ইসলামী ব্যাংক পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প (RDS) এর উদ্দেশ্য-লক্ষ্য ও বৈশিষ্ট্য সমূহ

0
2139

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশঃ বাংলাদেশে দারিদ্র্য সীমার নীচে বসবাসকারী মানুষ ৪০%। মোট দারিদ্র্যের মধ্যে ১৮% নিরক্ষরতা, স্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ঝুঁকি ও গ্রামীণ-শহুরে অর্থনৈতিক বৈষম্যের শিকার। দেশের অর্থনীতি মূলত গ্রামাঞ্চলে বসবাসকারী বৃহৎ সংখ্যাগরিষ্ঠের কৃষিপণ্যের উৎপাদনের সাথে সংশ্লিষ্ট। কৃষি খাত কর্মসংস্থানের জন্য আরও সুযোগ সৃষ্টি করতে পারছে না ফলে শহুরে এলাকায় গ্রামীণ জনসংখ্যার প্রবাহ ছড়িয়ে পড়ছে।

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ১৯৮৩ সালের ৩০ মার্চ আত্মপ্রকাশ করে। এ ব্যাংক প্রতিষ্ঠার মূল লক্ষ্য ছিল গ্রামের সাধারণ মানুষসহ সব শ্রেণীর লোকদেরকে অর্থনৈতিক সহযোগিতা প্রদানের মাধ্যমে স্বাবলম্বী করে একটি শোষণমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা করা। ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল সুষম অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি প্রতিষ্ঠার প্রধান উদ্দেশ্য নিয়ে যার মাধ্যমে গ্রামীণ-শহুরে বৈষম্য হ্রাস এবং আয়ের ন্যায়সঙ্গত বন্টন নিশ্চিত করা হয়েছিল।

এরই ধারাবাহিকতায়, দারিদ্র্য নিরসনের লক্ষ্যে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান সৃষ্টির সুযোগ সৃষ্টি এবং কৃষি ও গ্রামীণ ক্ষেত্রের বিনিয়োগ চাহিদা পূরণের জন্য ‘Rural Development Scheme’ (পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প) নামে একটি প্রকল্প চালু করা হয়েছে।

১৯৯৫ সালের ৩১ জুলাই তৎকালীন মহামান্য রাষ্ট্রপতি আব্দুর রহমান বিশ্বাস ইসলামী ব্যাংকের পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প (RDS) উদ্বোধন করেন। (RDS) ইসলামী ব্যাংকের একটি ব্যাপক ও চ্যালেঞ্জিং প্রকল্প। বাংলাদেশের সকল গ্রাম যখন এনজিওদের দাপটে ও পদভারে ভারাক্রান্ত ঠিক সেই সময় ইসলামী ব্যাংক RDS কর্মসূচি নিয়ে দুস্থ, অসহায় ও মানবতার জন্য এগিয়ে আসে।

➡ Objectives of IBBL RDS (ইসলামী ব্যাংক RDS এর উদ্দেশ্য সমূহ)
নিম্নে পল্লী উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্দেশ্য সমূহ তুলে ধরা হলো-
১. গ্রামাঞ্চলে কৃষি, অন্যান্য চাষাবাদ কার্যক্রমের জন্য বিনিয়োগ সুবিধা প্রসারিত করা।
২. গ্রামীণ জনগণের বিশেষ করে গ্রামীণ বেকার যুবক এবং গ্রামীণ দরিদ্রদের আত্ন-কর্মসংস্থান এবং আয়ের উৎপাদক কার্যক্রমের জন্য অর্থ প্রদান করা।
৩. সমন্বিত গ্রামীণ উন্নয়ন পদ্ধতির মাধ্যমে গ্রামীণ দারিদ্র্য দূর করা।
৪. গ্রামীণ আবাসনের জন্য বিনিয়োগ সুবিধা প্রসারিত করা।
৫. নিপীড়িত মানুষের শিক্ষা সেবা এবং নিরাপদ পানী, স্যানিটেশন ও মেডিকেয়ার সুবিধা প্রদান করা।
৬. বিনিয়োগ কার্যক্রমে মহিলাদের অগ্রাধিকার দেয়া এবং তাদেরকে স্বাবলম্বী হতে সহায়তা করা ও
৭. ধর্মীয়, নৈতিক ও নাগরিক বিষয়ে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সদস্যদের মধ্যে যথার্থ পারিবারিক বন্ধন ও সামাজিক দায়িত্ববোধ সৃষ্টি করা৷

➡ Goal of IBBL RDS (ইসলামী ব্যাংক RDS এর লক্ষ্য সমূহ)
নিম্নে ইসলামী ব্যাংক RDS এর লক্ষ্যসমূহ তুলে ধরা হলো-
পল্লী অঞ্চলের দরিদ্র, ভূমিহীন, শ্রমজীবী ও গরিব চাষিদের সংঘবদ্ধ করে তাদের মধ্যে-
ক) পুঁজি বিনিয়োগ
খ) নৈতিক, ধর্মীয় ও নাগরিক সচেতনতা বৃদ্ধি বিষয়ে প্রশিক্ষণ এবং
গ) বিনিয়োগ সংশ্লিষ্ট কাজে প্রযুক্তি জ্ঞান ও দক্ষতা লাভে সহায়তা বা উৎসাহিত করা৷

➡ Features of IBBL RDS (ইসলামী ব্যাংক RDS এর বৈশিষ্ট্য সমূহ)
নিম্নে ইসলামী ব্যাংক RDS এর বৈশিষ্ট্য সমূহ তুলে ধরা হলো-
১. ইসলামী ব্যাংক RDS এর টার্গেট গ্রুপ হলো গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠী।
২. ইসলামী ব্যাংক RDS গরীব মহিলা ও পুরুষদের জন্য ব্যাংকিং সুবিধা প্রদান করে।
৩. ইসলামী ব্যাংক RDS বেকার জনশক্তির কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে।
৪. ইসলামী ব্যাংক RDS বিনিয়োগ প্রদানের পূর্বে ৫ জনকে নিয়ে গ্রুপ গঠন করে, মহিলাদের নিয়ে আলাদা গ্রুপ গঠন, প্রতি গ্রুপের জন্য একজন সভাপতি/সম্পাদক নিযুক্ত করে গ্রুপ পরিচালনা করে থাকে।
৫. মহিলা ও পুরুষদের জন্য পৃথক পৃথক কেন্দ্র।
৬. বয়স সীমা ১৮ থেকে ৫০ বছর।
৭. সদস্যগণকে সমমনা ও একই গ্রামের বাসিন্দা হতে হবে।
৮. গ্রুপ লিডার এবং ডেপুটি লিডার গ্রুপের সদস্যদের দ্বারা নির্বাচিত হবেন, দায়িত্বকাল এক বছর।
৯. প্রতি সপ্তাহে একটি করে সাপ্তাহিক সভা হয়ে থাকে।
১০. বাধ্যতামূলক সাপ্তাহিক সঞ্চয় ও কেন্দ্র তহবিল রয়েছে।
১১. আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে গ্রুপ সদস্যদের সচেতনতা ও দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণের আয়োজন করে।
১২. জামানতবিহীন ঋণ প্রদান করে থাকে।
১৩. মহিলা ও পুরুষদের জন্য সর্বদা পৃথক কেন্দ্র ব্যবস্থাপনা।
১৪. শৃঙ্খলা ও দলগত একতার ভিত্তিতে কেন্দ্র পরিচালনা করা হয়।
১৫. ইসলামী ব্যাংক RDS এর বিনিয়োগ সুবিধা মহাজনদের শোষণ থেকে গরীব মানুষকে রক্ষা করে।

➡ Target Group of IBBL RDS (ইসলামী ব্যাংক RDS এর টার্গেট গ্রুপ)
নিম্নে ইসলামী ব্যাংক RDS এর টার্গেট গ্রুপ সম্পর্কে আলোকপাত করা হলো-
১. সর্বাধিক ০.৫০ একর জমির অধিগ্রহণকারী কৃষক।
২. জমির মালিকদের সম্মতিতে ভাগচাষী।
৩. নির্বাচিত গ্রামগুলিতে স্থায়ীভাবে বসবাসকারী ব্যক্তি/কৃষক।
৪. পরিত্যক্ত পুকুর পুনরায় খনন এবং মাছ চাষের জন্য বিনিয়োগের যোগ্য হতে হবে।
৫. দরিদ্র মহিলাদের এবং দুর্দশাগ্রস্ত মানুষদের জন্য দুধের গরু/পাখি/হাঁস-মুরগী/ছাগল ইত্যাদি এবং তাদের সম্পূরক আয় বৃদ্ধির জন্য অন্যান্য খামার কার্যক্রমের জন্য বিনিয়োগ প্রদান করা।
৬. অন্যান্য ব্যাংক/প্রতিষ্ঠানের সাথে দায়বদ্ধ ব্যক্তিরা এই প্রকল্পের অধীনে বিনিয়োগের যোগ্য বলে বিবেচিত হবে না।

➡ Programs of IBBL RDS (ইসলামী ব্যাংক RDS এর কর্মসূচিসমূহ)
নিম্নে পল্লী উন্নয়ন প্রকল্পের কর্মসূচিসমূহ তুলে ধরা হলো-

ক) সংগঠনঃ
১) গ্রাম নির্বাচন
২) সদস্য নির্বাচন
৩) ৫ জন সদস্য নিয়ে দল গঠন
৪) ২ থেকে ৬ টি দল নিয়ে কেন্দ্র গঠন এবং
৫) বিশেষ দল ও কেন্দ্র গঠন৷

খ) সাপ্তাহিক কেন্দ্র সভার মাধ্যমেঃ
১) বিনিয়োগ গ্রহীতা বাছাই ও বিনিয়োগ দান
২) বাধ্যতামূলক কিস্তি
৩) কেন্দ্র ফান্ড ও সাপ্তাহিক সঞ্চয় আদায়
৪) সদস্যদের সমস্যা নিয়ে আলোচনা ও সমাধানের সম্ভাব্য উপায় চিহ্নিতকরণ এবং
৫) বিষয়ভিত্তিক আলোচনার মাধ্যমে সদস্যদেরকে ধর্মীয়, নৈতিক ও নাগরিক দায়িত্ব পালন বিষয়ক জ্ঞান পরিবেশন এবং তা বাস্তবায়ন উপযোগী নির্দেশনা দান৷

➡ ইসলামী ব্যাংক RDS এর পালনীয় বিভিন্ন সিদ্ধান্ত সমূহ
নিম্নে প্রকল্পের পালনীয় বিভিন্ন সিদ্ধান্ত সমূহ তুলে ধরা হল
১) সকল অবস্থায় মহান সৃষ্টিকর্তার সাহায্য চাইবো, সদা সত্য কথা বলবো ও সৎ পথে চলবো৷
২) আইন মেনে চলবো ও বেআইনি কাজে শরিক হবো না৷
৩) পরিশ্রম করবো, সংসারে উন্নতি আনবো ও পরের উপর ভরসা করবো না এবং নিজের পায়ে দাঁড়াবো৷
৪) বাড়ির পাশে ফাঁকা জায়গা রাখবো না, শাক-সবজি ও গাছ লাগাবো এবং পরিবারের আয় বাড়াবো৷
৫) নিরক্ষর থাকবো না ও সন্তানদের নিরক্ষর রাখবো না৷
৬) অন্যের প্রতি দরদি হবো, দরদি সমাজ গড়বো ও ভালো কাজের প্রতিযোগিতা করবো৷
৭) স্বাস্থ্য সুখের মূল, স্বাস্থ্যের যত্ন নিব, পুষ্টিকর খাদ্য খাবো, ঘর-বাড়ি, কাপড়-চোপড় পরিষ্কার রাখবো ও বিশুদ্ধ পানি পান করবো৷
৮) যৌতুক দিবো না ও যৌতুক নিবো না৷
৯) ওয়াদা পালন করবো ও আমানতের খেয়ানত করবো না৷
১০) সফলতার জন্য একসাথে থাকব, শৃঙ্খলা মানবো ও বিপদে সবুর করবো৷

➡ Modes of Investment (বিনিয়োগ পদ্ধতি)
এই স্কিমের অধীনে বিনিয়োগের জন্য কোনও নিরাপত্তা প্রয়োজন হয় না। সমাজে জনগণের সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া এবং দুর্বল অংশের উন্নয়নের জন্য ব্যাংকের সামাজিক কল্যাণমূলক উদ্দেশ্য বিবেচনা করে পুরো প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে। যাইহোক, গ্রুপের শৃঙ্খলা কঠোরভাবে অনুসরণ করা উচিত যাতে শুধুমাত্র সঠিক ব্যক্তি নির্বাচিত হয় এবং গ্রুপের সদস্য হিসাবে অন্তর্ভুক্ত হয়।এছাড়া গ্রুপের প্রত্যেক সদস্য একই গ্রুপের অন্যান্য সদস্যদের জন্য ব্যক্তিগত গ্যারান্টি দেয় এবং সদস্যদের পৃথক এবং যৌথভাবে বিনিয়োগের অর্থ প্রদানের জন্য দায়ী।

➡ ইসলামী ব্যাংক RDS এর পারফরমেন্স

                                                 চিত্রঃ মিলিয়ন টাকায়

ক্রমিক

পারফরমেন্স এরিয়া

সংখ্যা/পরিমাণ

এরিয়া কভারেজ
ইসলামী ব্যাংক শাখার সংখ্যা

২৫২

গ্রাম সংখ্যা

১৯,৪১৮

জেলার সংখ্যা

৬৪

কেন্দ্র সংখ্যা

২৮,৯৬০

গ্রুপ সংখ্যা

,৮০,৪০৩

সদস্য সংখ্যা

,৯৯,১৪০

স্কিমের মহিলা সদস্য সংখ্যা

৮৩%

প্রতি কেন্দ্রে গড় সদস্য সংখ্যা

৩৫

ক্লায়েন্ট সংখ্যা (যারা বিনিয়োগ গ্রহণ করেছে)

,৮২,৮৫২

আর্থিক বিবরণী (RDS & MEIS)
১০ ক্রমবর্ধমান বিতরণ (শুরু থেকে)

,৬১,৮৯১.২৮

১১ বর্তমান স্থিতি

২৪,৪৭৬.৯৯

১২ খেলাপি

১১১.৩৮

১৩ রিকভারি পার্সেন্টেজ

৯৯.৫৪%

১৪ সদস্যদের জমাকৃত সঞ্চয় (সেন্টার ফান্ড)

,৯৫২.৬৪

আর্থিক বিবরণী (MEIS)
১৫ ক্লায়েন্ট সংখ্যা (MEIS)

৭৬,৩৪৮

১৬ ক্রমবর্ধমান বিতরণ (২০০৫ সাল থেকে)

৪৭,৭৫৭.২৫

১৭ বর্তমান স্থিতি

১০,৮৩১.১১

জনশক্তি
১৮ ফিল্ড অফিসার সংখ্যা

,৫৭৩

১৯ প্রজেক্ট অফিসার সংখ্যা

২০৮

২০ জোন অফিসার সংখ্যা

২৩

Leave a Reply