পরিবার সঞ্চয়পত্র কী? কিভাবে কিনবেন পরিবার সঞ্চয়পত্র

0
1454

মধ্যবিত্ত জীবনে সাধ আর সাধ্যের টানাপোড়েন লেগেই থাকে। এর মধ্যেই তিল তিল করে জমা হয় কিছু সঞ্চয়। কখনো সম্পদ বিক্রির টাকা, কখনো পেনশন, এফডিআর অথবা প্রবাসী স্বজনের পাঠানো অর্থে আসে কিছু বিনিয়োগের সুযোগ ও সুবিধা। কিন্তু বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া তো সহজ ব্যাপার নয়। পদে পদে ঝক্কি, লোকসান কিংবা প্রতারণার ঝুঁকি লেগেই আছে। তাই অনেকেই এ ঝুঁকি নিতে চান না। মুনাফা কম হলেও হন্যে হয়ে নিরাপদ বিনিয়োগের ক্ষেত্র খুঁজতে থাকেন। তাদের জন্য পরিবার সঞ্চয়পত্র হতে পারে আদর্শ বিকল্প একটি বিনিয়োগ। আপনাদের জন্য পরিবার সঞ্চয়পত্র সংক্রান্ত কিছু তথ্য তুলে ধরা হলো-

পরিবার সঞ্চয়পত্র
পাঁচ বছর মেয়াদী এই সঞ্চয়পত্রে মেয়াদ শেষে সুদ পাওয়া যায় ১১ দশমিক ৫২ শতাংশ হারে। আর মেয়াদ পূর্তির আগে নগদায়ন করলে প্রথম বছর শেষে সাড়ে ৯ শতাংশ, দ্বিতীয় বছর শেষে ১০ শতাংশ, তৃতীয় বছর শেষে সাড়ে ১০ শতাংশ ও চতুর্থ বছর শেষে ১১ শতাংশ হারে মুনাফা পাওয়া যায়।

পরিবার সঞ্চয়পত্রের বিক্রয় কেন্দ্র
বাংলাদেশ ব্যাংকের সকল শাখা অফিস, সকল বাণিজ্যিক ব্যাংক, জাতীয় সঞ্চয় পরিদপ্তরের অধীন ৭১টি সঞ্চয় ব্যুরো অফিস এবং সারাদেশে ডাকঘরে সঞ্চয়পত্র কিনতে পাওয়া যায়।

পরিবার সঞ্চয়পত্র যারা ক্রয় করতে পারবেন
পরিবার সঞ্চয়পত্র ১৮ বা তার চেয়ে বেশি বয়সী যে কোনো বাংলাদেশী মহিলা, যে কোনো বাংলাদেশী শারীরিক প্রতিবন্ধী (পুরুষ ও মহিলা) এবং ৬৫ ও তার বেশি বয়সের যে কোনো বাংলাদেশী নাগরিক (পুরুষ/মহিলা) শুধু একক নামে কিনতে পারেন।

পরিবার সঞ্চয়পত্র কেনার সীমা ও মেয়াদ
❏ পরিবার সঞ্চয়পত্র কেনার গ্রহণযোগ্য সর্বোচ্চ পরিমাণঃ চাইলেই যে কোনো পরিমাণ টাকার সঞ্চয়পত্র কেনা যায় না। সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের সীমা বেঁধে দেওয়া আছে। পরিবার সঞ্চয়পত্র কেবল একক নামে কেনা যায়। এই সঞ্চয়পত্রের অনুমোদিত সর্বোচ্চ সীমা যথাক্রমে ৪৫ লাখ টাকা।
❏ পরিবার সঞ্চয়পত্র কেনার সর্বনিম্ন সীমাঃ ১০ হাজার টাকা।
❏ পরিবার সঞ্চয়পত্রের মেয়াদঃ ৫ বছর।
❏ আবেদন ফরমঃ পরিবার সঞ্চয়পত্রের ফরম পেতে ক্লিক করুন এখানে

পরিবার সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার ও উৎসে কর
❏ মুনাফার হার- ১১.৫২% মেয়াদান্তে।
❏ ১ লক্ষ টাকায় প্রতি মাসে প্রদেয় মুনাফা সর্বমােট বিনিয়ােগ ৫ লাখ টাকার কম হলে ৯১২/= ও উৎসে কর কর্তন ৫%।
❏ বিনিয়ােগের পরিমাণ ৫ (পাঁচ) লাখ টাকার বেশি হলে প্রতি মাসে প্রদেয় মুনাফা ৮৬৪/= ও উৎসে কর কর্তন ১০%।

পরিবার সঞ্চয়পত্রের প্রয়ােজনীয় কাগজপত্র
❏ ক্রেতার জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদ অথবা পাসপোর্টের ফটোকপি।
❏ ক্রেতার ই টিন সার্টিফিকেটের ফটোকপি (এক লাখ টাকার উপরে হলে)।
❏ ক্রেতার ছবি দুই (০২) কপি।
❏ নমিনীর জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।
❏ নমিনীর দুই কপি ছবি (ক্রেতা কর্তৃক সত্যায়িত)।
❏ যে চেকের মাধ্যমে বিনিয়ােগের টাকা দিবেন সেটি ও তার ফটোকপি।

ছক-১: পরিবার সঞ্চয়পত্রের বছরভিত্তিক প্রদেয় মুনাফার হার
নগদায়ন কাল মুনাফার হার
১ম বছরান্তে ৯.৫০%
২য় বছরান্তে ১০.০০%
৩য় বছরান্তে ১০.৫০%
৪র্থ বছরান্তে ১১.০০%
৫ম বছরান্তে ১১.৫২%

পূর্ণমেয়াদের জন্য ১ (এক) লক্ষ টাকায় প্রতি মাসে মুনাফার কিস্তি সর্বোচ্চ ১১.৫২% হারে টাকা ৯৬০.০০ (নয়শত ষাট) মাত্র প্রদেয় হবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে উৎসে আয়কর কর্তন/লেভী কর্তন হবে। কিন্তু যেক্ষেত্রে মেয়াদ উত্তীর্ণ হবার পূর্বে বিনিয়োগকৃত টাকা উত্তোলন করা হবে, সেক্ষেত্রে উপরের ছক-১ (পরিবার সঞ্চয়পত্রে বছরভিত্তিক প্রদেয় মুনাফার হার)-এ প্রদর্শিত বছরভিত্তিক হারে মুনাফা প্রদেয় হবে এবং অতিরিক্ত অর্থ পরিশোধিত হয়ে থাকলে তা মূল টাকা হতে কর্তন করে সমন্বয়পূর্বক অবশিষ্ট মূল টাকা পরিশোধ করতে হবে।

ছক-২: বিভিন্ন মূল্যমানের সঞ্চয়পত্রে মাসিক ভিত্তিতে প্রদেয় মুনাফার পরিমাণঃ
বিনিয়োগের পরিমাণ  (টাকায়) মাসিক ভিত্তিতে প্রদেয় মুনাফার পরিমাণ (টাকায়)
(ক)     ১০,০০০.০০ ৯৬.০০
(খ)     ২০,০০০.০০ ১৯২.০০
(গ)     ৫০,০০০.০০ ৪৮০.০০
(ঘ)     ১,০০,০০০.০০ ৯৬০.০০
(ঙ)     ২,০০,০০০.০০ ১,৯২০.০০
(চ)     ৫,০০,০০০.০০ ৪,৮০০.০০
(ছ)     ১০,০০,০০০.০০ ৯,৬০০.০০

মাসিক মুনাফা উত্তোলনের পর ৫ (পাঁচ) বছর মেয়াদ শেষে মূল বিনিয়োগকৃত অর্থ ফেরত পাওয়া যাবে। মেয়াদপূর্তির পূর্বে সঞ্চয়পত্র নগদায়ন করলে গৃহীত মাসিক মুনাফা কর্তনপূর্বক অবশিষ্ট অর্থ ফেরত দেওয়া হবে।

ছক-৩: মেয়াদপূর্তির পূর্বে নগদায়নের ক্ষেত্রে ১ (এক) লক্ষ টাকায় ফেরতযোগ্য টাকার পরিমাণঃ
সময়সীমা মাসিক মুনাফা উঠাইয়া বিনিয়োগকৃত অর্থ ফেরত গ্রহণ করলে প্রাপ্য টাকার পরিমাণ
১ম বৎসর চলাকালীন ১,০০,০০০ – গৃহীত মুনাফা
২য় বৎসর চলাকালীন ১,০৯,৫০০- গৃহীত মুনাফা
৩য় বৎসর চলাকালীন ১,২০,০০০- গৃহীত মুনাফা
৪র্থ বৎসর চলাকালীন ১,৩১,৫০০ – গৃহীত মুনাফা
৫ম বৎসর চলাকালীন ১, ৪৪,০০০ – গৃহীত মুনাফা

অন্যান্য উল্লেখ্যযোগ্য বিষয়াবলী
❏ মাসিকভিত্তিতে মুনাফা প্রদেয়;
❏ নমিনী নিয়োগ করা যায়;
❏ হারিয়ে গেলে, পুড়ে গেলে বা নষ্ট হলে ডুপ্লিকেট সঞ্চয়পত্র ইস্যু করা যায়;
❏ সঞ্চয়পত্র এক স্থান হতে অন্য স্থানে স্থানান্তর করা যায়;
❏ সঞ্চয়পত্র ব্যাংক ঋণের জন্য জামানত/আমানত হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না;
❏ ব্যবসা-বানিজ্যে সঞ্চয়পত্র জামানত হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না।

Leave a Reply