ইসলামী ব্যাংক ব্যাংকিং উপশাখা

0
1866

শিল্প, ব্যবসা-বাণিজ্য, যোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিসহ বিভিন্ন সেক্টরে দেশ অনেক এগিয়েছে। আর এই অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখে চলেছে ইসলামী ব্যাংক। সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষকে আর্থিক অন্তর্ভূক্তির আওতায় এনে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে তরান্বিত করার লক্ষ্যে ইসলামী ব্যাংক ব্যাংকিং উপশাখা কার্যক্রমের সূচনা করেছে। এই ব্যাংকিং উপশাখা এর মাধ্যমে ইসলামী ব্যাংকের কল্যাণমুখী কার্যক্রম ও আধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ সেবা সকল মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়া হবে। ব্যাংকিং উপশাখা কার্যক্রমের আওতায় হিসাব খোলা, নগদ টাকা জমা ও উত্তোলন, ফান্ড ট্রান্সফার, ফরেন রেমিট্যান্স উত্তোলন, ইউটিলিটি বিল জমা ও বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ধরনের ব্যাংকিং সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিআরপিডি সার্কুলার নং ১৮, তারিখ ২৯ নভেম্বর ২০১২- এর মাধ্যমে ব্যাংক কোম্পানীর ব্যবসা-কেন্দ্র হিসেবে ইতােপূর্বে ব্যাংক শাখা, এসএমই কৃষি শাখা, বুথ (কালেকশন বুথ ও ইলেক্ট্রনিক বুথ) ও ব্যবসা উন্নয়ন কেন্দ্র অন্তর্ভূক্ত ছিল। পরবর্তীতে বিআরপিডি সার্কুলার নং ২৮, তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮- এর মাধ্যমে বাংলাদেশে ব্যাংক ব্যবসার প্রসার, ব্যাংকিং- সুবিধা বঞ্চিত জনগণের নিকট ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে দেয়া এবং স্বল্প-ব্যয়ী ব্যাংকিং সেবা আউটলেটের মাধ্যমে অধিকতর আর্থিক সেবাভূক্তির লক্ষ্যে ব্যাংকসমূহের ব্যবসা-কেন্দ্রের মধ্যে “ব্যাংকিং উপশাখা” অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের “ব্যাংকিং উপশাখা” সংক্রান্ত নীতিমালার আলােকে ইসলামী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ স্বল্প ব্যয়ী “ব্যাংকিং উপশাখা স্থাপন ও পরিচালনার নিমিত্তে বিস্তারিত“ গাইড লাইন অনুমােদন করেছেন।

ব্যাংকিং উপশাখা এর সংজ্ঞা
“ব্যাংকিং উপশাখা” বলতে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক সময়ে সময়ে নির্দেশিত নীতি-পদ্ধতির আলােকে সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং সেবা প্রদানের জন্য ব্যাংকের কোন পূর্ণাঙ্গ শাখার নিয়ন্ত্রণে পরিচালিত স্বল্পব্যয়ী ব্যবসা-কেন্দ্রকে বুঝাবে।

ব্যাংকিং উপশাখা এর লক্ষ্য
বাংলাদেশে শরীয়াহ ভিত্তিক ব্যাংক ব্যবসার প্রসার ঘটিয়ে ব্যাংকিং-সেবা বঞ্চিত জনগণের নিকট কল্যাণমুখী ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে দেয়া এবং স্বল্প-ব্যয়ী ব্যাংকিং সেবা আউটলেটের মাধ্যমে অধিকতর আর্থিক সেবাভূক্তি নিশ্চিত করা।

ব্যাংকিং উপশাখা এর উদ্দেশ্য
ক) ব্যাংকিং-সুবিধা বঞ্চিত এলাকায় ব্যাপক আর্থিক সেবাভূক্তির লক্ষ্যে স্বল্প-ব্যয়ী, কার্যকর ও টেকসই সেবা বিতরণ মাধ্যম প্রতিষ্ঠা করা।
খ) ব্যাংকের গ্রাহকভিত্তি দেশব্যাপী সম্প্রসারণ করা।
গ) ব্যাংকিং-আওতা বহির্ভূত এলাকার জনগণের নিরাপদ সঞ্চয়ের সুযােগ সৃষ্টির মাধ্যমে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয়কে জাতীয় সঞ্চয়ের মূলধারায় আনয়ন করা।
ঘ) বৈদেশিক রেমিটেন্সের অর্থ সহজে ও দ্রুততম সময়ে সুবিধাভােগীর নিকট পৌঁছানাে।
ঙ) দেশব্যাপী জনগণের অর্থের প্রবাহকে (লেনদেনকে) সহজতর ও ঝুঁকিমুক্ত করা।
চ) পশ্চাদপদ এলাকায় অর্থায়নের মাধ্যমে স্থানীয় পর্যায়ে অর্থনৈতিক কর্মচাঞ্চল্য ও কর্মসংস্থান সৃষ্টি।
ছ) আধুনিক ডিজিটাল ইলেক্ট্রনিক ব্যাংকিং সেবাকে তৃণমূল পর্যায়ে জনপ্রিয় করে তােলা।

ব্যাংকিং উপশাখা এর সেবা সমূহ
ব্যাংকিং বুথে বৈদেশিক বাণিজ্য ও বিদেশী মুদ্রার লেনদেন ব্যতিত নির্ধারিত সীমায় সকল ধরণের ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালিত হবে। যেমন-
১. ব্যাংকের বিভিন্ন ধরনের হিসাব খোলা;
২. নগদ জমা ও উত্তোলন;
৩. বৈদেশিক রেমিট্যান্সের অর্থ প্রদান;
৪. ইউটিলিটি বিল পরিশোধ (বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাস);
৫. ইসলামী ব্যাংকের যে কোনো অ্যাকাউন্টে অর্থ স্থানান্তর;
৬. বিইএফটিএনের মাধ্যমে অন্য ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে অর্থ স্থানান্তর;
৭. অ্যাকাউন্ট ব্যালান্স জানা ও সংক্ষিপ্ত বিবরণী;
৮. ক্লিয়ারিং চেক গ্রহন;
৯. ক্ষুদ্র ও কৃষি বিনিয়োগ প্রদান ও কিস্তি সংগ্রহ;
১০. চেক বই এবং ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড প্রদান;
১১. ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা;
১২. এমক্যাশের হিসাব খোলা ও লেনদেন;
১৩. মোবাইল টপআপ;
১৪. বীমা প্রিমিয়াম সংগ্রহ, মাইক্রো-বীমা ইত্যাদি সহ অন্যান্য কাজ;
১৫. বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বেতন ভাতা প্রদান;
১৬. সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা প্রোগ্রামের অধীনে নগদ অর্থ প্রদান;
১৭. জনসাধারণের কাছ থেকে বিনিয়োগের আবেদন, ক্রেডিট এবং ডেবিট কার্ড অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কিত ফর্ম নথি সংগ্রহ ও প্রক্রিয়াকরণ;
১৮. বিনিয়োগ এবং বিনিয়োগ রিকভারি মনিটরিং;
১৯. আরটিজিএসের মাধ্যমে অন্য ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে অর্থ স্থানান্তর।
এছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংক অনুমোদিত যে কোনো ধরনের ব্যাংকিং সেবা নেওয়া যাবে।

ব্যাংকিং উপশাখা এর লেনদেনের সীমা
ব্যাংকিং উপশাখায় একটি নির্দিষ্ট হিসাবে দৈনিক লেনদেনের সীমা হবে নিম্নরূপ

হিসাব নগদ স্থানান্তর
ক্রেডিট (জমা) ডেবিট (উত্তোলন) ডেবিট ক্রেডিট
চলতি ও এসএনডি ৫০.০০ লক্ষ ১০.০০ লক্ষ ৫০.০০ লক্ষ ২০.০০ লক্ষ
এমএসএ (সকল ধরণের) ৩০.০০ লক্ষ .০০ লক্ষ ৩০.০০ লক্ষ ১০.০০ লক্ষ
মেয়াদী জমা (সকল ধরণের) যে কোন অংক যে কোন অংক যে কোন অংক যে কোন অংক

উপরােক্ত সীমার অতিরিক্ত লেনদেনের ক্ষেত্রে শাখা প্রধানের স্বয়ংক্রিয় অনুমােদন প্রয়ােজন হবে। তবে সকল ধরণের জমা বা উত্তোলনের ক্ষেত্রে ‘এএমএল ও সিএফটি’ বিষয়ক বিদ্যমান নিয়মাচারের সুষ্ঠু পরিপালন নিশ্চিত করতে হবে। উল্লেখ্য, ব্যবসার প্রয়ােজনে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সময় সময় উপরােক্ত সীমা হ্রাস-বৃদ্ধি করতে পারবেন।

বিস্তারিত জানতে
❏ ব্যাংকের যেকোন শাখায়/ এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট/ বুথ ব্যাংকিংয়ে যোগাযোগ করুন।
❏ ✆ কল সেন্টারঃ ১৬২৫৯ অথবা ৮৩৩১০৯০ (দেশ)/ ০০৮৮-০২-৮৩৩১০৯০ (বিদেশ) এ কল করুন।
❏ টেলিফোনঃ (০২) ৯৫৬৩০৪০ (অটো হান্টিং), ৯৫৬০০৯৯, ৯৫৬৭১৬১, ৯৫৬৭১৬২, ৯৫৬৯৪১৭
❏ টেলেক্সঃ 642525 IBANK BJ, 632403 IBANK BJ, 671620 IBANK BJ
❏ ফ্যাক্সঃ ৮৮০- ২- ৯৫৬৪৫৩২, ৮৮০- ২- ৯৫৬৮৬৩৪
❏ সুইফটঃ IBBLBDDH
❏ কেবলঃ ISLAMIBANK
❏ ইমেইলঃ [email protected]
❏ ওয়েবসাইটঃ www.islamibankbd.com

কার্টেসিঃ মোহাম্মদ শামসুদ্দীন আকন্দ, আইবিবিএল

 

Leave a Reply