ব্যাংকার

শাখা ব্যবস্থাপকদের প্রতি অনুরোধ

সোশ্যাল মিডিয়ায় সম্মানিত ব্যাংকারগণের মধ্যে যারা বিভিন্ন শাখায় ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করছেন তাদের প্রতি কয়েকটি নিবেদন-

১৷ দেশের এই ক্রান্তিকালে ব্যাংকারদের তাদের পেশার খাতিরে সার্ভিস দিতে হচ্ছে৷ এইটা জরুরী সেবা হিসেবে গ্রহন করুন ও গ্রাহকবৃন্দের কাছে সেভাবেই উপস্থাপন করুন৷ দয়া করে স্বাভাবিক সময়ের মত কাজের পরিধি বাড়িয়ে সহকর্মীবৃন্দের মনোকষ্টের কারন হওয়া থেকে দয়া করে বিরত থাকুন৷

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ (Banking News Bangladesh. A Platform for Bankers Community.) প্রিয় পাঠকঃ ব্যাংকিং বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ লাইক দিয়ে আমাদের সাথেই থাকুন।

২৷ আপনার শাখায় সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং মেনে চলার ব্যাপারে আপনাকেই অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে৷ আপনি সচেষ্ট হোন৷ নিজের ও অন্যদের কথাটাও ভাবুন দয়া করে৷

৩৷ সুরক্ষা সামগ্রী হিসেবে পিপিই, গগলস না দিতে পারেন; কমপক্ষে ভাল মানের সার্জিকাল মাস্ক ও পর্যাপ্ত হ্যান্ড রাব এর ব্যবস্থা করুন৷ এসব ব্যাপারে কৃপণতা করে দয়া করে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়াবেন না৷ আপনার শাখার এ থেকে খুব সামান্যই সঞ্চয় বাড়বে৷ কিন্তু আপনার সাথে নিত্যদিন কাজ করে যাওয়া আপনার সহকর্মীবৃন্দের জীবন ঝুঁকির মধ্যে পড়ছে৷

ব্যাংক, ব্যাংকার, ব্যাংকিং, অর্থনীতি ও ফাইন্যান্স বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবর, প্রতিবেদন, বিশেষ কলাম, বিনিয়োগ/ লোন, ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, ফিনটেক, ব্যাংকের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারগুলোর আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ 'ব্যাংকিং নিউজ', ফেসবুক গ্রুপ 'ব্যাংকিং ইনফরমেশন', 'লিংকডইন', 'টেলিগ্রাম চ্যানেল', 'ইন্সটাগ্রাম', 'টুইটার', 'ইউটিউব', 'হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেল' এবং 'গুগল নিউজ'-এ যুক্ত হয়ে সাথে থাকুন।

৪৷ নিজের চিরাচরিত বদ অভ্যাসের কারনে এই কঠিন সময়েও ব্যাংকিং সময় শেষেও নিজের চেয়ার আঁকড়িয়ে বসে থেকে সহকর্মীদের কষ্ট বাড়াবেন না৷ যথাসময়ে বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করতে সচেষ্ট হোন দয়া করে৷

৫৷ কেউ যদি তার উপর অর্পিত দায়িত্ব সময়মত (অফিস সময় শেষে) গুছিয়ে ব্যাংক থেকে বের হতে চায় তাহলে দয়া করে কৈফিয়ত তলব কিংবা অযাচিত কথা বলা থেকে বিরত থাকুন৷ এত আগেই বের হবেন? এমন কথা বলার আগে বর্তমান পরিস্থিতির কথা একবার ভাববেন কি?

৬৷ সাধারণ ছুটির সময়ে অথবা ছুটি শেষ হয়ে গেলেও শাখায় রোস্টারিং করে দায়িত্ব পালন করার ব্যবস্থা করুন৷ আর দয়া করে ভাববেন না যে, সাধারণ ছুটি শেষ মানে রোস্টারিং শেষ৷ বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলার আবার পড়ুন দয়া করে৷ রোস্টারিং এর সাথে সাধারণ ছুটির কোন সম্পর্ক নেই৷ রোস্টারিং এর প্রয়োজনীয়তা দেশের এই সঙ্কটময় অবস্থার জন্য৷

৭৷ আপনার শাখায় পর্যাপ্ত সহকর্মী থাকা সত্ত্বেও একজন বা দুজন মহিলা সহকর্মীকে বাধ্যতামূলকভাবে শাখায় দায়িত্ব পালন করানো থেকে বিরত থাকুন৷ বাইরে বের হলে পুরুষদেরই এখন অনেক সমস্যায় পড়তে হচ্ছে৷ সেখানে একজন বা দুজন মহিলা সহকর্মীকে আপনি সম্ভব হলে ছাড় দিতেই পারেন?

৮৷ স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে সবাইকে যেসময় অফিসে আসতে হত; চলমান পরিস্থিতিতে দুয়েক মিনিট এদিক ওদিক হলে দয়া করে তাদের তিরস্কার করবেন না৷ একজন অভিভাবক হিসেবে তার আসতে কোন সমস্যা হয়েছে কিনা জানবেন কি?

৯৷ একজন অভিভাবক হিসেবে সকল সহকর্মীর নিয়মিত খোঁজ-খবর নিন দয়া করে৷ কেউ অসুস্থ হলে তাকে বাসায় থাকতে দিন৷ নিজে থেকেই উদ্যোগী হয়ে ছুটি দিয়ে দিন৷ আপনার এই সহকর্মীই তার সুস্থতার সময়ে আপনার শাখার লভ্যাংশ এনে দিয়েছে৷

১০৷ আপনাদের কারও আরো পয়েন্ট জানা থাকলে মন্তব্য করে জানাতে পারেন৷

লেখকঃ এস এম আবু নাসের
ফার্স্ট এক্সিকিউটিভ অফিসার
যমুনা ব্যাংক লিমিটেড

প্রিয় পাঠকঃ ব্যাংক, ব্যাংকার ও ব্যাংকিং বিষয়ক চলমান খবর বা সমসাময়িক বিষয়ে আপনার লেখা ও মতামত ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ প্রকাশ করতে আমাদেরকে ই-মেইল করুন- bankingnewsbd@gmail.com আমরা আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে তা প্রকাশ করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

রিলেটেড লেখা

Back to top button