1. bankingnewsbd@gmail.com : ব্যাংকিং নিউজ : ব্যাংকিং নিউজ
  2. mosharafnbl@yahoo.com : মোশারফ হোসেন : মোশারফ হোসেন
  3. msakanda@yahoo.com : ইবনে নুর : ইবনে নুর
  4. shafiqueshams@gmail.com : Shamsuddin Akanda : Shamsuddin Akanda
  5. surjoopathik@ymail.com : শরিফুল ইসলাম : শরিফুল ইসলাম
  6. tasniapopy@gmail.com : তাসনিয়া তাবাসসুম : তাসনিয়া তাবাসসুম



সিডিউল অফ চার্জে পরিবর্তন আনলো কেন্দ্রীয় ব্যাংক

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১

সিডিউল অফ চার্জ সংক্রান্ত মাস্টার সার্কুলার এ পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ ব্যাংক৷ ব্যাংকগুলো যেন গ্রাহকদের কাছ থেকে ইচ্ছামত মাশুল নিতে না পারে সেজন্য একগুচ্ছ সেবার চার্জ ও ফি নতুন করে নির্ধারণ করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

হিসাব খোলা ও রক্ষণাবেক্ষণ, আমানত, ঋণ প্রদান, রেমিটেন্সসহ অন্যান্য সেবার বিনিময়ে ব্যাংক মাশুল বা চার্জ ও কমিশন হিসেবে গ্রাহকের কাছ থেকে কত টাকা নিতে পারবে সেটা বলে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বিভিন্ন সময়ে জারি করা সব সার্কুলারকে একত্রিত করে একটির মধ্যে আনা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, বিআরপিডি সার্কুলার নং- ১৯/২০০৯, ০৯/২০১০, ১৯/২০১০, ৩০/২০১০, ০২/২০১৭, ০৯/২০১৮, ০৭/২০১৯ এবং বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং- ০২/২০২০ এর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাচ্ছে।

আমানতকারী/ বিনিয়ােগকারী/ গ্রাহকগণের স্বার্থ সংরক্ষণকল্পে ব্যাংকসমূহকে বিভিন্ন ধরনের চার্জ/ ফি/ কমিশন ইত্যাদির পরিমাণ/ হার নির্ধারণ সংক্রান্ত সূত্রোল্লিখিত সার্কুলার/ সার্কুলার লেটারের মাধ্যমে প্রয়ােজনীয় নির্দেশনা প্রদান করা হয়। দীর্ঘ সময়ের ব্যবধানে এবং পরিবর্তিত পরিস্থিতি বিবেচনায় উক্ত নির্ধারিত হার পুনঃবিশ্লেষণপূর্বক নতুনভাবে নির্ধারণ এবং পরিপালনের সুবিধার্থে পূর্বের নির্দেশনাসমূহ একীভূত করার আবশ্যকতা দেখা দিয়েছে।

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ (A Platform for Bankers Community) প্রিয় পাঠকঃ ব্যাংকিং বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ লাইক দিন এবং ফেসবুক গ্রুপ ব্যাংকিং ফর অল এ জয়েন করে আমাদের সাথেই থাকুন।

বর্ণিত বিষয়াবলী বিবেচনায় ব্যাংক কর্তৃক আরােপিতব্য বিভিন্ন চার্জ/ ফি/ কমিশন ইত্যাদি বিষয়ে নিম্নেবর্ণিত নির্দেশনা জারি করা হলাে:

(ক) আমানত সংক্রান্ত
(১) হিসাব খােলা (Account Opening):
সঞ্চয়ী হিসাব খােলার ক্ষেত্রে গ্রাহকগণ ৫০০/- টাকা এবং চলতি হিসাব খােলার ক্ষেত্রে ১,০০০/- টাকা জমাকরণপূর্বক নিজ নিজ নামে ব্যাংক হিসাব খুলতে পারবেন। তবে, বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত হিসাব খােলার ক্ষেত্রে ন্যূনতম জমার বাধ্যবাধকতা হতে অব্যাহতিপ্রাপ্ত থাকবে।

(২) হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি (Account Maintenance Fee):
ক) সঞ্চয়ী হিসাবে ১০,০০০/- টাকা পর্যন্ত গড় আমানত স্থিতির ক্ষেত্রে হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি আদায় করা যাবে না। ১০,০০০/- টাকার অধিক গড় আমানত স্থিতির ক্ষেত্রে প্রতি ষান্মাসিকে নিম্নবর্ণিত হারে হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি আদায় করা যাবেঃ

i) ১০,০০০/- টাকার অধিক কিন্তু ২৫,০০০/- টাকা পর্যন্ত গড় আমানত স্থিতির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা;
ii) ২৫,০০০/- টাকার অধিক কিন্তু ২.০০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত গড় আমানত স্থিতির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২০০/- টাকা;
iii) ২.০০ লক্ষ টাকার অধিক কিন্তু ১০.০০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত গড় আমানত স্থিতির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২৫০/- টাকা;
iv) ১০.০০ লক্ষ টাকার অধিক গড় আমানত স্থিতির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩০০/- টাকা।

খ) চলতি হিসাবে প্রতি ষান্মাসিকে সর্বোচ্চ ৩০০/- টাকা ও Special Notice Deposit (SND) হিসাবে সর্বোচ্চ ৫০০/- টাকা আদায় করা যাবে।

গ) বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত হিসাবসমূহে কোন প্রকার হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি আদায় করা যাবে না।

(৩) অন্য শাখায় হিসাব স্থানান্তর: একই ব্যাংকের অন্য শাখায় হিসাব স্থানান্তরের ক্ষেত্রে একই জেলায় সর্বোচ্চ ৫০/- টাকা এবং অন্য জেলায় সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা ফি আদায় করা যাবে।

(৪) Activation of Dormant Account: বিভিন্ন ধরনের সঞ্চয়ী হিসাবের ক্ষেত্রে Activation of Dormant Account বাবদ কোন চার্জ ফি আদায় করা যাবে না।

(৫) মেয়াদপূর্ব নগদায়ন ফি (Premature Encashment Fee): বিভিন্ন মাসিক সঞ্চয়ী হিসাব (ডিপােজিট পেনশন স্কীম) বা এফডিআর বা অন্য কোন মেয়াদী আমানত মেয়াদপূর্তির পূর্বে নগদায়নের ক্ষেত্রে নগদায়ন ফি (Premature Encashment Fee) বা অনুরূপ ফি আরােপ করা যাবে না।

(৬) হিসাব বন্ধকরণ ফি (Account Closing Fee): হিসাব বন্ধকরণের ক্ষেত্রে হিসাব বন্ধকরণ চার্জ হিসেবে সঞ্চয়ী হিসাবে সর্বোচ্চ ২০০/- টাকা, চলতি হিসাবে সর্বোচ্চ ৩০০/- টাকা এবং এসএনডি হিসাবে সর্বোচ্চ ৩০০/- টাকা আদায় করা যাবে। তবে, বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত হিসাবসমূহে হিসাব বন্ধকরণ বাবদ কোন ফি আদায় করা যাবে না।

(৭) চেক বই ইস্যু: বিভিন্ন ধরনের হিসাবের বিপরীতে চেক বই ইস্যুর ক্ষেত্রে প্রকৃত খরচের ভিত্তিতে (At actual) চার্জ নির্ধারণ করতে হবে। চেক বই হারানাের ক্ষেত্রে নতুন চেক বই ইস্যু বাবদ প্রকৃত খরচ ব্যতীত অতিরিক্ত চার্জ/ প্রসেসিং ফি আদায় করা যাবে না।

(৮) অন্যান্য ফি: বিভিন্ন ধরনের সঞ্চয়ী ও চলতি হিসাবে আরােপিত ন্যূনতম ব্যালেন্স ফি, ইনসিডেন্টাল চার্জ, লেজার ফি, সার্ভিস চার্জ, কাউন্টার ট্রানজেকশন ফি বা অনুরূপ ফি আদায় করা যাবে না।

(‘বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত হিসাব’ বলতে দেশের আর্থিক সেবা বঞ্চিত জনগােষ্ঠীকে ব্যাংকিং সেবার আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে কৃষক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, দুঃস্থ, ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন শ্রমিক, পথশিশু ও কর্মজীবী শিশু কিশাের, ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচীর সুবিধাভােগী, তৈরি পােষাক শিল্পে কর্মরত শ্রমিক, পাদুকা ও চামড়াজাত পণ্য প্রস্তুতকারী ক্ষুদ্র কারখানার কারিগর এবং স্কুল ব্যাংকিং হিসাবধারীদের ব্যাংক হিসাবসহ সব ধরনের ১০/-, ৫০/- ও ১০০/- টাকায় খােলা হিসাবসমূহ এবং বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক সময়ে সময়ে নির্দেশিত অনুরূপ হিসাবসমূহকে বােঝাবে)

(খ) ঋণ প্রদান সংক্রান্ত
(১) ঋণ প্রসেসিং ফি (Loan Processing Fee) হিসেবে ৫০.০০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণের ক্ষেত্রে মােট মঞ্জুরীকৃত ঋণের সর্বোচ্চ ০.৫০% আদায় করা যাবে, তবে এর পরিমাণ ১৫,০০০/- টাকার অধিক হবে না। ৫০.০০ লক্ষ টাকার অধিক পরিমাণ ঋণের ক্ষেত্রে এ হার হবে সর্বোচ্চ ০.৩০%, তবে এর পরিমাণ ২০,০০০/- টাকার অধিক হবে না।

(২) ঋণ আবেদন ফি (Loan Application Fee) নামে কোন ফি আদায় করা যাবে না।

(৩) কটেজ, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি এন্টারপ্রাইজ (CMSME) এবং কৃষি খাতে ঋণ পুনঃতফসিলিকরণ/ পুনর্গঠনের ক্ষেত্রে ঋণ প্রসেসিং/ পুনঃতফসিলিকরণ/ পুনর্গঠন ফি (Loan Processing/ Reschedule/ Restructure Fee) ইত্যাদি নামে কোন ফি/ চার্জ/ কমিশন আদায় করা যাবে না। তবে, সিএমএসএমই ও কৃষি খাত ব্যতীত অন্যান্য খাতে ঋণ পুনঃতফসিলিকরণ/ পুনর্গঠনের ক্ষেত্রে পুনঃতফসিলিকরণ/ পুনর্গঠন ফি (Reschedule/ Restructure Fee) বাবদ সর্বোচ্চ ০.২৫% আদায় করা যাবে, তবে এর পরিমাণ ১০,০০০/- টাকার অধিক হবে না।

(৪) ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে ডকুমেন্টেশন ফি (Documentation Fee), সিআইবি চার্জ (CIB Charge), স্ট্যাম্প চার্জ (Stamp Charge) এবং আইনী ও জামানত মূল্যায়ন ফি (Legal and Valuation Fee) প্রকৃত ব্যয়ের (At Actual) ভিত্তিতে নির্ধারিত হবে।

(৫) রপ্তানি ঋণসহ যে কোন ধরনের ঋণের ক্ষেত্রে সুদ/ মুনাফা হারের অতিরিক্ত কোন সার্ভিস চার্জ, ঋণ ব্যবস্থাপনা ফি, মনিটরিং/ সুপারভিশন চার্জ, ঝুঁকি প্রিমিয়াম বা অনুরূপ অন্য যে কোন নামে অতিরিক্ত কোন চার্জ/ ফিকমিশন আরােপ/ আদায় করা যাবে না।

(৬) গ্রাহক কর্তৃক গৃহীত ঋণ নির্দিষ্ট মেয়াদের পূর্বে পরিশােধের ক্ষেত্রে বকেয়া ঋণের সর্বোচ্চ ০.৫০% Early Settlement Fee বা অনুরূপ ফি আদায় করা যাবে। তবে, কটেজ, মাইক্রো ও ক্ষুদ্র খাতে প্রদত্ত ঋণ এবং চলতি ঋণ বা ডিমান্ড লােন এর ক্ষেত্রে মেয়াদপূর্তির পূর্বে সমন্বয়ের ক্ষেত্রে Early Settlement Fee বা অনুরূপ ফি আদায় করা যাবে না৷

(গ) স্থানীয় ও বৈদেশিক বাণিজ্য রেমিট্যান্স সংক্রান্ত
(১) ১০০% নগদ মার্জিনে এলসি খােলার কমিশন প্রতি ত্রৈমাসিকে সর্বোচ্চ ০.২৫%, ডেফার্ড/ ইউজান্স (Usance) এলসি খােলার কমিশন প্রতি ত্রৈমাসিকে সর্বোচ্চ ০.৫০% এবং সাইট ও ব্যাক টু ব্যাকসহ অন্যান্য এলসি খােলার কমিশন প্রতি ত্রৈমাসিকে সর্বোচ্চ ০.৪০% নির্ধারণ করা যাবে।

(২) এলসি ট্রান্সমিশন, এলসি অ্যামেন্ডমেন্ট, কনফারমেশন, ক্যানসেলেশন, ফরেন করেসপন্ডেন্ট চার্জ এর ক্ষেত্রে মেইলিং, কুরিয়ার, টেলেক্স, সুইফট ইত্যাদি ক্ষেত্রে প্রকৃত ব্যয়ের ভিত্তিতে (At Actual) চার্জ নির্ধারণ করা যাবে।

(৩) এলসি এডভাইসিং চার্জ, এলসি অ্যামেন্ডমেন্ট চার্জ ও এলসি ট্রান্সফার চার্জ বাবদ সর্বোচ্চ ৭৫০/- টাকা নির্ধারণ করা যাবে।

(৪) এলসি এ্যাকসেপটেন্স চার্জ প্রতি ত্রৈমাসিকে সর্বোচ্চ ০.৪০% এবং এলসি কনফারমেশন চার্জ প্রতি ত্রৈমাসিকে সর্বোচ্চ ০.২০% নির্ধারণ করা যাবে।

(৫) ফরেন করেসপন্ডেন্ট চার্জ (স্থানীয় অংশ), ডাটা ম্যাক্স, হ্যান্ডেলিং চার্জ, কপি ডকুমেন্ট এনডাের্সমেন্ট চার্জ, এলসি বাতিল কিংবা মেয়াদোত্তীর্ণ অব্যবহৃত এলসি চার্জ আদায় করা যাবে না।

(৬) রপ্তানি বিল নেগােসিয়েশন কমিশন ও রপ্তানি বিল কালেকশন কমিশন সর্বোচ্চ ০.১৫% নির্ধারিত হবে। তবে, রপ্তানি বিল নেগােসিয়েশন ও কালেকশনের ক্ষেত্রে যেখানে বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময়ের মাধ্যমে change gain হয় সেক্ষেত্রে কমিশন বাবদ ৫০০/- টাকার অধিক আদায় করা যাবে না।

(৭) ব্যাক টু ব্যাক এলসি সার্টিফিকেট ইস্যুর চার্জ, সিএন্ডএফ সার্টিফিকেট ইস্যুর চার্জ, রপ্তানি মূল্য আদায়ের সার্টিফিকেট (Proceed Realization Certificate or PRC) ইস্যুর চার্জ ৫০০/- টাকার অধিক আদায় করা যাবে না।

(৮) ব্যাংক গ্যারান্টি প্রদানের ক্ষেত্রে কমিশন বাবদ ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে সর্বোচ্চ ০.৫০% এবং ন্যূনতম ১,০০০/- টাকা নির্ধারণ করা যাবে।

(৯) এলসি খােলা/ এলসি এ্যাকসেপটেন্স/ এলসি কনফারমেশন/ ব্যাংক গ্যারান্টি এক ত্রৈমাসিক বা এর চেয়ে কম সময়ের জন্য প্রদত্ত হলে সেক্ষেত্রে ব্যাংক নিজস্ব বিবেচনায় সর্বোচ্চ এক ত্রৈমাসিকের সমপরিমাণ চার্জ কমিশন আদায় করতে পারবে। তবে, মেয়াদ যদি এক ত্রৈমাসিকের চেয়ে বেশী সময়ের জন্য হয় সেক্ষেত্রে যে তারিখে মেয়াদ পূর্ণ হবে শুধুমাত্র ঐ নির্ধারিত তারিখ পর্যন্ত সময়কালের জন্য চার্জ/ কমিশন আদায় করা যাবে।

(১০) বৈদেশিক মুদ্রায় ডিমান্ড ড্রাফট (DD), টেলিগ্রাফিক ট্রান্সফার (TT), মেইল ট্রান্সফার (MT) প্রভৃতি ইন্সট্রুমেন্ট ইস্যুর ক্ষেত্রে অনধিক ১,০০,০০০/- টাকা সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা, ১,০০,০০১/- হতে অনধিক ৫,০০,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০০/- টাকা, ৫,০০,০০১/- হতে অনধিক ১০,০০,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৩০০/- টাকা এবং ১০,০০,০০০/- টাকার অধিক সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০০/- টাকা চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে। ইন্সট্রুমেন্টসমূহ বাতিলের ক্ষেত্রে প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০০/- টাকা চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে।

(ঘ) হিসাব সংক্রান্ত ও অন্যান্য
(১) স্থিতি নিশ্চিতকরণ সনদ ফি (Balance Confirmation Certificate Fee): ষান্মাসিক ও বাৎসরিক ভিত্তিতে অর্থাৎ বছরে দু’বার ব্যাংকের আমানত ও ঋণ হিসাবধারী প্রত্যেক গ্রাহককে হিসাবের স্থিতি নিশ্চিতকরণ সনদ (হিসাব বিবরণীসহ) প্রদানের জন্য কোন চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে না। তবে, গ্রাহককে বছরে দুবারের বেশী এ সনদ (হিসাব বিবরণীসহ) গ্রহণ করতে হলে সে ক্ষেত্রে প্রতিবার সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে।

(২) স্বচ্ছলতা সনদ (Solvency Certificate): স্বচ্ছলতা সনদ প্রদানের ক্ষেত্রে প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০০/- টাকা চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে।

(৩) চেক ফেরতের ক্ষেত্রে প্রতিবার সর্বোচ্চ ৫০/- টাকা চার্জ আদায় করা যাবে।

(8) বিও সনদ (Beneficiary Owner’s Certificate): বিও একাউন্ট (Beneficiary Owner’s Account) খােলার ক্ষেত্রে বিও সনদ প্রদানের চার্জ সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা আদায় করা যাবে।

(৫) অর্থ প্রদান নির্দেশনা স্থগিতকরণ (Stop Payment Instruction): গ্রাহক কর্তৃক হিসাব চেকে প্রদত্ত অর্থ প্রদান নির্দেশনা (Payment Instruction) স্থগিতকরণ চার্জ প্রতিবার অনুরােধের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা এবং অর্থ প্রদান নির্দেশনা স্থগিতকরণ বাতিলের ক্ষেত্রে প্রতিবার অনুরােধে সর্বোচ্চ ৫০/- টাকা আদায় করা যাবে।

(৬) পে-অর্ডার (PO) ইস্যুর ক্ষেত্রে অনধিক ১,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০/- টাকা, ১,০০১/- হতে অনধিক ১,০০,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৫০/- টাকা এবং ১,০০,০০০/- টাকার অধিক পরিমাণের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে। পে-অর্ডার বাতিলের ক্ষেত্রে প্রতিবার সর্বোচ্চ ৫০/- টাকা চার্জ ফি আদায় করা যাবে।

(৭) ডিমান্ড ড্রাফট (DD), টেলিগ্রাফিক ট্রান্সফার (TT), মেইল ট্রান্সফার (MT) প্রভৃতি ইন্সট্রুমেন্ট ইস্যুর ক্ষেত্রে অনধিক ১,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০/- টাকা, ১,০০১/- হতে অনধিক ১,০০,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৫০/- টাকা, ১,০০,০০১/- হতে অনধিক ৫,০০,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ১০০/- টাকা, ৫,০০,০০১/- হতে অনধিক ১০,০০,০০০/- টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০০/- টাকা এবং ১০,০০,০০০/- টাকার অধিক পরিমাণের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩০০/- টাকা চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে। ইন্সট্রুমেন্টসমূহ বাতিলের ক্ষেত্রে প্রতিবার সর্বোচ্চ ৫০/- টাকা চার্জ/ ফি আদায় করা যাবে।

সিডিউল অব চার্জেস এর সর্বশেষ হালনাগাদকৃত পূর্ণ তালিকা স্ব স্ব ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়, সকল শাখা, উপশাখা ও এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটসমূহের দর্শনীয় স্থানে নােটিশ বাের্ডে এবং ব্যাংকের ওয়েবসাইটের হােম পেজ এ প্রদর্শন করতে হবে।

ঘােষিত/ প্রকাশিত তালিকা বহির্ভূত কোন চার্জ/ ফি/ কমিশন আরােপ করা যাবে না।

প্রতিবছর ৩০ জুন ও ৩১ ডিসেম্বর তারিখের মধ্যে (ষান্মাসিক ভিত্তিতে) পরবর্তী ছয় মাসের (জুলাই-ডিসেম্বর ও জানুয়ারি-জুন) ঘােষিত চার্জ/ ফি/ কমিশনের তালিকা বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রেরণ করতে হবে।

চার্জ/ ফি/ কমিশনের কোন পরিবর্তন হলে আবশ্যিকভাবে স্ব স্ব ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়, সকল শাখা, উপশাখা ও এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটসমূহের দর্শনীয় স্থানে নােটিশ বাের্ডে প্রদর্শন এবং ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতঃ বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগকে অবহিত করতে হবে।

ইতােপূর্বে জারিকৃত বিআরপিডি সার্কুলার নং- ১৯/২০০৯, ০৯/২০১০, ১৯/২০১০, ৩০/২০১০, ০২/২০১৭, ০৯/২০১৮, ০৭/২০১৯ ও বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং- ০২/২০২০ এ সার্কুলার দ্বারা রহিত করা হলাে। তবে, ২০২১ পঞ্জিকা বছরে সঞ্চয়ী হিসাবের Account Maintenance Fee আদায় সংক্রান্ত বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং- ২১/২০২১ এর নির্দেশনা বহাল থাকবে।

ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হলাে। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

আরও দেখুন:
 অফিস সহকর্মী সম্পর্কঃ পেশাদারি নাকি বন্ধুত্বপূর্ণ
ব্যাংকার হতে চান? আরেকবার ভাবুন
ব্যাংকারদের লেন‌দেন সময় ও টা‌র্গেট ক‌মা‌নো উচিত
 একজন ব্যাংকারের যে সকল গুণাবলী থাকা জরুরী
 ব্যাংকারদের দেরিতে অফিস ত্যাগ সিস্টেম নাকি অদক্ষতা

Leave a Reply



লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যকে দেখার সুযোগ করে দিন:

এই বিভাগের অন্যান্য লেখা





ইমেইল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের নতুন নতুন পোষ্ট গুলো ই-মেইল এর মাধ্যমে পেতে রেজিষ্ট্রেশন করুন।




আর্কাইভ



বিভাগ সমূহ