করােনায় ব্যাংকিং সেবা দানে আইবিবিএল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন

0

দেশব্যাপী করােনাভাইরাস (কোভিড-১৯)-এর ঝুঁকি মােকাবেলা করে ব্যাংকিং সেবা প্রদানে নিয়ােজিত ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-এর সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন ব্যাংকের মাননীয় ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী জনাব মোঃ মাহবুব উল আলম।

আজ মঙ্গলবার ২১ এপ্রিল, ২০২০ ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-এর মাননীয় ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী জনাব মোঃ মাহবুব উল আলম স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করা হয়েছে। চিঠিটি ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-এর সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দের জ্ঞাতার্থে তুলে ধরা হলো-

করােনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরােধে সরকার কর্তৃক বিভিন্ন নির্দেশনা ইতােমধ্যে প্রদান করা হয়েছে যাতে করে বাংলাদেশের মতাে জনবহুল ও ঘনবসতিপূর্ণ দেশে নভেল করােনা ভাইরাসের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন (সামাজিকভাবে একজন থেকে আরেকজনে ছড়িয়ে পড়া) প্রতিরােধ করা যায়। বিশেষত ব্যাংকিং সেবা ও কার্যক্রমসমূহের বৈশিষ্ট্য (mode of operation) বিবেচনায় এ খাত করােনা ভাইরাসের কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের ক্ষেত্রে অত্যন্ত সংবেদনশীল।

এতদসত্ত্বেও, বাংলাদেশ ব্যাংকের বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৫ তারিখঃ ২২-মার্চ, ২০২০ এর আলােকে জরুরী ব্যাংকিং সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমরা এই ঝুঁকিপূর্ণ সময়কালেও ব্যাংকিং সেবা কার্যক্রম তথা নগদ জমা/ উত্তোলন, আমদানী-রপ্তানী, সীমিত পরিসরে বিনিয়ােগ প্রদান, শিল্প কলকারখানা শ্রমিকদের বেতন প্রদান, এটিএম মেশিনে টাকা লােড দেয়া সহ বিবিধ ব্যাংকিং কার্যক্রম সীমিত আকারে অব্যহত রেখেছি।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে গ্রাহকদের নিরবচ্ছিন্ন ব্যাংকিং সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ডাক্তার, সামরিক বাহিনী, আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী, জরুরী সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ও সাংবাদিক বন্ধুদের পাশাপাশি আমরা ব্যাংকাররাও কোভিড-১৯ নামক এই সংক্রামক ব্যাধির মােকাবেলায় সম্মুখসারির কর্মী হিসেবে কাজ করছি। আপনারা যারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে জাতির এই ক্রান্তিলগ্নে সরকার ঘােষিত ছুটির দিনগুলােতেও নানা প্রতিবন্ধকতাকে তুচ্ছ করে ব্যাংকিং কার্যক্রমকে সচল রেখেছেন, তাদের সকলকে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ। পুরাে জাতি আপনাদের এই অসামান্য অবদানের জন্য কৃতজ্ঞ।

ইতােমধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৫ এর আলােকে করােনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরােধে করণীয় বিষয়ে সার্কুলার লেটার নং এইচআরডব্লিউ/২০২০/১২৫৩৯ তারিখঃ ১৬.০৩.২০২০-এর মাধ্যমে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে এবং পরিস্থিতি মােকাবেলায় সার্কুলার লেটার নং এইচআরডব্লিউ/২০২০/১২৬৩৭ তারিখঃ ২৩.০৩.২০২০-এর মাধ্যমে প্রধান কার্যালয়ে একটি কেন্দ্রীয় কুইক রেসপন্স টিম গঠন করা হয়েছে। একইভাবে প্রতিটি জোনাল অফিসেও ‘কুইক রেসপন্স টিম’ গঠিত হয়েছে। কুইক রেসপন্স টিমের সদস্যদের নাম, পদবী, মােবাইল নম্বরসহ প্রয়ােজনীয় তথ্যাদি ব্যাংকের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। আপনারা জরুরী প্রয়ােজনে নিজ নিজ সংশ্লিষ্ট ‘কুইক রেসপন্স টিম’-এর সাথে পরামর্শ করে কাজ করবেন।

করােনা ভাইরাস প্রতিরােধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, WHO ও IEDCR কতৃর্ক প্রণীত নির্দেশনাসমূহ একীভূত করে “করােনা ভাইরাস প্রতিরােধমূলক ব্যবস্থায় করণীয় বিষয়ক লিফলেট ও এক্স-ব্যানার ব্যাংকের শাখা/ উপশাখা/ এজেন্ট আউটলেট/ জোন/ বিভাগীয়/ প্রধান কার্যালয়ে প্রদর্শনের জন্য ব্যাংকের জনসংযােগ বিভাগ কর্তৃক যথাসময়ে সরবরাহ করা হয়েছে ও ব্যাংকের ওয়েব সাইটেও প্রদর্শিত হচ্ছে। সেই সাথে সম্মানিত গ্রাহক ও ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়ােজনীয় সংখ্যক তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্র, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ঢাকনাযুক্ত ডাস্টবিন ও টিস্যু পেপার-এর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ইতােমধ্যে প্রয়ােজনীয় সংখ্যক Non-Medical Personal Protection Equipment (PPE) সরবরাহের প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আশা করছি সর্বস্তরের জনশক্তি নিজ নিজ দায়িত্ব পালনকালে এই PPE পরিধান করবেন। ফ্রন্ট লাইনে দায়িত্বে নিয়ােজিত কর্মকর্তা/ কর্মচারীবৃন্দ বিশেষত ক্যাশ কাউন্টারে কর্মরত জনশক্তি, নিরাপত্তা কর্মী ও এমসিজিদেরকে সার্বক্ষণিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার এর ব্যবহারসহ হ্যান্ড গ্লাভস, মাস্ক তথা প্রতিরােধমূলক পােষাক ব্যবহারে অধিকতর সতর্ক ও সচেতন হতে হবে। একই সাথে এটিএম বুথগুলােতেও হ্যান্ড স্যানিটাইজার-এর ব্যবস্থা রাখতে হবে।

প্রসঙ্গক্রমে আমরা এই মর্মে সকলকে অবহিত করতে চাই যে, সরকার ঘােষিত সাধারণ ছুটিকালীন ব্যাংক-এ কর্মরত কর্মকর্তা/ কর্মচারীগণের জন্য বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-১৭ তারিখঃ ১২.০৪.২০২০-এর আলােকে বিশেষ প্রণােদনা ভাতা ও বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-১৮ তারিখঃ ১৫.০৪.২০২০-এর আলােকে বিশেষ স্বাস্থ্য বীমা এবং বিশেষ অনুদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এমতাবস্থায়, সাপ্তাহিক ভিত্তিতে রেশনিং/ রােস্টারিং-এর মাধ্যমে ব্যাংকের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদেরকে নিজ নিজ ব্যক্তিগত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করে কাংখিত গ্রাহক সেবা প্রদান করার জন্য বিশেষভাবে অনুরােধ করা যাচ্ছে।

বর্তমান এই পরিস্থিতিতে আমরা সবাই সিজদাবনত চিত্তে প্রার্থনা করছি, আল্লাহপাক আমাদেরকে এবং আমাদের পরিবারের সকল সদস্যবৃন্দকে এই মহামারীর প্রকোপ থেকে রক্ষা করুন ও নিরাপদ রাখুন। আমীন।

Leave a Reply