চেইন ব্যাংকিং এর বৈশিষ্ট্য সমূহ

0
1528

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশঃ কতিপয় ব্যাংক যখন পৃথক সত্তা বজায় রেখে একটি যৌথ পরিচালনায় বিশেষ কৌশলের মাধ্যমে একীভূত হয় তখন উক্ত ব্যাংকগুলোকে সমষ্টিগত ভাবে চেইন ব্যাংকিং বলে৷ চেইন ব্যাংকিং এ যেসব বৈশিষ্ট্য লক্ষ্য করা যায় তা নিম্নরূপে আলোকপাত করা হলো-

১) Separate name and independent entity (পৃথক নাম ও স্বাধীন সত্তা)
পারস্পরিক সহযোগিতার উদ্দেশ্যে চেইন ব্যাংকিং এর প্রতিটি সদস্য একত্রে নির্ভরশীল কার্যক্রম পরিচালনা করলেও এদের প্রত্যেকের পৃথক নাম ও স্বাধীন আইনগত সত্তা বজায় থাকে৷ অর্থাৎ প্রতিটি ব্যাংক নিজস্ব নামে পরিচালিত হয়ে থাকে এবং কোন সমস্যায় একটি ব্যাংক অপর ব্যাংকের নামে মামলা করতে পারে৷

২) Management and control (পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণ)
চেইন ব্যাংকিং এর প্রতিটি সদস্য ব্যাংকের পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণ নিজ নিজ ব্যাংকের পরিচালনা পরিষদ ও অধীনস্থ কর্মকর্তাদের হাতে ন্যস্ত থাকে৷ অনেক সময় ব্যাংকগুলো পারস্পরিক সহযোগিতা বিশ্বস্থতা বৃদ্ধির জন্য সামগ্রিকভাবে একটি নমনীয় নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালনা বোর্ড গঠন করতে পারে৷ তবে একটি ব্যাংকের পরিচালনা পরিষদের সদস্য মালিকানার ভিত্তিতে অন্য ব্যাংকের পরিচালক হিসেবেও কার্য পরিচালনা করতে পারে৷

৩) Objectives (উদ্দেশ্য)
এ সকল ব্যাংকের প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে পারস্পরিক ক্ষতিকর প্রতিযোগিতায় হ্রাস করে ঐক্যবদ্ধভাবে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করে সেবার মান উন্নয়ন করা৷ এ উদ্দেশ্য প্রতিটি ব্যাংকের পারস্পরিক বিশ্বস্ততা অতি সহজে কার্য বিভাগীকরণ, দক্ষতা, মিতব্যয়িতা, দ্রুত কার্য সম্পাদন সফল হয়৷

৪) Informal relation (অনানুষ্ঠানিক সম্পর্ক)
চেইন ব্যাংকিং ব্যবস্থায় প্রতিটি ব্যাংকের সাথে অন্য ব্যাংকসমূহের অনানুষ্ঠানিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ ব্যবস্থায় সম্পৃক্ত ব্যাংকসমূহ পারস্পরিক সহযোগিতার কেবল মৌখিক প্রতিশ্রুতি প্রদান করে। কিন্তু সে প্রতিশ্রুতি একটি ব্যাংক রাখতেও পারে বা ভঙ্গ করতে পারে। প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের জন্য এক ব্যাংক অন্য কোন ব্যাংককে আইনানুগভাবে জবাবদিহি করতে পারে না এবং কোন কার্য সম্পাদনের জন্য বাধ্যবাধকতা ও সৃষ্টি করতে পারে না।

৫) Speed in work (কার্য সম্পাদনের দ্রুততা)
এ জাতীয় ব্যাংকিং ব্যবস্থায় দৈনন্দিন পারস্পরিক কার্য সম্পাদনের গতি ত্বরান্বিত করে। ফলশ্রুতিতে সামগ্রিক ব্যাংকিং ব্যবস্থায় সেবার মান উন্নততর হয় এবং প্রতিটি ব্যাংকের কার্য পরিচালনার দক্ষতা বৃদ্ধি পায়। তাছাড়া যে কোন সমস্যায় একটি ব্যাংক অন্য ব্যাংকসমূহের সাহায্য পায় বিধায় কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ কার্য সম্পাদনে অধিক উৎসাহিত হয়ে থাকেন৷

Leave a Reply