ওভারডিউ ক্লায়েন্ট

0
655

কিছু কিছু ক্লায়েন্ট
ব্যাংকে করেন ইন
হাসি ভরা মুখে
ইনভেস্টমেন্ট নিতে চান
ভালবাসা দিতে চান
যা আছে বুকে।

আজ খাওয়ান বিরিয়ানি
কাল পোলাও, ভাত
মোর পুকুরের ইলিশটা
খেয়ে দেখুন কি স্বাদ!

বাজার থেকে লিচু কিনে
বলেন বাড়ির লিচু
না খেলে বলেন তিনি
খেলেন না স্যার কিছু?

আম খাওয়ান জাম খাওয়ান
খাওয়ান ভাঙ্গি তরমুজ
মাছ মাংস খাওয়াইয়ে
করতে চান বেহুঁশ।

টাকা নয় পয়সা নয়
কিনতে চান খাবারে
তেল সাবান প্রসাধনী
কত্তো কিছু, বাবারে!

শার্ট দিবেন টাই দিবেন
সেন্ট দিবেন মিষ্টি
কত কিছু লিখব আর
বাড়বে শুধু লিস্টি।

ইনভেস্টমেন্ট নেবার পরে
ব্যাংকে আর ভেরেন না
শতবার ফোন করলেও
ফোনটা তিনি ধরেন না।

কি যে বিপদ! বাসায় গিয়েও
পাই না তার খোঁজ
দোকান – পাটে, প্রতিষ্ঠানে
বসেন না আর রোজ।

ফান্ড ডাইভার্ট করে তিনি
দিলেন মেয়ের বিয়ে
কত্তো কিছু দিতে হয়
মেয়েকে সাজিয়ে!

জমি কিনলেন মাঠকে মাঠ
বিঘা দশ বারো
কত্তো কিছু করলেন তিনি
বলবো কি তা আরো?

এতকিছু করার পরে
কেমনে দিবেন টাকা?
ওভারডিউ- ক্লাসিফাইড
বড়ই ঝক্কি – ঝাঁকা!

তার পিছনে ঘুরে ঘুরে
জুতার তলা ক্ষয়
আজ দিব না কালকে দিব
কত্তো কথা কয়!

প্রতিশ্রুতি শতবার দিয়ে
ভাঙেন শতবার
ও আল্লাহ্! এর পিছনে
ঘুরবো কতবার?

আল্লাহ্! এদের জ্ঞান দাও প্রভু
এদের ক্ষমা করো
ফান্ড ডাইভার্ট যেন তারা
কেউ করে না আরো।

ব্যবসা তাদের ভাল করে দাও
মনটাও দাও ভালো
রাতের আঁধার দুর করে দাও
দেখাও ভোরের আলো।

লেখকঃ বেলাল হোসেন ফকির, কবি ও ব্যাংকার

Leave a Reply