1. bankingnewsbd@gmail.com : ব্যাংকিং নিউজ : ব্যাংকিং নিউজ
  2. mosharafnbl@yahoo.com : মোশারফ হোসেন : মোশারফ হোসেন
  3. msakanda@yahoo.com : ইবনে নুর : ইবনে নুর
  4. shafiqueshams@gmail.com : Shamsuddin Akanda : Shamsuddin Akanda
  5. surjoopathik@ymail.com : শরিফুল ইসলাম : শরিফুল ইসলাম
  6. tasniapopy@gmail.com : তাসনিয়া তাবাসসুম : তাসনিয়া তাবাসসুম



হোটেল কর্মচারীদের বেতন-ভাতার প্যাকেজ ঋণের নীতিমালা

  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১

করোনা সংক্রমণ রোধে বিধিনিষেধের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত নিম্ন আয়ের মানুষের সহায়তায় ৩ হাজার ২০০ কোটি টাকার ৫টি নতুন প্রণোদনা প্যাকেজের ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মধ্যে পর্যটন খাতের হোটেল-মোটেল, থিম পার্কের জন্য কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য ব্যাংকের মাধ্যমে ৪ শতাংশ সুদে ওয়ার্কিং ক্যাপিটাল ঋণ সহায়তার জন্য এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। নতুন প্রণোদনা প্যাকেজের নীতিমালা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই, ২০২১) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার (বিআরপিডি সার্কুলার নং- ১৬) জারি করে বাংলাদেশে কার্যরত সকল তফসিলি ব্যাংকসমূহের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী (সিইও) কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

উক্ত সার্কুলারে বলা হয়েছে, এ প্যাকেজের আওতায় বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো তাদের নিজস্ব তহবিল থেকে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হোটেল, মোটেল, থিম পার্কে ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে এক বছর মেয়াদে ওয়ার্কিং ক্যাপিটাল বাবদ ঋণ দেবে। গ্রাহক পর্যায়ে সুদহার হবে সর্বোচ্চ ৮ শতাংশ। তবে সুদ বা মুনাফার অর্ধেক অর্থাৎ ৪ (চার) শতাংশ ঋণগ্রহীতা প্রতিষ্ঠান পরিশোধ করবে আর অবশিষ্ট ৪ শতাংশ সরকার ভর্তুকি হিসেবে দেবে। এ প্যাকেজের আওতায় সহজ শর্তে ঋণ সুবিধা দেওয়ার ক্ষেত্রে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। প্যাকেজের আওতায় সহজ শর্তে ঋণ/ বিনিয়োগ সুবিধা প্রদানের ক্ষেত্রে নিম্নবর্ণিত নির্দেশনাসমূহ অনুসরণীয় হবেঃ

ঋণ/ বিনিয়োগ ব্যবস্থাপনাঃ
ক) এ প্যাকেজের আওতায় ঋণ/ বিনিয়োগ অনুমোদন ও বিতরণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিদ্যমান নীতিমালাসহ ব্যাংকের নিজস্ব ঋণ/ বিনিয়োগ নীতিমালা অনুসরণীয় হবে;
খ) সরকার কর্তৃক ভর্তুকি বাবদ প্রদত্ত সুদ/ মুনাফার অংশ বাংলাদেশ ব্যাংক এর প্রধান কার্যালয় এর একাউন্টস এন্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্ট এর মাধ্যমে প্রদান করা হবে। উক্ত ভর্তুকি বাবদ সুদ-মুনাফার পুনর্ভরণ গ্রহণ সংক্রান্ত কার্যক্রম সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়/ প্রিন্সিপাল অফিস কর্তৃক সম্পাদিত হতে হবে।

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ (A Platform for Bankers Community) প্রিয় পাঠকঃ ব্যাংকিং বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ লাইক দিন এবং ফেসবুক গ্রুপ ব্যাংকিং ফর অল এ জয়েন করে আমাদের সাথেই থাকুন।

ব্যাংকওয়ারী ঋণ/ বিনিয়োগের সীমাঃ
এ প্যাকেজের আওতায় ঋণ/ বিনিয়োগ প্রদানের লক্ষ্যে প্রতিটি ব্যাংক তাদের নিজস্ব সীমা নির্ধারণপূর্বক উক্ত সীমার উপর ভিত্তি করে ঋণ/ বিনিয়োগ কার্যক্রম আরম্ভ করবে। ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত ঋণ/ বিনিয়োগের সীমা আগামী ২৫ জুলাই ২০২১ তারিখের মধ্যে ‘সংযোজনী-ক’ অনুযায়ী ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ বরাবর প্রেরণ করতে হবে (সফটকপিসহ ইমেইল salauddin.tapadar@bb.org.bd এবং mahmudur.reza@bb.org.bd)। ব্যাংকসমূহ হতে সীমা সংক্রান্ত তথ্য প্রাপ্তির পর চাহিদা ও তহবিলের পর্যাপ্ততার উপর ভিত্তি করে ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ কর্তৃক চূড়ান্ত সীমা নির্ধারণ করে ব্যাংকসমূহকে অবহিত করা হবে এবং সে মোতাবেক ব্যাংক ঋণ কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

ঋণ/ বিনিয়োগের প্রকৃতি ও মেয়াদঃ
এ প্যাকেজের আওতায় প্রদত্ত ঋণ/ বিনিয়োগ Working Capital under Stimulus Package (Tourism Sector) নামে অভিহিত হবে এবং সিএল-২ বিবরণীতে রিপোর্ট করতে হবে। প্রতিটি ঋণ/ বিনিয়োগের মেয়াদ হবে সর্বোচ্চ ১(এক) বছর। ঋণ/ বিনিয়োগ গ্রহীতা প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক লেনদেন সন্তোষজনক হলে ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে ঋণ/ বিনিয়োগ সুবিধাটি নবায়ন করা যাবে। তবে আলোচ্য প্যাকেজের আওতায় প্রদত্ত ঋণ/ বিনিয়োগের উপর সুদ/ মুনাফা বাবদ ভর্তুকি ১(এক) বছরের জন্য প্রাপ্য হবে।

সুদ/ মুনাফার হারঃ
এ প্যাকেজের আওতায় সুদ/ মুনাফার হার হবে সর্বোচ্চ ৮(আট) শতাংশ। প্রদত্ত ঋণ/ বিনিয়োগের উপর আরোপিত সুদ/ মুনাফার অর্ধেক অর্থাৎ ৪(চার) শতাংশ ঋণ/ বিনিয়োগ গ্রহীতা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক পরিশোধ করতে হবে এবং অবশিষ্ট ৪(চার) শতাংশ সরকার ভর্তুকি হিসেবে সংশ্লিষ্ট ব্যাংককে প্রদান করবে।

ঋণ/ বিনিয়োগ ও ভর্তুকি প্রাপ্যতাঃ
ক) যে সকল হোটেল/ মোটেল/ থিম পার্ক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহ সরকার এবং বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজসমূহ হতে ইতঃপূর্বে কোন সুবিধা গ্রহণ করেনি সে সকল হোটেল/ মোটেল/ থিম পার্ক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহ তাদের কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধের লক্ষ্যে এ প্যাকেজের আওতায় ঋণ/ বিনিয়োগ সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে;
খ) ঋণ/ বিনিয়োগ গ্রহণে ইচ্ছুক আবেদনকারী যে ব্যাংকের মাধ্যমে বর্তমানে লেনদেন করে থাকে সে ব্যাংকের মাধ্যমে এ প্যাকেজের আওতায় ঋণ/ বিনিয়োগ সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে। যে সকল প্রতিষ্ঠান একাধিক ব্যাংকের মাধ্যমে লেনদেন করে থাকে সে সকল প্রতিষ্ঠান লেনদেনকৃত ব্যাংকসমূহের যেকোন একটি ব্যাংকের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবে। তবে এক্ষেত্রে অন্য কোন ব্যাংকের মাধ্যমে ঋণ/ বিনিয়োগ সুবিধা গ্রহণ করেনি মর্মে প্রত্যয়নপত্র দাখিল করতে হবে;
গ) এ প্যাকেজের আওতায় বিতরণকৃত ঋণ/ বিনিয়োগের উপর ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে (মার্চ, জুন, সেপ্টেম্বর ও ডিসেম্বর) আরোপিত সুদ/ মুনাফার যে অংশ ঋণগ্রহীতা কর্তৃক প্রদেয় (৪ শতাংশ) সে অংশ পরবর্তী মাসের ১০ তারিখের মধ্যে পরিশোধিত হলে সরকারের নিকট হতে সুদ/ মুনাফার বিপরীতে অবশিষ্ট ৪(চার) শতাংশ ভর্তুকি হিসেবে ব্যাংক প্রাপ্য হবে। ঋণ/ বিনিয়োগ গ্রহীতা সময়মতো সুদ/ মুনাফা পরিশোধ না করার কারণে ব্যাংক কর্তৃক সরকারি ভর্তুকি পাওয়া না গেলে উক্ত ৪(চার) শতাংশ সুদ/ মুনাফা ঋণগ্রহীতাকে বহন করতে হবে।

ঋণ/ বিনিয়োগের বিপরীতে ভর্তুকি বাবদ সুদ/ মুনাফার অর্থ পুনর্ভরণ প্রক্রিয়াঃ
ক) ব্যাংক প্রতি ত্রৈমাসিক (মার্চ/ জুন/ সেপ্টেম্বর/ ডিসেম্বর) শেষে পরবর্তী মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে উক্ত ত্রৈমাসিক পর্যন্ত প্রদত্ত ঋণ/ বিনিয়োগের বিপরীতে ভর্তুকি প্রাপ্তির লক্ষ্যে ‘সংযোজনী-খ’ অনুযায়ী বাংলাদেশ ব্যাংকের একাউন্টস এন্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্ট বরাবর আবেদন করবে। আবেদনপত্রের সাথে ব্যাংক কর্তৃক পর্যটন খাতের হোটেল/ মোটেল/ থিম পার্ক হিসেবে ব্যবসা পরিচালনার উদ্দেশ্যে গৃহীত ট্রেড লাইসেন্স/ সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরের অনুমোদনের কপি, এ প্যাকেজের আওতায় গৃহীত ঋণ/ বিনিয়োগের মাধ্যমে যে সকল কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়েছে তাদের তালিকা এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের মঞ্জুরীপত্র দাখিল করতে হবে;
খ) একাউন্টস এন্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্ট এরূপ আবেদন প্রাপ্তির পর তা দ্রুততম সময়ের মধ্যে যাচাইপূর্বক ভর্তুকি বাবদ প্রাপ্য সুদ/ মুনাফার অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে রক্ষিত সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের চলতি হিসাবে জমাপূর্বক ব্যাংক-কে অবহিত করবে।

তথ্য প্রেরণঃ
এ প্যাকেজের আওতায় ব্যাংক কর্তৃক প্রদত্ত ঋণ/ বিনিয়োগ এর তথ্য ‘সংযোজনী-গ’ অনুযায়ী পাক্ষিক (প্রতি মাসের ১৫ তারিখ এবং শেষ তারিখ) ভিত্তিতে পরবর্তী ৩(তিন) কর্মদিবসের মধ্যে ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ-এ প্রেরণ করতে হবে।

পুনঃঅর্থায়ন সুবিধাঃ
এ প্যাকেজের আওতায় ঋণ/ বিনিয়োগ প্রদানের নিমিত্ত ব্যাংকের তারল্য সরবরাহ নিশ্চিতকল্পে বিতরণকৃত ঋণ/ বিনিয়োগের ৫০(পঞ্চাশ) শতাংশ অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের নিকট হতে পুনঃঅর্থায়ন সুবিধা গ্রহণ করা যাবে। উক্ত পুনঃঅর্থায়ন সুবিধার বিপরীতে সুদ/ মুনাফার হার হবে ৪(চার) শতাংশ এবং মেয়াদ হবে পুনঃঅর্থায়ন সুবিধা গ্রহণের তারিখ হতে ১(এক) বছর। এ প্যাকেজের আওতায় পুনঃঅর্থায়ন গ্রহণে ইচ্ছুক ব্যাংক কর্তৃক ডিপার্টমেন্ট অব অফসাইট সুপারভিশন (ডিওএস) এর সাথে একটি অংশগ্রহণমূলক চুক্তি স্বাক্ষর করতে হবে। এছাড়াও পরিচালনাগত যাবতীয় কার্যক্রম ডিওএস কর্তৃক সম্পাদিত হবে এবং এ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নির্দেশনা ডিওএস কর্তৃক প্রদান করা হবে।

এছাড়া উক্ত সার্কুলারে বলা হয়েছে, ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হলো। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

আরও দেখুন:
◾ ঈদের আগে ব্যাংকে লেনদেন সময়সূচী
◾ আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজে শিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহ অন্তর্ভুক্তকরণ
◾ ডিজিটাল ডিভাইস কিনতে ঋণ দেবে ব্যাংক
◾ সিএমএস খাতে ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কীমে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের চুক্তি
◾ ব্যাংকের সিএসআরের ত্রাণ বিতরণ করবে সেনাবাহিনী

Leave a Reply



লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যকে দেখার সুযোগ করে দিন:

এই বিভাগের অন্যান্য লেখা





ইমেইল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের নতুন নতুন পোষ্ট গুলো ই-মেইল এর মাধ্যমে পেতে রেজিষ্ট্রেশন করুন।




আর্কাইভ



বিভাগ সমূহ