মোবাইল ব্যাংকিং-লেনদেনের ক্ষেত্রে বিবেচ্য বিষয়

0
212

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশঃ সাম্প্রতিক সময়ে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের অপব্যবহার করে হুন্ডি পথে রেমিটেন্স এনে সুবিধাভোগীর কাছে পৌঁছে দেয়া, জঙ্গী ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন, ঘুষ লেনদেনসহ বিভিন্ন অভিযোগ উঠার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংক এক প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের অপ্যবহার রোধ এবং সুশৃঙ্খল ও যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে গত ১ জানুয়ারি হতে একজন গ্রাহকের গ্রাহক তার ব্যক্তি মোবাইল হিসাবে সর্বোচ্চ ৩ লাখ টাকা রাখতে পারবেন। যে সকল ব্যক্তি মোবাইল হিসাবে ৩ লাখ টাকার অধিক স্থিতি রয়েছে, সে সকল হিসাবের স্থিতি আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে উপর্যুক্ত সীমার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে। এক্ষেত্রে হিসাবধারীর হিসাবের সঙ্গে সংযুক্ত ব্যাংক হিসাবে অর্থ স্থানান্তরের মাধ্যমে তা করা যেতে পারে।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে জারি করা সার্কুলারে মাধ্যমে বলা হয়-
☞ একটি জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহারে একটি মোবাইল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানে একটি মাত্র এ্যাকাউন্ট চালু রাখা যাবে।
☞ প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১৫ হাজার এবং মাসে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা জমা (ক্যাশ ইন) করা যাবে।
☞ প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা এবং মাসে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা উত্তোলন (ক্যাশ আউট) করা যাবে।
☞ দিনে সর্বোচ্চ ২ বার ক্যাশ ইন করা যাবে, আগে ক্যাশ ইন করা যেত ৫ বার।
☞ মাসিক ক্যাশ ইন সংখ্যা ২০ বার অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে।
☞ ক্যাশ আউটের সংখ্যা ৩ বার থেকে কমিয়ে দিনে ২ বার করা হয়েছে।
☞ টাকা ক্যাশ ইন করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৫ হাজার টাকার বেশি ক্যাশ আউট করা যাবে না।
☞ কোন মোবাইল হিসাবে ৫ হাজার টাকার বেশি ক্যাশ ইন ও ক্যাশ আউট করতে হলে গ্রাহককে জাতীয় পরিচয়পত্র দেখাতে হবে এবং এজেন্ট ওই পরিচয়পত্রের নম্বর রেজিস্টার খাতায় লিখে রাখবেন।
☞ ক্যাশ ইন ও ক্যাশ আউটের আলাদা রেজিস্টার খাতায় গ্রাহকের স্বাক্ষর বা টিপসহি রাখতে হবে।

Leave a Reply