জাতীয় সঞ্চয়পত্র কি? সঞ্চয়পত্রের সুদের হার ও সঞ্চয়পত্রের আবেদন ফরম সমূহ

0
30442

সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে সরকার জনগণের কাছ থেকে অর্থ ধার করে। সঞ্চয়পত্র জাতীয় সঞ্চয় ব্যুরো, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ তফসিলী ব্যাংকসমূহ এবং ডাকঘর থেকে ক্রয় ও নগদায়ন করা যায়।

সঞ্চয়পত্র কি?
সঞ্চয়পত্র একটি সঞ্চয় স্কীম বা ফিক্সড ডিপোজিট। জনসাধারনের ঝামেলামুক্ত অর্থ বিনিয়োগের পথ প্রশস্থ করার অন্য নাম সঞ্চয়পত্র। মেয়াদান্তে ও প্রকার ভেদে বার্ষিক মুনাফার হার ৯.৫০%- ১১.৫২%। জাতীয় সঞ্চয় পরিদপ্তরের অধীনে বর্তমানে পাঁচ ধরনের সঞ্চয়পত্র প্রচলিত আছে। এতে বাংলাদেশের নাগরিকেরা বিনিয়োগ করতে পারেন।
এই পাঁচ ধরনের সঞ্চয়পত্র হচ্ছে-
১. পাঁচ বছর মেয়াদি পরিবার সঞ্চয়পত্র,
২. পেনশনার সঞ্চয়পত্র,
৩. বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র,
৪. ডাকঘর সঞ্চয়পত্র এবং
৫. তিন মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্র (তিন বছর মেয়াদি)।
* সঞ্চয়পত্র সম্পর্কিত তথ্য জানতে ক্লিক করুন এখানে
* সঞ্চয়পত্রের ইএফটি সুবিধা সম্পর্কিত তথ্য জানতে ক্লিক করুন এখানে

সঞ্চয়পত্রের সুদের হার
– ৫ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র- ১১.২৮%
– ৩ মাস অন্তর মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্র- ১১.০৪%
– পরিবার সঞ্চয়পত্র- ১১.৫২%
– গ্রাচুইটি ও পেনশনার সঞ্চয়পত্র- ১১.৭৬%

সঞ্চয়পত্র কোথায় পাওয়া যায়?
জাতীয় সঞ্চয় ব্যুরো, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ তফসিলী ব্যাংকসমূহ এবং ডাকঘর থেকে ক্রয় ও নগদায়ন করা যায়। বাংলাদেশ ব্যাংকে করার সুবিধা হল কুপন নিয়ে দৌড়া দৌড়ি করতে হবে না। প্রতি মাসের নির্দিষ্ট তারিখে আপনার ব্যাংক একাউন্টে তারা বিএফটিএন করে পাঠিয়ে দিবে।

সঞ্চয়পত্রের কোনটায় লাভ সব থেকে বেশি?
সঞ্চয়পত্রের কোনটায় লাভ সব থেকে বেশি তা নিম্নে তুলে ধরা হলো-
– পরিবারটা সর্বোচ্চ করা যায় ৪৫ লাখ টাকা। লাখে মাসিক ভিত্তিতে পাবেন ৯১২ টাকা। ১৮ বছরের বেশি বয়সী মেয়ে এবং ৬৫ বছরের বেশি বয়সী ছেলেরা করতে পারবেন। এর মেয়াদ ৫ বছর।
– পেনশনার সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা। লাখে ৩ মাসে ২,৭৯৩ টাকা। যা ১ মাসের হিসাবে ৯৩১ টাকা, তবে টাকা ৩ মাস পরপর পাবেন। অবসরপ্রাপ্ত সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্ত্বশাসিত, আধা- স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা/কর্মচারী, সুপ্রীম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত মাননীয় বিচারপতিগণ, সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্য এবং মৃত চাকুরীজীবীর পারিবারিক পেনশন সুবিধাভোগী স্বামী/স্ত্রী/সন্তান। এর মেয়াদ ৫ বছর।
– ৩ মাস মেয়াদী সর্বোচ্চ ৩০ লাখ টাকা। ৩ মাস শেষে পাবেন লাখে ২,৬২২ টাকা। মানে লাখে ১ মাসে ৮৭৪ টাকা। তবে ৩ মাস পর পর লাভ পাবেন। এটা ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সী যে কেউ করতে পারবে। এর মেয়াদ ৩ বছর।
– ৫ বছর মেয়াদী সঞ্চয়পত্র সর্বোচ্চ ৩০ লাখ করা যায় (ব্যক্তি), ১১.২৮% হারে লাভ দিবে।
– সঞ্চয়পত্রে কোন এক্সসাইজ ডিউটি বা আবগারী শুক্ল কাটে না, তবে ৫% ভ্যাট কাটে লাভের উপর, সেটা হিসাব করেই কত পাবেন জানানো হয়েছে।
– সবাই নমিনী করতে পারবেন এবং মারা গেলে নমিনী সঞ্চয়পত্র কন্টিনিউ করতে পারে। ব্যাংক একাউন্টের মত একাউন্ট বন্ধ হয়ে যায় না।

সঞ্চয়পত্রের ফরম সমূহ ডাউনলোড
– ৫ বছর মেয়াদী এবং ৩ মাস অন্তর মুনাফা ভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– পেনশনার সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– গ্রাচুইটি ও পেনশন ফান্ড সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– পরিবার সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০১ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০২ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০৩ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– ডাকঘর সঞ্চয়পত্র ০৪ ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
– EFT ম্যানডেট ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে
* EFT ম্যানডেট ফরম পূরণ করে নিলে অটমেটিক লাভ আপনার একাউন্ট এ চলে আসবে।

Leave a Reply