সাম্প্রতিক ব্যাংক নিউজ

ইসলামী ব্যাংক সাফল্য ও অগ্রগতির চল্লিশ বছর

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ পিএলসি দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার প্রথম শরীআহ্ভিত্তিক ইসলামী ব্যাংক। ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে দেশের সর্বসাধারণের সহযোগিতা, সমর্থন ও ভালোবাসায় সিক্ত ইসলামী ব্যাংক আজ দেশের বৃহত্তম ব্যাংক। সুদমুক্ত ও কল্যাণমুখী ব্যাংকিং ধারার প্রবর্তক ইসলামী ব্যাংক সকল সূচকে দেশের শীর্ষ ব্যাংক। চার দশকের পথচলায় ইসলামী ব্যাংক শরীআহ ভিত্তিক ব্যাংক ব্যবস্থার সফল বাস্তবায়ন, আর্থিক অন্তর্ভুক্তি, উদ্যোক্তা উন্নয়ন, কৃষি ও ব্যবসা বাণিজ্যের উন্নয়ন, শিল্পায়ন, প্রবাসী সেবা, দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন প্রভৃতির ক্ষেত্রে জাতীয় অর্থনীতিতে অনবদ্য অবদান রেখে চলেছে।

দেশের ২ কোটির অধিক গ্রাহক আস্থার সাথে প্রায় ১ লক্ষ ৫০ হাজার কোটি টাকা জমা রেখেছেন ইসলামী ব্যাংকে যা দেশের মোট ব্যাংকিং আমানতের এক-দশমাংশ। গ্রাহকদের এই বিপুল আমানত বিনিয়োগ করা হয়েছে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি ও শিল্প উন্নয়নে। এ ব্যাংকের বিনিয়োগের মাধ্যমে কর্মসংস্থান হয়েছে প্রায় ৮৫ লক্ষ মানুষের। দেশের তৈরি পোশাক খাতের ৩৬ শতাংশ ও টেক্সটাইল খাতের ৬০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান এবং ২ হাজারের বেশি কৃষিভিত্তিক শিল্প গড়ে উঠেছে ইসলামী ব্যাংকের অর্থায়নে। দেশের ৪০ লক্ষ ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তার বিকাশ ঘটেছে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে। পল্লী উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে ইসলামী ব্যাংক এ পর্যন্ত দেশের ৩৩ হাজার গ্রামের প্রায় ১৭ লক্ষ প্রান্তিক পরিবারের মাঝে ৪৮ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ প্রদান করেছে যার ৯২ শতাংশ সুবিধাভোগী হচ্ছেন নারী।

আরও দেখুন:
◾ ইসলামী ব্যাংকের সেলফিন নম্বর পরিবর্তন করবেন যেভাবে

প্রবাসীদের বিশ্বস্ত বন্ধু ইসলামী ব্যাংক। দেশের রেমিট্যান্সযোদ্ধা প্রবাসী ভাই-বোনদের কষ্টার্জিত অর্থ ব্যাংকিং চ্যানেলে আহরণে পথিকৃতের ভূমিকা পালন করছে ইসলামী ব্যাংক। এককভাবে দেশের এক-তৃতীয়াংশ বৈদেশিক রেমিট্যান্স আহরিত হয় এ ব্যাংকের মাধ্যমে। ব্যাংকের আমদানি-রপ্তানির নিজস্ব বিল পরিশোধের পরও এ যাবত দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে ১২ বিলিয়ন ডলার যোগ করেছে ইসলামী ব্যাংক। দেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যেও সর্বাধিক অর্থায়ন করে থাকে ইসলামী ব্যাংক। নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য চাল, গম, ডাল, চিনি, ভোজ্য তেলসহ অন্যান্য পণ্য আমদানিতেও বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ প্রদান করেছে ইসলামী ব্যাংক। দেশের মোট চাহিদার সিংহভাগ সার আমদানি হয় ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে।

ব্যাংক, ব্যাংকার, ব্যাংকিং, অর্থনীতি ও ফাইন্যান্স বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবর, প্রতিবেদন, বিশেষ কলাম, বিনিয়োগ/ লোন, ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, ফিনটেক, ব্যাংকের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারগুলোর আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ 'ব্যাংকিং নিউজ', ফেসবুক গ্রুপ 'ব্যাংকিং ইনফরমেশন', 'লিংকডইন', 'টেলিগ্রাম চ্যানেল', 'ইন্সটাগ্রাম', 'টুইটার', 'ইউটিউব', 'হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেল' এবং 'গুগল নিউজ'-এ যুক্ত হয়ে সাথে থাকুন।

ইউক্রেন যুদ্ধ, বিশ্বব্যাপী পণ্যমূল্য বৃদ্ধি, দেশের রপ্তানি খাতে শ্লথ গতিসহ বিভিন্ন কারণে বর্তমানে দেশের আর্থিক খাতে এক ধরনের সংবেদনশীলতা তৈরি হয়েছে। এমন অবস্থায় ব্যাংকের বিনিয়োগকৃত অর্থ যাতে যথাযথ খাতে ব্যবহৃত হয়, সেদিকে লক্ষ্য রেখে বিনিয়োগ ব্যবস্থাপনায় বিশেষ পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। তহবিল ব্যবস্থাপনায় পেশাদারিত্ব বাড়ানো, খাত ও অঞ্চলভিত্তিক সুষম বিনিয়োগ বন্টন ও বিনিয়োগ বিতরণে নিবিড় তত্ত্বাবধান নিশ্চিত করার জন্য প্রধান কার্যালয়ের বিনিয়োগ উইংসমূহকে শক্তিশালী করা হয়েছে। গ্রামীণ জনগোষ্ঠী ও উদ্যোক্তাদের জন্য ব্যাংকের কৃষিবিনিয়োগ, পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প, নগর দারিদ্র্য উন্নয়ন প্রকল্পসহ ২৯টি কল্যানমুখী প্রকল্পের বিনিয়োগ কার্যক্রম সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

ইসলামী ব্যাংক দেশের সকল বিধিবদ্ধ আইন, নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষের নিয়ম-নীতি যথাযথভাবে পরিপালন করে আসছে। ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং রেটিং এজেন্সি ইসলামী ব্যাংকের অবদানকে মূল্যায়ন করছে। ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ক্রেডিট রেটিংধারী ব্যাংক। সিঙ্গাপুরভিত্তিক দ্য এশিয়ান ব্যাংকার ম্যাগাজিন ইসলামী ব্যাংককে ‘স্ট্রংগেস্ট ব্যাংক ইন বাংলাদেশ’ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেছে। এছাড়া বিগত ১২ বছর ধরে বিশ্বসেরা এক হাজার ব্যাংকের তালিকায় ইসলামী ব্যাংক দেশের শক্তিশালী ব্যাংক হিসেবে অবস্থান ধরে রেখেছে।

চল্লিশ বছরের পথচলায় ইসলামী ব্যাংক সব সময়ই আপন মহিমায় উজ্জ্বল। এ ব্যাংক জনসাধারণের আস্থা ও ভালোবাসায় সদা অগ্রসরমান। এ ব্যাংকে সবার গচ্ছিত আমানত সবচাইতে নিরাপদ এবং এই ব্যাংকের বিনিয়োগও প্রয়োজনমুখী খাতের জন্য অবারিত। আগামী দিনে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইসলামী ব্যাংক সর্বোচ্চ অবদান রেখে যাবে ইনশাআল্লাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

রিলেটেড লেখা

Back to top button