এনআরবিসি ব্যাংক বিনিয়োগকারীদের পছন্দের শীর্ষে

0

গত সপ্তাজুড়ে দেশের শেয়ারবাজারে দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে এনআরবি কমার্শিয়াল (এনআরবিসি) ব্যাংক লিমিটেড। বিনিয়োগকারীদের পছন্দের শীর্ষে চলে আসায় প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দাম বাড়ার শীর্ষ স্থানটিও দখল করেছে ব্যাংক খাতের এ প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার।

শেয়ার দামে বড় ধরনের উত্থান হওয়ায় বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছেন। ফলে সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয়েছে ১৩৭ কোটি ৬৫ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ২৭ কোটি ৫৩ লাখ ১০ হাজার টাকা।

আরও দেখুন:
◾ আগামী বুধবার ব্যাংক বন্ধ থাকবে

অন্যদিকে, কোম্পানিটির শেয়ারের দাম সপ্তাহজুড়ে বেড়েছে ২৯ দশমিক ৫১ শতাংশ। টাকার অংকে বেড়েছে ৭ টাকা ২০ পয়সা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ৩১ টাকা ৬০ পয়সা, যা আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ২৪ টাকা ৪০ পয়সা।

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ (A Platform for Bankers Community) প্রিয় পাঠকঃ ব্যাংকিং বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ লাইক দিন এবং ফেসবুক গ্রুপ ব্যাংকিং ফর অল এ জয়েন করে আমাদের সাথেই থাকুন।

কোম্পানিটি চলতি বছরে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। কোম্পানিটি সর্বশেষ ২০২০ সালের সমাপ্ত বছরের জন্য বিনিয়োগকারীদের সাড়ে ৭ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দিয়েছে।

ডিএসইর মাধ্যমে কোম্পানিটি সর্বশেষ চলতি বছরের জুন পর্যন্ত সময়ের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এ প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসের (জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত) ব্যবসায় শেয়ার প্রতি ১ টাকা ১১ পয়সা মুনাফা হয়েছে।

ডিএসইর তথ্যানুযায়ী, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের ৭৩ দশমিক ৩২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে। বাকি শেয়ারের মধ্যে ২২ দশমিক ৭০ শতাংশ আছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে ৩ দশমিক ৯৮ শতাংশ।

দাম বাড়ার তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ। গেল সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বেড়েছে ২৪ দশমিক ৫৮ শতাংশ। এর পরের স্থানটিতে রয়েছে ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ৩১ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

এছাড়া দাম বাড়ার শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় থাকা ইস্টার্ণ লুব্রিকেন্টের ১৯ দশমিক ৫৬ শতাংশ, দেশবন্ধু পলিমারের ১৯ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ, কাট্টালি টেক্সটাইলের ১৬ দশমিক ৫৫ শতাংশ, ফরচুন সুজের ১৩ দশমিক ৭১ শতাংশ, তমিজউদ্দিন টেক্সটাইলের ১৩ দশমিক ৭৩ শতাংশ, সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইলের ১২ দশমিক ৯৯ শতাংশ এবং আমান ফিডের ১২ দশমিক শূন্য ১ শতাংশ দাম বেড়েছে।

Leave a Reply