বাংলাদেশ জাতীয় সঞ্চয়পত্র, সঞ্চয়পত্রের সুদের হার ও সঞ্চয়পত্রের আবেদন ফরম সমূহ

0
19250

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশঃ সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে সরকার জনগণের কাছ থেকে অর্থ ধার করে। সঞ্চয়পত্র জাতীয় সঞ্চয় ব্যুরো, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ তফসিলী ব্যাংকসমূহ এবং ডাকঘর থেকে ক্রয় ও নগদায়ন করা যায়।

 সঞ্চয়পত্র
সঞ্চয়পত্র একটি সঞ্চয় স্কীম বা ফিক্সড ডিপোজীট। জনসাধারনের ঝামেলামুক্ত অর্থ বিনিয়োগের পথ প্রশস্থ করার অন্য নাম সঞ্চয়পত্র। মেয়াদান্তে ও প্রকার ভেদে বার্ষিক মুনাফার হার ৯.৫০%- ১১.৫২%। জাতীয় সঞ্চয় পরিদপ্তরের অধীনে বর্তমানে পাঁচ ধরনের সঞ্চয়পত্র প্রচলিত আছে। এতে বাংলাদেশের নাগরিকেরা বিনিয়োগ করতে পারেন।
এই পাঁচ ধরনের সঞ্চয়পত্র হচ্ছে-
১. পাঁচ বছর মেয়াদি পরিবার সঞ্চয়পত্র,
২. পেনশনার সঞ্চয়পত্র,
৩. বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র,
৪. ডাকঘর সঞ্চয়পত্র এবং
৪. তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্র (তিন বছর মেয়াদি)।
* সঞ্চয়পত্র সম্পর্কিত তথ্য জানতে ক্লিক করুন এখানে
* সঞ্চয়পত্রের ইএফটি সুবিধা সম্পর্কিত তথ্য জানতে ক্লিক করুন এখানে

 সঞ্চয়পত্রের সুদের হার
– ৫ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র- ১১.২৮%
– ৩ মাস অন্তর মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্র- ১১.০৪%
– পরিবার সঞ্চয়পত্র- ১১.৫২%
– গ্রাচুইটি ও পেনশনার সঞ্চয়পত্র- ১১.৭৬%

 সঞ্চয়পত্র কোথায় পাওয়া যায়?
জাতীয় সঞ্চয় ব্যুরো, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ তফসিলী ব্যাংকসমূহ এবং ডাকঘর থেকে ক্রয় ও নগদায়ন করা যায়। বাংলাদেশ ব্যাংকে করার সুবিধা হল কুপন নিয়ে দৌড়া দৌড়ি করতে হবে না। প্রতি মাসের নির্দিষ্ট তারিখে আপনার ব্যাংক একাউন্টে তারা বিএফটিএন করে পাঠিয়ে দিবে।

 সঞ্চয়পত্রের কোনটায় লাভ সব থেকে বেশি?
সঞ্চয়পত্রের কোনটায় লাভ সব থেকে বেশি তা নিম্নে তুলে ধরা হলো-
– পরিবারটা সর্বোচ্চ করা যায় ৪৫ লাখ টাকা। লাখে মাসিক ভিত্তিতে পাবেন ৯১২ টাকা। ১৮ বছরের বেশি বয়সী মেয়ে এবং ৬৫ বছরের বেশি বয়সী ছেলেরা করতে পারবেন। এর মেয়াদ ৫ বছর।
– পেনশনার সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা। লাখে ৩ মাসে ২,৭৯৩ টাকা। যা ১ মাসের হিসাবে ৯৩১ টাকা, তবে টাকা ৩ মাস পরপর পাবেন। অবসরপ্রাপ্ত সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্ত্বশাসিত, আধা- স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা/কর্মচারী, সুপ্রীম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত মাননীয় বিচারপতিগণ, সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্য এবং মৃত চাকুরীজীবীর পারিবারিক পেনশন সুবিধাভোগী স্বামী/স্ত্রী/সন্তান। এর মেয়াদ ৫ বছর।
– ৩ মাস মেয়াদী সর্বোচ্চ ৩০ লাখ টাকা। ৩ মাস শেষে পাবেন লাখে ২,৬২২ টাকা। মানে লাখে ১ মাসে ৮৭৪ টাকা। তবে ৩ মাস পর পর লাভ পাবেন। এটা ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সী যে কেউ করতে পারবে। এর মেয়াদ ৩ বছর।
– ৫ বছর মেয়াদী সঞ্চয়পত্র সর্বোচ্চ ৩০ লাখ করা যায় (ব্যক্তি), ১১.২৮% হারে লাভ দিবে।
– সঞ্চয়পত্রে কোন এক্সসাইজ ডিউটি বা আবগারী শুক্ল কাটে না, তবে ৫% ভ্যাট কাটে লাভের উপর, সেটা হিসাব করেই কত পাবেন জানানো হয়েছে।
– সবাই নমিনী করতে পারবেন এবং মারা গেলে নমিনী সঞ্চয়পত্র কন্টিনিউ করতে পারে। ব্যাংক একাউন্টের মত একাউন্ট বন্ধ হয়ে যায় না।

 সঞ্চয়পত্রের ফরম সমূহ ডাউনলোড
– ৫ বছর মেয়াদী এবং ৩ মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– পেনশনার সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– গ্রাচুইটি ও পেনশন ফান্ড সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– পরিবার সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০১ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০২ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০৩ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০৪ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– EFT ম্যানডেট ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
* EFT ম্যানডেট ফরম পূরণ করে নিলে অটমেটিক লাভ আপনার একাউন্ট এ চলে আসবে।

Leave a Reply