাশ” লেনদেনের উপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ রাখতে এবং লেনদেন সম্পর্কে যথাযথভাবে অবগত থাকতে সবসময় আপনার নিজের “বিকাশ একাউন্ট” ব্যবহার করুন।
৪| প্রতিটি লেনদেনের পূর্বে এর বৈধতা এবং যথার্থতা নিশ্চিত করুন। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে “বিকাশ একাউন্ট নম্বর”, টাকার পরিমাণ, “সিকিউরিটি কোড”, “সিক্রেট কোড”, পিন, আপনার বিকাশ একাউন্ট এবং লেনদেন সংক্রান্ত অন্যান্য তথ্য ব্যবহার/ইনপুট দেয়ার সময় সতর্ক থাকুন।
৫| এজেন্ট পয়েন্ট থেকে ক্যাশ আউট এর সময় আপনার “বিকাশ মোবাইল মেন্যু” এর শুধুমাত্র “Cash Out from Agent” অপশনের মাধ্যমেই ক্যাশ আউট করুন।
৬| প্রতিটি লেনদেনের পূর্বে এবং পরে আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স চেক করুন।
৭| প্রতিটি লেনদেনের পর “বিকাশ” থেকে প্রেরিত মেসেজের প্রাপ্তি সম্পর্কে নিশ্চিত হোন এবং মেসেজের মাধ্যমে পাওয়া ব্যালেন্স ইনফরমেশন এবং আপনার কাঙ্ক্ষিত ব্যালেন্সের মিল আছে কিনা তা যাচাই করে নিন।
৮। “বিকাশ” প্রেরিত কনফারমেশন মেসেজ পাওয়ার জন্যে আপনার মেসেজ ইনবক্স এ পর্যাপ্ত জায়গা রাখুন। ইনবক্স ফুল থাকলে আপনি এই কনফারমেশন মেসেজগুলো যথাসময়ে পাবেন না।
৯| মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে যত দ্রুত সম্ভব বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭-এ জানান।
১০| যেকোনো তথ্যের প্রয়োজনে এবং তথ্যের যথার্থতা বা নির্ভরযোগ্যতা যাচাই করার জন্যে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭-ই একমাত্র সঠিক এবং বিশ্বাসযোগ্য উৎস।

বর্জনীয়
১| পিন নম্বর, “সিকিউরিটি কোড” এবং “সিক্রেট কোড” কখনই লিখে রাখবেন না এবং অন্য কাউকে জানতে দিবেন না। “বিকাশ” কর্তৃপক্ষ কখনো আপনার পিন নম্বর, সিক্রেট কোড, অথবা সিকিউরিটি কোড জানতে চাইবেন না।
২| লটারী জেতা, পুরষ্কার বা প্রতিযোগিতা, এই ধরনের কোনো মেসেজ বা ফোন কল এ সাড়া দিবেন না। এ ধরনের ফোন কল বা মেসেজের সত্যতা যাচাই করার জন্যে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭-এ যোগাযোগ করুন।
৩| পরিচিত ও নির্ভরযোগ্য ব্যাক্তি ছাড়া আপনার মোবাইল ফোন কাউকে ধার দিবেন না।
৪| নিজের লেনদেনের জন্যে অন্য কারো “বিকাশ একাউন্ট” ব্যবহার করবেন না। “বিকাশ” রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ ফ্রি, তাই নিজ মোবাইল নম্বরটিই রেজিস্টার করে নিন এবং নিজেই ব্যবহার করুন।
৫| কখনই “ Send Money” অপশনের মাধ্যমে এজেন্টের ব্যাক্তিগত একাউন্ট নম্বরে ক্যাশ আউট করবেন না।

বিঃ দ্রঃ
» প্রযুক্তিগতভাবে “বিকাশ” টাকা লেনদেনের একটি নিরাপদ মাধ্যম মাত্র, “বিকাশ” সেবা ব্যবহারে এবং ব্যবহারের প্রক্রিয়ায় গ্রাহকের ভুল, ভুল ব্যাখ্যা বা জালিয়াতির সুত্রপাত হলে “বিকাশ” কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।
» উল্লেখিত তথ্য শুধুমাত্র গ্রাহক সুবিধার্থে প্রদেয় এবং কোনো চুক্তি হিসেবে বিবেচ্য নয়। সকল তথ্য মুদ্রণের সময়কাল পর্যন্ত হালনাগাদ। “বিকাশ” কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনে যেকোনো সময়ে সেবার ধরন, বৈশিষ্ট্য, সুবিধা, এবং চার্জ যথাযথ উপায়ে পরিবর্তন করতে পারবেন। সকল সেবার উপর বিকাশ লিমিটেড এর নির্ধারিত শর্ত প্রযোজ্য।

শর্তাবলী

শর্তাবলী
ব্র্যাক ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ এর নিম্নলিখিত শর্তাবলী মেনে চলুন-

১. স্বাগতমঃ
www.bkash.com এ স্বাগতম। নিম্নোক্ত শর্তাবলীসমূহ এই ওয়েবসাইট (“সাইট”), এখানে ধারণকৃত বিষয়বস্তুসমুহ (“বিষয়বস্তুসমুহ”), এবং এই ওয়েবসাইটে প্রস্তাবিত সেবার (“সেবাসমূহ”) ব্যবহার এবং প্রবেশাধিকার (আপনি বা যেকোনো ব্যক্তি অথবা সত্ত্বা যাকে আপনি আপনার প্রবেশাধিকার দিয়ে প্রবেশের অনুমতি দিবেন) নিয়ন্ত্রন করে।

২. শর্তাদি মেনে নেওয়ার স্বীকৃতিঃ
২.১. এই সাইটটিতে ব্রাউজ, ব্যবহার এবং/অথবা প্রবেশাধিকার এবং/অথবা সেবাসমূহের জন্য আপনাকে নিম্নোক্ত শর্তাদি দ্বারা আবদ্ধ থাকা, সম্মত এবং তা মেনে চলতে বাধ্য থাকা প্রয়োজন। এই সাইটটি এবং/অথবা সাইটটিতে প্রস্তাবিত সেবাসমূহ ব্রাউজিং, পর্যবেক্ষন, প্রবেশ এবং/অথবা ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি উক্ত শর্তাদি মেনে নিয়েছেন বলে গণ্য করা হবে।
২.২. যদি আপনি উক্ত শর্তাদির কোন অংশের সাথে অসম্মত হন, তবে অনুগ্রহ পূর্বক সাইটটি এবং/অথবা সাইটটির প্রস্তাবিত সেবাসমূহ ব্রাউজ, ব্যবহার এবং/অথবা প্রবেশ থেকে বিরত থাকুন।
২.৩. এছাড়াও, এখানে অতিরিক্ত কিছু শর্তাদি থাকতে পারে যা স্বতন্ত্র সেবাসমূহের উপর অর্পিত, যদি আপনি উক্ত সেবাসমূহের জন্য রেজিষ্ট্রেশন করে থাকেন, তবে আপনি ঐ সেবা সম্পর্কিত সকল শর্ত মেনে নিয়েছেন বলে গণ্য করা হবে।

৩. রেজিস্ট্রেশন এবং সেবাসমূহ এবং/ অথবা সাইট ব্যবহারঃ
৩.১. এই সাইটটিতে এবং/অথবা নির্দিষ্ট সেবাসমূহ প্রবেশ/ব্যবহার করতে অথবা প্রবেশ/ব্যবহার চালিয়ে যেতে, আপনার নির্দিষ্ট কিছু ব্যাক্তিগত তথ্য প্রদান করতে হতে পারে। আপনি এই সাইটে অথবা সাইটের ওইরূপ সেবাসমূহের জন্যে রেজিস্ট্রেশন করলে ধরে নেয়া হবে যে আপনি রেজিস্ট্রেশনের জন্যে প্রয়োজনীয় সত্য, নির্ভুল, হালনাগাদ এবং সম্পূর্ণ তথ্য প্রদানে সম্মত।
৩.২. আপনি শুধুমাত্র সেই উদ্দেশ্যেই এই সাইট এবং/অথবা সাইটের সেবাসমূহে প্রবেশ/ ব্যবহারে সম্মত যা (i) উক্ত শর্তাদি এবং (ii) কোন প্রয়োগযোগ্য আইন, প্রনিয়ম (regulation), বিকাশ থেকে প্রদত্ত গাইডলাইন বা নির্দেশ, এই শিল্পের নিয়ন্ত্রক, অথবা অন্যান্য উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ, এবং বিকাশ এর গ্রহন করা যেকোন নীতি প্রবর্তিত যেকোন আইন, নিয়ম, নির্দেশনা, অথবা অনুশাসন, দ্বারা ষ্পষ্টভাবে অনুমোদিত।
৩.৩. আপনি এই মর্মে রাজী যে, এই শর্তাদির অধিনে আপনার দায়বদ্ধতা ভঙ্গের জন্য, এবং উক্ত ভঙ্গের কারণে সৃষ্ট ফলাফল এর জন্য (বিকাশ ভুক্তভোগী হতে পারে এমন যেকোন ক্ষতি এবং লোকশান সহ) কেবলমাত্র আপনিই দায়ী এবং বাধ্য (এবং বিকাশ-এর ক্ষেত্রে আপনার বা কোন তৃতীয় পক্ষের নিকট কোন দায়বদ্ধতা নেই)।

৪. সাইট, সেবা এবং/অথবা বিষয়স্তুর সীমাবদ্ধ ব্যবহারঃ
৪.১. আপনি নিদির্ষ্টভাবে সম্মত যে, এই সাইটের কোন অংশে এবং/অথবা সেবাসমূহে স্বয়ংক্রীয় উপায়ে (স্ক্রিপ্ট অথবা ওয়েব ক্রলার এর ব্যবহার সহ) প্রবেশ/ব্যবহার (প্রবেশ/ব্যবহার এর চেষ্টা) করবেন না এবং এই মর্মে নিশ্চিত করবেন যে, এই শর্তাদির উপরন্তু, এই সাইটের এবং/অথবা সেবাসমূহের কোন অংশে প্রবেশ/ব্যবহারের সাথে সর্ম্পকিত যেকোন নির্দেশনা দ্বারা আপনি আবদ্ধ।
৪.২. আপনি এই মর্মে সম্মত যে, আপনি এমন কোন কাজে অংশগ্রহন করবেন না যা এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহের কোন অংশের উপর (অথবা এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহের সাথে সংযুক্ত সার্ভার এবং নেটওয়ার্কে) হস্তক্ষেপ অথবা বিঘ্নিত করে।
৪.৩. আপনি সম্মত যে, আপনি যেকোন উদ্দেশ্যেই হোক না কেন, এই সাইটের এবং/অথবা সেবাসমূহের কোন অংশ পুনঃউৎপাদন, প্রতিলিপি, কপি, বিক্রয়, লেনদেন অথবা পুনরায় বিক্রয় করবেন না।
৪.৪. আপনি, এবং যেকোন ব্যক্তি অথবা স্বত্তা, যাকে আপনি এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহে আপনার ইন্টারনেট সংযোগ/প্রবেশাধিকার দিয়ে প্রবেশ/ব্যবহার এর অনুমতি দিয়েছেন, নিম্নোক্ত ক্ষেত্রে তারা অনুমতিপ্রাপ্ত ননঃ
(ক) কপি, প্রচার করা, পরিবর্তন, পুর্ণবিন্যাস, প্রদর্শন, বিতরন, লাইসেন্স, প্রেরন, বিক্রয়, সম্পাদন, প্রকাশ, হস্তান্তর, লিঙ্ক প্রদান, বিপরীত প্রকোশলী অথবা পৃথকীকরণ (প্রযোজ্য আইন দ্বারা সুস্পষ্টভাবে যতটুকু অনুমোদিত তা ব্যতিত) অথবা অন্যভাবে সাইটের যে কোন অংশ এবং/অথবা সেবাসমূহ উপরোক্ত উদ্দেশ্যে সহজলভ্য করা (এখানে বর্ণীত শর্তাদি ব্যাতিত)।
(খ) এই সাইট এবং/অথবা সাইট এর সেবাসমুহের প্রতি বা হতে লিংক অন্তর্ভূক্ত অথবা তৈরী করা (ডিপ-লিংক সহ)।
(গ) এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহের প্রতিলিপি করা অথবা এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহের কোন অংশে পৃথক বর্ডার তৈরী করা (যা “ফ্রেমিং” নামেও পরিচিত);
(ঘ)আপত্তিকর উপাদান সংরক্ষন, পুনঃউৎপাদন, প্রেরণ, যোগাযোগ অথবা যেকোন দোষী বিষয়বস্তু গ্রহন এর কাজে এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহ ব্যবহার। আপত্তিকর উপাদান-এর অর্থ এই শর্ত সমূহের মর্মে, এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহ ব্যবহারের ক্ষেত্রে যা দোষী বিষয়বস্তু বলে বিবেচিত হবেঃ
(i) বিকাশ এই ব্যবসার নিয়ন্ত্রক সংস্থা অথবা যেকোন উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গ্রহকৃত আইন, প্রবিধি, নির্দেশনা বা অনুশাসন ভঙ্গ করে অথবা বিকাশ গ্রহনকৃত এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহে প্রবেশ/ব্যবহারের সাথে সংগতীপূর্ণ ভঙ্গ করে।
(ii) অভদ্র, অশ্লীল, মানহানিকর, অশ্রাব্য, পর্ণোগ্রাফিক, অশোভন অথবা ভয়প্রদানকারী অথবা যার ফলে (একজন দায়িত্বসম্পন্ন ব্যাক্তি দ্বারা বিবেচিত) প্রাপক নিগৃহীত, কুণ্ঠিত বা বিক্ষুব্ধ হয়; অথবা
(iii) কোন ব্যাক্তি অথবা স্বত্তার বিরক্তি, অসুবিধা, অথবা অপ্রয়োজনীয় উদ্বেগ এর কারণ সৃষ্টি করার লক্ষ্যে পরিকল্পিত; অথবা
(iv) আস্থা, সৃজনশীল সম্পদের অধিকার, গোপনীয়তা অথবা তৃতীয় পক্ষের যেকোন অধিকার ভঙ্গ করে।
(ঙ) হ্যাক (Hack) করা, মাত্রাতিরিক্ত ট্রাফিক চাহিদার সৃষ্টি, অন্য কম্পিউটারের প্রোব বা ছন্দবিশ্লেষণ করা, ভাইরাস প্রদান করা, মেইল বোম্ব, চেইন লেটারস অথবা পিরামিড স্কীমস অথবা অন্য ব্যাবহারকারীদের এই সাইটটি এবং/অথবা সেবাসমূহের অথবা অন্য কোন ওয়েবসাইট বা সেবাসমূহের প্রবেশ/ব্যবহার দমন করার লক্ষ্যে উদ্দিষ্ট কোন কার্যকালাপের সাথে জড়িত থাকা;
(চ) প্রযোজ্য তথ্য সংরক্ষন আইন এবং এই শর্তাদির সাথে সংগতিপূর্ণ নয় এমন ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ এবং প্রক্রিয়াজাত করা;
(ছ) বিকাশ অনুমোদিত, বিকাশ কর্তৃক বিক্রয়ের জন্যে প্রস্তাবিত অথবা বিকাশ কর্তৃক সৃষ্ট এরকম ধারনা সৃষ্টির মাধ্যমে পন্য বা সেবা বিক্রয়ের প্রস্তাব বা বিজ্ঞাপন দেওয়া;
(জ) অন্য যেকোন ব্যক্তি বা স্বত্তার সৃজনশীল সম্পদের অধিকার লঙ্ঘন করা;
(ঝ) এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহের ব্যবহারকারীদের তথ্য উৎপন্ন অথবা সংগ্রহের কাজ়ে এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহ ব্যবহার করা অথবা অনুমোদোনবিহীন অথবা অযাচিত বিজ্ঞাপন, জাংক অথবা বাল্ক মেইল (“স্প্যাম” হিসেবে পরিচিত) পোষ্ট অথবা বিতরন করা;
(ঞ) এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহের অংশবিশেষ এমনভাবে ব্যবহার করা যা আমাদের সার্বিক এবং নিজস্ব বিবেচনা সাপেক্ষে আপত্তিকর এবং অনুপযুক্ত অথবা ব্যবসা, ব্র্যান্ড, সুনাম, সম্মানের জন্য ক্ষতিকর অথবা অন্যথায় অগ্রহনযোগ্য বলে মনে হয়;
(ট) এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহকে ব্যবহার করে ইমেইল অথবা অন্যান্য বিষয়বস্তু পাঠানো যা এমনভাবে সাজানো বা লেখা হয়েছে যে ইমেইলটি বিকাশ থেকে পাঠানো হয়েছে বলে মনে হয়।
৪.৫. এই সাইটটি এবং/অথবা সেবাসমূহের যেকোনো ধরনের অপব্যবহারের জন্যে আপনি দায়ী থাকবেন, এমনকি অন্য কোন ব্যক্তি অথবা স্বত্তাও যদি আপনার প্রবেশাধিকার ব্যবহার করে এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহে প্রবেশ করে এর অপব্যবহার করে থাকে তাহলেও এর দায়িত্ব আপনার উপর থাকবে।
৪.৬. আপনি এই সাইটে এবং/অথবা সেবাসমূহের মাধ্যমে প্রেরন/পোস্ট করতে চেয়েছিলেন এমন যেকোন বিষয় ব্লক, অপসারণ, পুনঃসম্পাদন অথবা পোষ্ট করতে আমরা অস্বীকার করার অধিকার রাখি, যা আমরা এই শর্ত সমূহের লঙ্ঘন বলে গণ্য করব এবং এই শর্ত লংঘনের ফলে যেকোন ব্যবস্থা গ্রহন করব যা আমাদের একমাত্র এবং নিজস্ব বিবেচনায় এর প্রতিরোধ অথবা প্রতিকারের জন্যে প্রয়োজন বলে মনে হবে। আপনি যদি এই সাইটে এবং/অথবা সেবাসমূহ ব্যবহার করে উল্লিখিত শর্তাদীসমূহ লংঘন করে এমন যেকোনো বিষয়বস্তু অথবা উপাদান প্রচারিত হচ্ছে অবগত হন, তাহলে আপনাকে অনুরোধ করা হচ্ছে যে আপনি অনতিবিলম্বে আমাদের গ্রাহক সেবা কেন্দ্রে ১৬২৪৭ –এ যোগাযোগ করে উক্ত বিষয় সম্পর্কে অবহিত করুন। এই সাইটে এবং/অথবা সেবাসমূহ থেকে কোন অনধিকার প্রবেশকারী বিষয়বস্তু অথবা উপাদান, অথবা তৃতীয়পক্ষ বিষয়বস্তুর অপসারনে বিলম্ব, বা অপসারন, ব্লক, পুনঃসম্পাদনে ব্যর্থ বা সৎ উদ্দেশ্যে করা কোনো তৃতীয়পক্ষ বিষয়বস্তুর ভুল অপসারণ এর জন্যে আমরা দায়ী নই।

৫. আমরা যেসকল তথ্য সংগ্রহ করতে পারিঃ
৫.১. প্রসঙ্গত আমরা আপনার কাছ থেকে নিম্নোক্ত তথ্যাদি সংগ্রহ করতে পারিঃ
(ক) পুরো নাম;
(খ) দোকান/ব্যবসার/প্রতিষ্ঠানের নাম;
(গ) ব্যবসায়িক/প্রতিষ্ঠানের ধরন;
(ঘ) জেলা এবং থানা (পুলিশ স্টেশনসহ) বাসা/দোকান/ব্যবসা এর ঠিকানা;
(ঙ) মোবাইল নম্বর, ইমেইল ঠিকানা সহ যোগাযোগ করার তথ্যাদি;
(চ) জনমিতি বিষয়ক তথ্যাদি যেমন, পোষ্টকোড, পছন্দ এবং আগ্রহ; এবং
(ছ) রেজিস্ট্রেশন, জরিপ, এবং/অথবা অফারের সাথে সম্পর্কিত অন্যান্য তথ্যাদি।
৫.২. আপনি যদি রেজিস্ট্রেশন করতে না চান, তাহলে আমরা আপনার থেকে কোন ধরনের ব্যক্তিগত তথ্যাদি সংগ্রহ করব না এবং আপনি আমাদের সাইট বেনামে পরিদর্শন করতে পারবেন। তারপরও আপনি এই সাইটে এবং/অথবা সেবাসমূহের প্রবেশ/ব্যবহার করতে উক্ত শর্তাদি মেনে চলতে বাধ্য থাকবেন।

৬. আপনার তথ্যাদির ব্যবহারঃ
৬.১. বিকাশ আপনার প্রদানকৃত তথ্যাদি সংরক্ষন এবং ব্যবহার করতে পারবে বেশ কিছু উদ্দেশ্যে, যার মাঝে অন্তর্ভুক্ত থাকবেঃ
(ক) আইনগত, সরকারী অথবা নিয়ন্ত্রনকারী সংস্থা সংশ্লিষ্ট কাজ করার ক্ষেত্রে, যার সাথে চলমান অথবা প্রত্যাশিত আইনি প্রক্রিয়া অথবা যেকোন ধরনের অপরাধ অথবা জালিয়াতি প্রতিরোধ, আবিষ্কার অথবা পরিচালনার সম্পর্কিত।
(খ) বিকাশ এর ব্যবসার স্বার্থে যেমন মার্কেটিং, মান নিয়ন্ত্রন এবং প্রশিক্ষন, টেকনিক্যাল পদ্ধতির অনুমোদনবিহীন ব্যবহার, এবং যেকোন ধরনের অপরাধ অথবা জালিয়াতি প্রতিরোধ, আবিষ্কার অথবা পরিচালনা করতে কার্যকর পদ্ধতির নিশ্চয়তা প্রদান করার জন্য আপনার যোগাযোগ সমূহ পর্যবেক্ষন এবং/অথবা রেকর্ডিং করা।
(গ) বিকাশ এর ব্যবসার স্বার্থে যেমন মার্কেটিং, মান নিয়ন্ত্রন এবং প্রশিক্ষন, কাস্টমার বৃদ্ধি, এজেন্ট, এবং/অথবা মার্চেন্ট, কাস্টমার সেবা সম্পর্কিত কোন কারনে তৃতীয় কোন পক্ষের সাথে এসব তথ্যাদি বিনিময় করা।
৬.২. উল্লেখিত বিষয় গুলো ছাড়াও, আপনার কাছ থেকে সংগৃহীত যেকোন তথ্য নিম্নোক্ত উদ্দেশ্যে অভ্যন্তরীন যেকোন বিষয়ে ব্যবহার করা হতে পারেঃ
(ক) বিকাশ এর পণ্য এবং সেবা প্রদান করার জন্য;
(খ) অভ্যন্তরীন নথিভুক্ত করার জন্য;
(গ) সাইটের উন্নয়নের জন্য (আমরা সার্বক্ষনিকভাবে চেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছি আপনাদের তথ্য এবং প্রতিক্রিয়ার ভিত্তিতে আমাদের ওয়েবসাইটের উন্নয়ন করতে);
(ঘ) পর্যাবৃত্ত ই-মেইল প্রদান করার জন্য;
(ঙ) যেকোন প্রতিযোগীতা, প্রচারনা, জরিপ অথবা সাইটের অন্যান্য উপাদান এর পরিচালনা করার জন্য।
৬.৩. আমরা আপনাদের ব্যক্তিগত তথ্যাদি নিরাপদভাবে সংরক্ষনের জন্যে বিভিন্ন ধরনের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা প্রয়োগ করে থাকি। যাহোক, আমরা অথবা কোন তৃতীয় পক্ষ আপনার ব্যক্তিগত তথ্যাদির নিরাপত্তা এবং নিরাপদ সংরক্ষনের জন্যে কোন ধরনের ওয়ারেনটি অথবা প্রতিশ্রুতি প্রদান করছি না।

৭. ইন্টেলেকচুয়্যাল প্রপার্টি রাইট্‌সঃ
৭.১. যেকোন বিষয়বস্তু বা উপাদানের সকল কপিরাইট, ট্রেড মার্ক, পেটেন্ট, ব্র্যান্ডের নাম, কর্পোরেট নাম এবং অন্যান্য সম্পদের অধিকার (সীমাবদ্ধতা ব্যতীত সফ্টওয়্যার সহ, ডাটা, এ্যপ্লিকেশন, তথ্য, লেখা, ফটোগ্রাফ, মিউজিক্, শব্দ, ভিডিও, গ্র্যাফিক্স, লোগো, প্রতীক, শিল্পীত কাজ, নকশা, বিন্যাস, দর্শন, আকার এবং অন্যান্য বস্তুগত অথবা চলন্ত ছবি) ধারণ বা সেবাসমূহের (বিষয়বস্তু) দ্বারা প্রবেশাধিকার সেবা এবং/অথবা সাইটের অংশ হিসেবে ব্যবহারের জন্যে অধিকারপ্রাপ্তদের দ্বারা বিকাশ এর মালিকানাধীন অথবা স্বত্তাধিকারস্বত্তে বিকাশ এর লাইসেন্সকৃত। “বিকাশ” নাম, লোগো এবং পাখি যন্ত্র/চিহৃ বিকাশ এর রেজিষ্টারকৃত ট্রেডমার্ক/রেজিসট্রেশনের জন্য আবেদনক্রিত ট্রেডমার্ক। যেসব ট্রেডমার্ক সমূহ এখানে পুনঃউৎপাদিত হয়েছে, যা বিকাশ এর সম্পত্তি নয় অথবা বিকাশ দ্বারা লাইসেন্সকৃত নয়, তা তাদের নিজ নিজ মালিকের সম্পত্তি।
৭.২. আপনি এই শর্তাবলীসমূহ মেনে নিয়ে এই সাইট এবং/অথবা সেবাসমূহের মধ্যে প্রবেশ/ ব্যবহার করতে পারবেন। আপনি যদি এই ওয়েব সাইট দর্শন ব্যতিত অন্য কোন কারনে এর বিষয়বস্তু বা কোন অংশে প্রবেশ/ব্যবহার করতে চান তবে আপনার উপাদানটির স্বত্তাধিকারীর লিখিত অনুমতি নিতে হবে। সকল অধিকার ষ্পষ্টভাবে বিকাশ দ্বারা সংরক্ষিত।
৭.৩. উক্ত বিষয়াদি সহ, আপনি কোন বিষয়বস্তুর (পুরোপুরি অথবা আংশিক) স্বত্ববান হবেন নাঃ
(ক) যেকোন কারনেই বিষয়বস্তু সমূহের পুনঃউৎপাদন, প্রতিলিপি, কপি, বিক্রয়, লেনদেন অথবা পুনরায় বিক্রয়;
(খ) বিষয়বস্তুর যে কোন অংশ তৃতীয় পক্ষের সাথে বিনিময় করা অথবা তৃতীয় পক্ষকে যেকোন উপায়ে প্রবেশাধীকার দেওয়া যদি না তা ষ্পষ্টভাবে অনুমতি প্রাপ্ত হয় অথবা;
(গ) কোনভাবেই বিষয়বস্তু সমূহের যেকোন অংশের পরিবর্তন, পুনঃসম্পাদন করা, অভিশ্রুত করা, পুনঃবিন্যাস অথবা উপযোজন করা
৭.৪. সাইট, সেবাসমূহ এবং/অথবা বিষয়বস্তুর যেকোন ধরনের অনুমোদোনবিহীন প্রবেশ/ব্যবহার ক্ষতিপূরণ, জরিমানা, লোকসান ও উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থার কারণ হতে পারে এবং/অথবা অপরাধমূলক কর্মকান্ড হিসেবে বিবেচিত হতে পারে। তদরিক্ত, আপনি এই সাইট, সেবাসমূহ এবং/অথবা বিষয়বস্তুতে যেকোন ধরনের অনুমোদোনবিহীন প্রবেশ/ব্যবহার এর ফলে সৃষ্ট দাবী, চাহিদা, জরিমানা, আইনি ব্যবস্থার (দেওয়ানি বা ফৌজদারি) জন্যে দায়ী থাকবেন।
৭.৫. বিকাশ নাম, লোগো, পাখি যন্ত্র/চিহৃ এবং/অথবা যেকোন উপাদান সমূহের যেকোন ধরনের অনুমোদনবিহীন ব্যবহার, পুনঃউৎপাদন অথবা পরিবর্তন কঠোরভাবে নিষিদ্ধ এবং বিকাশ তার সকল ক্ষমতা এই ধরনের অনুমোদনবিহীন ব্যবহার, পুনঃউৎপাদন অথবা পরিবর্তনের বিরুদ্ধে দাবী, চাহিদা, আইনি ব্যবস্থা নিতে পারবে এবং উক্ত লোকশান, ক্ষতি এবং খরচ এর জন্যে সেই ব্যক্তি অথবা স্বত্তার কাছ থেকে জরিমানা এবং ক্ষতিপূরণ চাওয়া হবে বা মামলা করা হবে।

৮. কোন ওয়্যারেনটি নেইঃ
৮.১. এখানে প্রদানকৃত যেকোন তথ্য অথবা বিষয়বস্তু সম্পূর্নভাবে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য এবং সুবিধার জন্য, এবং তা অবশ্যই ব্যবসায়িক ব্যবহারের অভিপ্রায়ে বা লেনদেন অথবা বিনিয়োগ এর জন্যে নয় এবং যে কোন ধরনের প্রতিনিধিত্ব অথবা অফার হিসেবে বিবেচনা করা উচিত হবে না। এই তথ্যাদি অথবা বিষয়বস্তু লেনদেন এর জন্যে সিদ্ধান্ত গ্রহনের ক্ষেত্রে উপযুক্ত নয়, অথবা আর্থিক উপকরন, বিনিয়োগ, পণ্য অথবা সেবাসমূহের ব্যাপারে বিনিয়োগ পরামর্শ বা সুপারিশসহ যে কোন ধরনের পরামর্শও (বিনিয়োগ, ট্যাক্স, আইনী) প্রদান করছে না।
৮.২. এই সাইটে, সেবাসমূহে এবং/অথবা বিষয়সমূহে ধারণকৃত তথ্য পুরাতন হতে পারে এবং/অথবা এতে ভুল বা ভ্রান্তি থাকতে পারে। বিকাশ এই সাইটটিতে সেবাসমূহ এবং বিষয়বস্তু ‘যেখানে যে অবস্থায় আছে’ হিসেবে প্রকাশ করে এবং সেবাসমূহ এবং বিষয়বস্তু (কোন সীমাবদ্ধতা ছাড়া এসবের সন্তোষজনক মান, ভাইরাস অথবা অন্যান্য ক্ষতিকারক উপাদান থেকে মুক্তথাকা, কোন বিশেষ উদ্দেশ্য সাধনের যোগ্যতা, প্রশস্ততা, নির্ভরযোগ্যতা, সময়ানুবর্তিতা, নির্ভুলতা, সমউপযোগিতা, সম্পূর্ণতা, নিরাপত্তা অথবা ভুলহীনতা সহ) সম্পর্কিত বর্ণিত বা উহ্য কোন ধরনের আশ্বাস দেয় না।
৮.৩. বিকাশ অথবা কোন তৃতীয় পক্ষ কোন বিশেষ উদ্দেশ্যে এই সাইটে পাওয়া, প্রস্তাবকৃত অথবা দাখিলকৃত তথ্য অথবা উপাদানের (বিষয়বস্তু, সেবাসমূহ, কার্যক্রম অথবা প্রস্তাবসমুহ সহ কিন্তু সিমাবদ্ধ নয়) যথাযথতা, যথাকালীনতা, কার্য সম্পাদন, সম্পূর্ণতা, উপযোগীতা, বা অন্যথায় কোন নির্দেশনামা অথবা প্রতিশ্রুতি প্রদান করবে না অথবা দায়িত্ব অথবা দায়ভার বহন করবে না। আপনি স্বীকার করছেন যে, এই তথ্যাদি , উপাদান, বিষয়বস্তু সমূহ, সেবাসমূহ কার্যক্রম অথবা প্রস্তাবসমূহে ভুল বা ভ্রান্তি থাকতে পারে এবং আমরা এইরুপ ভুল অথবা ভ্রান্তির জন্যে আইনুনগভাবে পুরাদস্তুর অনুমিত পর্যায় পর্যন্ত স্পষ্টভাবে দায়ভারমুক্ত।
৮.৪. বিকাশ যে কোন সময় এই সেবাসমূহ, বিষয়বস্তু, সাইট এবং বিকাশ এর পণ্য এবং সেবার বৈশিষ্ট্য, সুবিধা এবং চার্জসমূহ, এবং এই বৈশিষ্ট্য, সুবিধা এবং চার্জসমূহের অধিকারে থাকা তথ্য এবং উপাদান সমূহের প্রতিস্থাপন, অথবা সংশোধন এর অধিকার সংরক্ষন করে। বিকাশ এর প্রস্তাবিত সকল পণ্য এবং সেবাসমূহ, বিকাশ এর পণ্য এবং সেবাসমূহের জন্যে নির্ধারিত শর্তাদির দ্বারা প্রতিপালিত।

৯. তৃতীয় পক্ষের হাইপারলিংকস এবং ওয়েবসাইটসমূহঃ
৯.১ বিভিন্ন সময়ে, এই সাইট অন্যান্য ওয়েবসাইটের নানা ধরনের লিংক সংযুক্ত করতে পারে। এই লিংক সমূহ শুধুমাত্র আপনার সুবিধা এবং আপনাকে অধিকতর তথ্যাদি প্রদানের জন্যই ব্যবহৃত।
৯.২. তৃতীয় পক্ষের সাইটের এই লিংকসমূহের সংযুক্তি আমাদের নিয়ন্ত্রন এ নয়, এইসব ওয়েবসাইট এবং লিংকসমূহ থেকে তৃতীয় পক্ষের সাথে সম্পাদিত যেকোন চুক্তি আমাদের দ্বারা অনুমোদিত নয়, এক্ষেত্রে সকল ঝুকি আপনার নিজেকে বহন করতে হবে এবং এর ফলে আপনি ভোগ করতে পারেন এমন কোন ক্ষতির জন্যে আমরা দায়ভার বহন করব না।
৯.৩. এই তৃতীয় পক্ষের ওয়েবাসাইটগুলোতে প্রবেশ/ব্যবহার এর জন্য তাদের নিজস্ব শর্তাদি এবং গোপনীয়তা নীতি আছে। আমরা অথবা কোন তৃতীয় পক্ষ কোন বিশেষ উদ্দেশ্যে এই সংযুক্ত সাইটে পাওয়া, প্রস্তাবকৃত অথবা দাখিলকৃত তথ্য অথবা উপাদানের (বিষয়বস্তু, সেবাসমূহ, কার্যক্রম অথবা প্রস্তাবসমুহ সহ কিন্তু সিমাবদ্ধ নয়) যথাযথতা, সময়উপযোগিতা, কার্য সম্পাদন, সম্পূর্ণতা, যথার্ততা বা অন্যথায় কোন নির্দেশনামা অথবা প্রতিশ্রুতি প্রদান করছি/করবে না অথবা দায়িত্ব অথবা দায়ভার বহন করবো/করবে না। আপনি স্বীকার করছেন যে, এই তথ্যাদি, উপাদান, বিষয়বস্তু সমূহ, সেবাসমূহ কার্যক্রম অথবা প্রস্তাবসমূহে অযথাযথতা বা ভুল থাকতে পারে এবং আমরা এইরুপ অযথাযথতার অথবা ভুল এর জন্যে আইনুনগভাবে পুরাদস্তুর অনুমিত পর্যায় পর্যন্ত স্পষ্টভাবে দায়ভারমুক্ত। উপরোল্লিখিত কোন কারনে সৃষ্ট ক্ষতির জন্যে বিকাশ কোন ধরনের দায়ভার বহন করবে না।

১০. কুকিস এর ব্যবহারঃ
১০.১. আমরা আমাদের সাইটে বা সাইটের মধ্যে কুকিস ব্যবহার করি না। তাছাড়াও, আমরা আমাদের সাইটে সংযুক্ত তৃতীয় পক্ষের কোন ওয়েবসাইটে কুকিস ব্যবহারের জন্যে কোন ধরনের দায়ভার বহন করব না।

১১. দায়ভারঃ
১১.১. যেকোন ধরনের লেনদেনের পূর্বে, প্রাপক এবং লেনদেনর প্রকৃতি সম্পর্কে সত্যতা যাচাই করার দায়িত্ব আপনার। ‘প্রাপক বিকাশ একাউন্ট নম্বর’, ‘মার্চেন্ট বিকাশ একাউন্ট নম্বর’, ‘এজেন্ট বিকাশ একাউন্ট নম্বর’, ‘পরিমান’, ‘বিকাশ মোবাইল মেনু পিন’, ‘বিকাশ এটিএম ক্যাশ আউট পিন’, ‘সিকিউরিটি কোড’ এবং আপনার বিকাশ একাউন্টের লেনদেন সম্পর্কিত অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্যাদি প্রবেশ করানোর সময় সতর্ক থাকা এবং সঠিক তথ্যের নিশ্চয়তা যাচাই করার দায়িত্বও আপনার। আপনি কখনই ‘বিকাশ মোবাইল ম্যানু পিন’, ‘বিকাশ এটিএম ক্যাশ আউট পিন’, ‘সিকিউরিটি কোড’, ‘সিক্রেট কোড’ অথবা যে কোন গোপনীয় তথ্যাদি কারো সাথে শেয়ার করবেন না। বিকাশ টাকা লেনদেনের একটি নিরাপদ মাধ্যম মাত্র, এবং বিকাশ সেবা ব্যবহারে এবং ব্যবহারের প্রক্রিয়ায় গ্রাহকের ভুল, ভুল ব্যাখ্যা বা জালিয়াতির সূত্রপাত হলে বিকাশ কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।
১১.২. এই সাইটের তথ্যাদি অথবা উপাদানসমূহ ব্যবহার/প্রবেশ এর ক্ষেত্রে সকল ঝুকি সম্পূর্ণ আপনার। এই ওয়েবসাইটের যেকোণ পণ্য, সেবা অথবা তথ্যাদি আপনার নির্দিষ্ট চাহিদা মেটাতে পারছে কিনা তা নিশ্চিত করার দায়ভার সম্পূর্ণ আপনার। আমরা যেকোন তথ্যাদি অথবা উপাদানে আপনার ব্যবহার/প্রবেশ এর ব্যাপারে কোনভাবেই দায়ী নই।
১১.৩. বিকাশ নিম্নোক্ত সম্পর্কিত কোন ধরনের ব্যবহারের ক্ষতি, প্রবেশ, লাভ বা তথ্য বা কোন প্রত্যক্ষ, অপ্রত্যক্ষ, বিশেষ বা অনুবর্তী ক্ষতি বা লোকশানের জন্য দায়ী হবে না যা সীমাবদ্ধতা ছাড়া কোন চুক্তি সহ অপারগতা বা অন্যায় থেকে উদ্ভূত হোক বা না হোকঃ
(ক) আপনার ব্যবহার, অথবা সাইট, সার্ভিস এবং/অথবা বিষয়বস্তু সমূহ ব্যবহারে নির্ভরতা বা অক্ষমতা;
(খ) আপনি যদি কোন কারণে এই সাইট, সেবা, বিষয়বস্তু এবং/অথবা যে কোন ধরনের শর্তাদি নিয়ে অসন্তুষ্ট থাকেন অথবা যদি একই মত ধারণ না করেন, তবে আপনার একমাত্র এবং স্বতন্ত্র প্রতিকার হচ্ছে এই সাইট, সেবা এবং/অথবা বিষয়বস্তু সমূহ ব্যবহার/ প্রবেশ থেকে বিরত থাকা।

১২. আপনার দ্বারা ক্ষতিপূরনঃ
১২.১. আপনি সম্মতি দিচ্ছেন যে আপনি, বিকাশ লিমিটেড, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড এবং আমাদের যেকোনো তৃতীয় পক্ষ সেবাদানকারীদের (অতঃপর সম্মিলিতভাবে “ক্ষতিগ্রস্ত দল” হিসেবে উল্লেখিত) তৃতীয় পক্ষের সকল দাবি, ক্ষয়ক্ষতি, লোকসান, আইনি প্রক্রিয়া বা মামলামোকদ্দমা, খরচের (সীমাবদ্ধতা ছাড়া যুক্তিসঙ্গত আইনি খরচ ও ব্যয় সহ) সম্পূর্ণরূপে ক্ষতিপূরণ দিবেন যা আপনার এই সাইটের, সেবাসমূহের এবং/অথবা বিশয়বস্তুর ব্যবহার/প্রবেশ করার সময় এই শর্তাবলী ভঙ্গ বা অতিক্রমণ থেকে উদ্ভুত।
১২.২. ক্ষতিগ্রস্ত দল যা দাবি, চাহিদা, মামলামকদ্দমার সম্মুখীন হবেন তা আপনাকে অবহিত করা হবে এবং আপনি এই মর্মে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ যে ক্ষতিগ্রস্ত দলকে এইসব দাবি, চাহিদা ও মামলামোকদ্দমার বিরোধিতা করার পূর্ণ সুযোগ ও যুক্তিসঙ্গত সহযোগিতা দিবেন।

১৩. সাধারণঃ
১৩.১. এই সাইটের পেইজ এ যে বিষয়বস্তু এবং সেবাসমূহ সম্পর্কিত তথ্য এবং উপাদান প্রদান করা হয়েছে তা শুধুমাত্র আপনার সাধারণ অবগতি এবং ব্যবহার/প্রবেশ এর জন্যে এবং এই তথ্য এবং উপাদানের যে কোন অংশ কোন নোটিশ ছাড়া আমাদের একান্ত বিবেচনায় পরিবর্তনযোগ্য।
১৩.২. বিকাশ যেকোন সময় যেকোন নোটিশ ছাড়া, সেবাসমূহ, বিষয়বস্তু, সাইট, ইহার নীতি এবং/অথবা শর্ত সমূহ পর্যালোচনা, পরিমার্জনা, সংশোধন করার অধিকার রাখে এবং আপনি এই সাইট, সেবাসমূহ এবং/অথবা বিষয়বস্তু ব্যাবহার/প্রবেশ চালু রাখার ক্ষেত্রে উক্ত পর্যালোচনা, পরিমার্জনা, সংশোধন মেনে নিতে বাধ্য থাকবেন।
১৩.৩. এই শর্তাদির নির্মান, বৈধতা এবং কার্য সম্পাদন, বাংলাদেশ এর প্রচলিত আইন অনুযায়ী নিয়ন্ত্রিত হবে। আপনার এই সাইট ব্যবহার/প্রবেশ এবং এই সাইট ব্যবহার/প্রবেশের কারনে তৈরী হওয়া যেকোন বিতর্কও বাংলাদেশের প্রচলিত আইনের প্রতিপালিত বিষয়।
১৩.৪. যদি কোন শর্ত বা শর্তের বিধানের কোন অংশ কোন বিচারোক অথবা অন্য কোন যোগ্য কর্তৃপক্ষের দ্বারা বাতিল, বাতিলযোগ্য, অবৈধ অথবা অন্যথায় অপ্রয়োগযোগ্য বলে ঘোষিত হয় তবে সেই শর্তটি সংশোধিত হবে অথবা বিকাশ এর বিবেচনাধীন থাকবে, ইহা শর্তাদি থেকে বাদ হবে এবং এই শর্তাদির বাকি প্রভাবিত বিধান ও এর অন্যান্য সংস্থা সমূহ বলবত এবং কার্যকর থাকবে।
১৩.৫. যেখানে এই শর্তাবলী অন্যথা প্রদান করে তা ছাড়া এইখানে বর্ণিত অধিকার এবং প্রতিকার ক্রমসঞ্চিত এবং আইন দ্বারা প্রদত্ত অধিকার এবং প্রতিকার থেকে একচেটিয়া নয়। যে কোনো সময়ে বা যে কোনো সময়ের জন্য অথবা এক বা একাধিক শর্তাবলী প্রয়োগে বিকাশের ব্যর্থতা সেইসব শর্তাবলী ও পরবর্তীকালে শর্তাবলী প্রয়োগের অধিকার বা প্রতিকারের দাবিত্যাগ হিসেবে গণ্য হবে না।
১৩.৬. বিকাশ এর কোন বিলম্ব অথবা ব্যর্থতা কোন শর্ত ভঙ্গ অথবা কোন প্রত্যাশিত লাভের ক্ষতি সহ যেকোন ক্ষতির দাবী সংগঠন করবে না যদি সেই বিলম্ব অথবা ব্যর্থতা একটি অপ্র্ত্যাশিত ঘটনার কারনে হয়। অপ্র্ত্যাশিত ঘটনার অর্থ হচ্ছে যা আয়ত্তের বাইরে এবং বিকাশ এর ভুল এবং অবহেলার কারনে ঘটে নাই এবং যা যথাযাথ মনযোগ দিয়েও প্রতিরোধ করতে অক্ষম, যা শুধুমাত্র সৃষ্টিকর্তার আচরন, সর্বজনীন শত্রু, সুবিধার অপব্যবহার, সন্ত্রাসী কার্যকলাপ অথবা প্রাকৃতিক কার্যকলাপ, ধর্মঘট, কর্মচারীদের সম্মিলিত কার্যক্রম অথবা অনুরুপ ঘটনার মাঝেই সীমাবদ্ধ নয়।
১৩.৭. আপনি অবশ্যই এই শর্তাদি তৃতীয় পক্ষের কাছে অর্পণ করবেন না। বিকাশ নিজ বিবেচনায় এই শর্তাদির পুরোপুরি অথবা কিছু অংশ তৃতীয় পক্ষকে অর্পণ করতে পারে ।
১৩.৮. আপনি এই শর্তসমূহের সাথে রাজী হওয়ার মাধ্যমে স্বীকার করছেন যে, এইখানে ষ্পষ্টভাবে বর্ণিত শর্তাদি ব্যতিত আপনি কোন ব্যক্তির (এই শর্তাদির কোন পার্টি হোক বা নাহোক) বিবৃতি, উপস্থাপনা, নির্ভরপত্র, প্রতিশ্রুতি অথবা বোঝানোর (অবহেলাবসত অথবা সতভাবে করা) উপর নির্ভর করবেন না বা কোন প্রতিকার পাবেন না।
১৩.৯. www.bkash.com/bn , ভিজিট করার মাধ্যমে আপনি আইনের সাংঘর্ষিক নীতিমালা থাকা সত্ত্বেও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের আইনসমূহ এই শর্তাদি এবং আপনি ও বিকাশ এর সাথে তৈরী হওয়া যেকোন বিরোধ সমাধানে নিয়ন্ত্রক হিসেবে কাজ করবে।
১৩.১০. আমরা স্থায়িভাবে সেবাসমূহ, বিষয়বস্তু এবং/অথবা সাইটটি প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে কোন ধরনের স্থগিতাবস্থা, পরিবর্তন অথবা সমাপনের কারনে আসন্ন ক্ষতি অথবা ক্ষতি সাধিত হলে বিকাশ তার জন্য দায়বদ্ধ থাকবে না। এই সমাপন আমাদের প্রতি আপনাদের দায়বদ্ধতাকে কোনভাবেই প্রভাবিত করবে না।

জিজ্ঞাসা

সাধারণ জিজ্ঞাসা
ব্র্যাক ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ সম্পর্কে কতিপয় সাধারণ জিজ্ঞাসার জবাব তুলে ধরা হলো-

০১. সংজ্ঞা
ক) বিকাশ একাউন্ট
– বিকাশ প্রদত্ত সেবাসমূহ ব্যবহারের জন্যে মোবাইল ফোনে যে একাউন্টটি খোলা হয় সেটিই বিকাশ একাউন্ট। একাউন্ট খোলার পর আপনার মোবাইল নম্বরই হবে আপনার বিকাশ একাউন্ট নম্বর।
খ) বিকাশ একাউন্ট খোলা
– আপনার মোবাইল ফোনে বিকাশ একাউন্ট চালু করা।
গ) বিকাশ মোবাইল মেন্যু
– *২৪৭# ডায়েল করে আপনি যে মেন্যু দেখতে পান।
ঘ) ক্যাশ ইন
– বিকাশ একাউন্টে টাকা জমা রাখার পদ্ধতি।
ঙ) ক্যাশ আউট
– আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলনের পদ্ধতি। আপনি যেকোনো বিকাশ এজেন্ট বা ব্র্যাক ব্যাংক এটিএম থেকে ক্যাশ আউট করতে পারবেন।
চ) সেন্ড মানি
– একটি বিকাশ একাউন্ট থেকে আরেকটি বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠানোর পদ্ধতি।
ছ) মোবাইল রিচার্জ
– মোবাইল রিচার্জ সেবার মাধ্যমে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে মোবাইল এয়ারটাইম রিচার্জ করতে পারবেন।
জ) পেমেন্ট
– আপনি যখন আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে একজন বিক্রেতাকে পণ্য অথবা সেবার বিনিময়ে বিল প্রদান করেন।
ঝ) ইন্টারন্যাশনাল রেমিটেন্স
– বিদেশ থেকে বাংলাদেশে বিকাশ একাউন্টে টাকা পাঠানো বা গ্রহণ করা।
ঞ) মাই বিকাশ
– বিকাশ মোবাইল মেন্যুর একটি অপশন মাই বিকাশ, যেখান থেকে আপনি আপনার একাউন্ট ব্যাল্যান্স চেক করতে, সংক্ষিপ্ত স্টেটমেন্ট দেখতে, এটিএম ক্যাশ আউট সার্ভিস একটিভ করতে এবং পিন নম্বর পরিবর্তন করতে পারবেন।
ট) বিকাশ মোবাইল মেন্যু পিন
– এটি পাসওয়ার্ডের মত একটি গোপন নম্বর যা আপনার বিকাশ একাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।
ঠ) বিকাশ এটিএম পিন
– এটিও একটি গোপন নম্বর যেটি এটিএম থেকে ক্যাশ আউট করার সময় ব্যাবহার করা হয়।
ড) সিকিউরিটি কোড
– সিকিউরিটি কোড একটি একবার ব্যবহারযোগ্য পিন। আপনি যখন এটিএম থেকে ক্যাশ আউট করবেন, তখন আপনার একটি সিকিউরিটি কোড তৈরি করতে হবে, যা পরবর্তী ১ ঘণ্টার মধ্যে কেবলমাত্র একবারই ব্যাবহারযোগ্য।
ঢ) ট্রানজেকশন আইডি
-প্রতিটি লেনদেনের জন্য সিস্টেমের মাধ্যমে তৈরিকৃত একটি সতন্ত্র তথ্যসূত্র নাম্বার যা সনাক্তকরার জন্য সংরক্ষণ করা হয়।
ন) রেফারেন্স
-নিজের ভবিষ্যত প্রয়োজনের জন্যে লেনদেনের উদ্দ্যেশ্য উল্যেখ করা।

০২. আমি কি বিকাশ এর মাধ্যমে দিনে ২৪ ঘণ্টা সপ্তাহে ৭ দিন লেনদেন করতে পারবো?
-হ্যাঁ।

০৩. বিকাশ এর সেবাসমূহ ব্যবহার করার জন্য কি আমাকে একাউন্ট খুলতে হবে?
-হ্যাঁ, আপনাকে আপনার মোবাইল ফোনে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলতে হবে।

০৪. কে বিকাশ এ একাউন্ট খুলতে পারবে?
• বাংলাদেশী নাগরিক
• বয়স ১৮ বছর বা তার বেশি
• বৈধ জাতীয় পরিচয়পত্র, ড্রাইভিং লাইসেন্স বা পাসপোর্ট আছে এমন ব্যাক্তি
• বর্তমানে রবি, গ্রামীনফোন, বাংলালিংক, টেলিটক এবং এয়ারটেল গ্রাহকেরা।

০৫. বিকাশ একাউন্ট খুলতে কি কোনো খরচ আছে?
-না, বিকাশ একাউন্ট খোলা সম্পূর্ণ ফ্রি।

০৬. বিকাশ একাউন্ট খুলতে কোথায় যেতে হবে?
– যেকোন বিকাশ এজেন্ট, বিকাশ সেন্টার এবং বিকাশ প্লাসে।

০৭. বিকাশ ব্যবহার করতে কি আমার মোবাইল ফোন থাকা প্রয়োজন?
– হ্যাঁ, আপনার মোবাইল ফোন নম্বরটিই হবে আপনার বিকাশ একাউন্ট নম্বর এবং আপনার নিজের মোবাইল থেকেই আপনি বিকাশ ব্যবহার করবেন।

০৮. বিকাশ একাউন্ট খুলতে কি আমার নতুন সিম কার্ড কিনতে হবে?
– না, বিকাশ একাউন্ট খুলতে আপনার রবি, গ্রামীনফোন, বাংলালিংক, টেলিটক অথবা এয়ারটেল এর বর্তমান সিম কার্ডটিই যথেষ্ট। নতুন সিমের কোন প্রয়োজন নেই।

০৯. বিকাশ ব্যবহার করার জন্য কি আমার ব্যাংক একাউন্ট থাকা আবশ্যক?
– না, বিকাশ ব্যবহার করার জন্য ব্যাংক একাউন্ট থাকার প্রয়োজন নেই।

১০.আমার বিকাশ একাউন্ট পিন ও আমার সিম কার্ড পিন কি একই?
– না, দুইটি নম্বর সম্পূর্ণভাবে ভিন্ন।

১১. প্রতিটি লেনদেন এর পর কি আমি কোন কনফার্মেশন পাবো?
– প্রতিটি লেনদেনের পর আপনি আপনার মোবাইলে একটি তাৎক্ষনিক ফ্ল্যাশ নটিফিকেশন দেখতে পাবেন এবং একটি কনফার্মেশন মেসেজ ও পাবেন।

১২. আমি আমার পিন ভুলে গেলে কি করব?
– বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ এ কল করুন।

১৩. একটি লেনদেন সম্পন্ন করতে কতক্ষণ সময় লাগে?
– সাধারণত এক মিনিটেরও কম সময় লাগে।

১৪. ভুল নম্বরে টাকা পাঠিয়ে দিলে আমি কি করতে পারি?
বিকাশ একাউন্ট থেকে যেকোনো লেনদেনের সময় প্রাপকের (যাকে টাকা পাঠাচ্ছেন) একাউন্ট নাম্বার ও টাকার পরিমাণ নিশ্চিত হয়ে লেনদেন করুন।
বিকাশ একাউন্ট থেকে যেকোনো ভুল লেনদেনের দায়িত্ব গ্রাহকের/প্রেরকের (যিনি টাকা পাঠাচ্ছেন)। কারণ লেনদেন করার সময় গ্রাহক নিজেই প্রাপকের মোবাইল নাম্বার, টাকার পরিমাণ ও পিন (PIN)দেয়ার মাধ্যমে টাকা পাঠান। পিন নাম্বার দেয়ার আগেগ্রাহক তার মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে নিজের দেয়া তথ্য (প্রাপকের মোবাইল নাম্বার ও টাকার পরিমাণ) দেখতে পান যাতে টাকা পাঠানোর আগে প্রেরক তথ্যগুলো যাচাই করতে পারেন এবং কোনো ভুল হয়ে থাকলে টাকা পাঠানোর নির্দেশ বাতিলও করতে পারেন। তাই গ্রাহক এর পরেও ভুল একাউন্টে টাকা পাঠালে, গ্রহণকারীর অনুমতি বা আদালতের নির্দেশনা ছাড়া পাঠানো টাকা প্রেরককে ফেরত দেয়ার এখতিয়ার বিকাশ-এর নেই।

১৫. পরপর ৩ বার ভুল পিন দিলে কি হবে?
– আপনি যদি পরপর ৩ বার ভুল পিন দেন, তাহলে আপনার পিন সাময়িকভাবে ব্লক হয়ে যাবে এবং আপনাকে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ এ যোগাযোগ করে আপনার মালিকানা প্রমান করে পিন পুনরায় চালু করতে হবে।

১৬. যদি লেনদেনের আইডি প্রয়োজন হয় এবং কনফার্মেশন মেসেজ পাওয়া না যায় তাহলে কি করতে হবে?
– বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ এ কল করুন।

১৭. কোনো লেনদেন এর পর যদি আমি কনফার্মেশন নটিফিকেশন না পাই তাহলে কি করব?
– কল করুন ১৬২৪৭ নাম্বারে অথবা আপনার অনুসন্ধানটি উপস্থাপন করুন বিকাশ ফেসবুক পেইজ এ অথবা আমাদের ইমেইল এ [email protected]

১৮. বিকাশ ব্যবহার করার জন্য কোন ধরনের হ্যান্ডসেট প্রয়োজন?
– আপনি যেকোনো হ্যান্ডসেট এর মাধ্যমেই বিকাশ ব্যবহার করতে পারবেন।

১৯. আমি আমার মোবাইল নম্বর পরিবর্তন করলে আমার বিকাশ একাউন্টের কি হবে?
– আপনি আপনার নতুন নম্বর এ একটি নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলে নিতে পারেন।

২০. আমার সিম কার্ড অথবা মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে কি হবে?
– অবিলম্বে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ – এ কল করুন।

২১. আমি আমার একাউন্ট কিভাবে নিরাপদ রাখবো?
– আপনার পিন নম্বরটি অন্য কাউকে জানাবেন না।

২২. ইউএসএসডি-র মাধ্যমে বিকাশ ব্যবহার করতে হলে কোনো খরচ আছে কি?
– না।

২৩. বিকাশ হেল্পলাইন এ কল করার জন্য কোনো চার্জ আছে কি?
– ল্যান্ডফোনে কল করার স্বাভাবিক চার্জ প্রযোজ্য।

২৪. আমি লেনদেনের চার্জ কিভাবে প্রদান করবো?
– আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স থেকেই সার্ভিস চার্জ কেটে নেওয়া হবে, অর্থাৎ এজেন্টকে কোন নগদ টাকা দিতে হবে না।

২৫. আমি কোথায় আমার অভিযোগ জানাতে পারবো?
– বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭
[email protected]
– Fax: +88-02-9894916

২৬. বিকাশ হেল্পলাইনে কখন কল করা যাবে?
– সারাবছর ৩৬৫ দিন, দিন রাত ২৪ ঘণ্টা।

যোগাযোগ

যোগাযোগ
ব্র্যাক ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ এর যেকোনও প্রয়োজনে নিম্নলিখিত ভাবে যোগাযোগ করতে পারেন।

হেল্পলাইন
১৬২৪৭ অথবা ০২-৫৫৬৬৩০০১
(যেকোনো রবি, গ্রামীণফোন, এয়ারটেল, বাংলালিংক, সিটিসেল, টেলিটক এবং টিএন্ডটি নম্বর থেকে যোগাযোগ করা যাবে।)

ইমেইল
[email protected]

কাস্টমার সেন্টার
» ঢাকা মহাখালী বিকাশ সেন্টার – প্যারাগন হাউজ (৩য় তলা), ৫ মহাখালী সি/এ, ঢাকা-১২১২
» ঢাকা বাংলা মোটর বিকাশ সেন্টার – নীচ তলা, ১১৪ বাংলা মোটর মোড়, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, ঢাকা
» ঢাকা যাত্রাবাড়ি বিকাশ সেন্টার – হমান প্লাজা, (২য় তলা), ৪০/১/এ, শহীদ ফারুক সড়ক, যাত্রাবাড়ি, ঢাকা
» গাজীপুর বিকাশ সেন্টার – বাতেন ভবান, হোল্ডিং নং ৪৯৪, দ্বিতীয় তলা, মাতৃভুমি এন্টারপ্রাইজ, বশির সড়ক, জয়দেবপুর, গাজীপুর
» টাঙাইল বিকাশ সেন্টার – হোল্ডিং নং ০১১৭-০০, বাছেদ খান টাওয়ার, ভিক্টোরিয়া রোড
» ময়মনসিংহ বিকাশ সেন্টার – ২১ জুবিলী ঘাট, ২য় তলা, ময়মনসিংহ
» চট্টগ্রাম আগ্রাবাদ বিকাশ সেন্টার – মক্কা মদিনা টাওয়ার, ৭৮, আগ্রাবাদ, (২য় তলা), বা/এ, চট্টগ্রাম
» চট্টগ্রাম মুরাদপুর বিকাশ সেন্টার – ইসলাম টাওয়ার, নীচতলা, ৫৯ সিডিএ এভিনিউ, মুরাদপুর, চট্টগ্রাম
» সিলেট বিকাশ সেন্টার – জে আর টাওয়ার, ২৩ আবাস, ২য় তলা, জেল রোড, সিলেট, ৩১০০
» খুলনা বিকাশ সেন্টার – ইসরাক প্লাজা, প্লটঃ ৪৩-৪৪, ২য় তলা,মজিদ সরণী, শিব বাড়ী মোড়,খুলনা
» বরিশাল বিকাশ সেন্টার – রহমত মঞ্জিল কমপ্লেক্স, ২য় তলা, গোরাচাঁদ দাস রোড, বটতলা, বরিশাল
» রংপুর বিকাশ সেন্টার – এ জেড টাওয়ার, ৩৪-৩৫, ২য় তলা, ষ্টেশন রোড, রংপুর সদর, রংপুর
» বগুড়া বিকাশ সেন্টার – ৩২৪, ঝাউতলা, বড়গোলা, কাজী নজরুল ইসলাম রোড, বগুড়া সদর, বগুড়া
» রাজশাহী বিকাশ সেন্টার – ৬১, চাঁদ সন্স শপিং কমপ্লেক্স, ২য় তলা, বোয়ালিয়া, রাজশাহী
» যশোর বিকাশ সেন্টার – হাসান ম্যানশন, (১ম তলা), এম এম আলি রোড, মাইক পট্টি, যশোর
» কুমিল্লা বিকাশ সেন্টার – রায় কমপ্লেক্স, (নীচ তলা), ১১৫/২, নজরুল এভিনিউ, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা
» ফরিদপুর বিকাশ সেন্টার – হোল্ডিং নং: ৪৬/খ, ফার্স্ট ফ্লোর, থানা রোড, ঝিলটুলি, ফরিদপুর।

বিকাশ সেন্টার এর কার্যক্রম সময়সূচী
» বিকাশ সেন্টার সময়সূচীঃ সপ্তাহে সাত দিন, সকাল ০৯.০০টা থেকে বিকাল ৭.০০টা (সরকারী ছুটির দিন ব্যতীত)।
» বিকাশ প্লাস সময়সূচীঃ সপ্তাহে ছয় দিন (শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার, সকাল ১০.০০টা থেকে বিকাল ৬.০০টা (সরকারী ছুটির দিন ব্যতীত)।

ফ্যাক্স
০০৮৮-০২-৯৮৯৪৯১৬

করপোরেট ঠিকানা
বীর শ্রেষ্ঠ শহীদ জাহাঙ্গীর গেট ৫৪৬, ঢাকা ক্যান্টন্মেন্ট, ঢাকা-১২০৬

সূত্রঃ bKash

Leave a Reply