ফাইনাল নোটিশ ও কল ব্যাক নোটিশের মধ্যে পার্থক্য কি?

0
1176

ফাইনাল নোটিশ ও কল ব্যাক নোটিশ খুবই একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আসুন এই দুইটি বিষয় সম্পর্কে জেনে নেই। গ্রাহক যে ঋণসুবিধা গ্রহণ করেছেন তা মেয়াদোত্তীর্ণ (Expired) হবার পূর্বেই যদি দেখা যায় যে, ঋণ আদায়ের সম্ভাবনা হ্রাস পেয়েছে এবং ঋণ আদায়ের উদ্দেশ্যে আইনী প্রক্রিয়া গ্রহণ করা জরুরী, তাহলে ঋণের পুরো টাকা দাবী করে গ্রাহককে ১/৩/৫/৭/১০/১৫/৩০ দিনের (কোনো বাধা ধরা নিয়ম নেই) সময় দিয়ে যে নোটিশ দেয়া হয়, তাকেই Call Back Notice বলা হয়।

কেন Call Back Notice দেয়া উচিৎ?
ঋনহিসাব মেয়াদোত্তীর্ণ না হওয়া পর্যন্ত আসলে সম্পুর্ণ ঋনের টাকা আপনি দাবী করতে পারেন না। কারণ ঋণ প্রদানের সময় আপনি গ্রাহককে একটি Re-payment Schedule fix করে দিয়েছেন, যেটা অনুযায়ী গ্রাহক Re-payment না করলে ঋনের কিস্তি মিস করা অংশটি Overdue হবে এবং নিয়ম অনুযায়ী আপনি Overdue Claim করে Overdue Letter দিবেন। কিন্তু যদি আপনি সম্পুর্ণ ঋণের টাকা দাবী করেন তাহলে আপনাকে লিখিত নোটিশ (Call Back Notice) দিয়ে তা দাবী করতে হবে।

ঋণহিসাব মেয়াদোত্তীর্ণ না হলে কেন আপনি Call Back Notice দিবেন?
যদি দেখা যায়, ঋণহিসাবটি এখনো Expire করেনি, কিন্তু অনিয়মিত Re-payment এর কারণে ঋণহিসাবটি শ্রেণীকৃত হয়ে পড়েছে বা এমন কোন ঘটনা ঘটেছে যাতে আপনার বিশ্বাস করার যুক্তিসংগত কারণ রয়েছে যে আইনী প্রক্রিয়া ছাড়া ঋণ আদায়ের সম্ভাবনা ক্ষীণ, তাহলেই আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ বা সম্পত্তি নিলাম বিক্রয় (অর্থ ঋণ আদালত আইন, ২০০৩ এর ১২ ধারা অনুযায়ী) বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পূর্বে Call Back Notice দেয়া জরুরী।

যদি ঋণহিসাব মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে থাকে, তাহলে Call Back Notice দেয়ার প্রয়োজন নেই, সরাসরি Final Notice দিলেই চলে। আবার একবার Call Back Notice দেয়ার পর আর Final Notice ও দেয়ার প্রয়োজন নেই। কারণ এই দুই ধরণের নোটিশের মধ্যে আর কোনো মৌলিক তফাৎ নেই।

গুরুত্ত্বপূর্ণ বিষয়
যেহেতু ঋণ আদায়ের লক্ষ্যে অর্থ ঋণ আদালতে মামলা দায়েরের সময় ঋণগ্রহীতা বিবাদী ছাড়াও সকল জামিনদার ও বন্ধকদাতাদের বিবাদী করে মামলা দায়ের করতে হয়, কাজেই Final Notice বা Call Back Notice উভয়ের ক্ষেত্রেই সকল বিবাদীগণ, সকল জামিনদার, সকল বন্ধকদাতাকে Notice এর Copy অবশ্যই দেয়া উচিৎ।

কার্টেসিঃ Mybank Bd

Leave a Reply