ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং

0
625

ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড বর্তমানে সারা দেশ জুড়ে বিস্তৃত শাখা নেটওয়ার্কের সাথে কাজ করছে। তারপরও অনেক এলাকায় আর্থিক লেনদেন সুবিধা দিতে পারেনি। ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে ঐ সকল এলাকায় প্রবেশ করা এবং জন সাধারণকে ব্যাংকিং সেবা দেয়া। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড অগণিত বিপুলসংখ্যক আনব্যাংক জনগোষ্ঠীকে ব্যাংকিং সেবায় যুক্ত করার সুযোগ আনবে। শিল্প উন্নয়ন, আইটি ইনফ্রাস্ট্রাকচার, দক্ষ কর্মক্ষম কাঠামো, সুদৃঢ় আর্থিক শক্তি এবং অসামান্য ব্যবস্থাপনায় ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড দেশের উন্নয়নে এজেন্ট নেটওয়ার্কের মাধ্যমে অনলাইন ব্যাংকিং অভিজ্ঞতা বাড়ানোর জন্য সারা দেশে বিপুল সংখ্যক এজেন্ট পরিচালনা করায় এক ধাপ এগিয়ে যাচ্ছে।

ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের সুবিধা
ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের আওতায় নিম্নলিখিত সুবিধা/সেবা সমূহ পাওয়া যাবে-
● সঞ্চয়ী ও চলতি হিসাব খোলা;
● স্কুল ব্যাংকিং হিসাব খোলা;
● মাসিক সঞ্চয়ী হিসাব খোলা;
● মেয়াদী সঞ্চয়ী হিসাব খোলা;
● নগদ জমা ও উত্তোলন;
● ফান্ড ট্রান্সফার (ইবিএল এর যে কোন হিসাবে);
● EFTN এর মাধ্যমে ফান্ড ট্রান্সফার (যে কোন ব্যাংকের হিসাবে);
● বৈদেশিক রেমিটেন্স এর অর্থ প্রদান;
● বিদ্যুৎ বিল প্রদান;
● পাসপোর্ট ফি গ্রহন;
● ক্ষুদ্র ও মাঝারি ঋণ প্রদান;
● ভোক্তা ঋণ প্রদান;
● কৃষি ঋণ প্রদান;
● ডেবিট কার্ড প্রদান;
● চেক বুক ইস্যু সুবিধা;
● ফ্রি ইন্টারনেট ব্যাংকিং;
● ফ্রি এসএমএস ব্যাংকিং;
● ব্যাংকিং সকল কার্যক্রম ও অন্যান্য সুবিধা প্রদান।

ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং এর জন্য যোগ্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান
ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং নিম্নলিখিত যোগ্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে থাকে-
● আইটি ভিত্তিক আর্থিক সেবা পরিচালনা করতে সক্ষম শিক্ষিত ব্যক্তি;
● ফার্মেসী, দোকান এবং পেট্রোল পাম্প/ গ্যাস স্টেশনের মালিক;
● এজেন্টকে আর্থিকভাবে সচ্ছল এবং যথেষ্ট নগদ লেনদেনের ক্ষমতা থাকতে হবে;
● ব্যাক্তিগত প্রতিষ্ঠান
● একক মালিকানা
● অংশীদারী ব্যবসা
● মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরের এজেন্ট।

ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং এ যারা এজেন্ট হতে পারবেন
ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে নিম্নলিখিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এজেন্ট হতে পারবেন-
● এজেন্টকে স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে (এনআইডি/ পাসপোর্ট অনুযায়ী)
● এজেন্টের কাছে এজেন্ট ব্যাংকিং পরিচালনার জন্য পর্যাপ্ত অবকাঠামো থাকতে হবে।
● এজেন্ট ঋণ খেলাপি হতে পারবেনা এবং কোন সিভিল বা ফৌজদারি আদালত দ্বারা দণ্ডিত হওয়া যাবেনা।

ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং এ এজেন্টের দায়-দায়িত্ব
ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে এজেন্টকে নিম্নলিখিত দায়-দায়িত্ব পালন করতে হবে-
● এজেন্টকে সৎ, পেশাদারী এবং নৈতিকতা সম্পন্ন হতে হবে;
● এজেন্ট তার দায়িত্ব সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান থাকতে হবে এবং এজেন্ট ব্যাংকিং গ্রাহককে সকল সেবা প্রদান করতে হবে;
● ইলেকট্রনিক ডিভাইসের রক্ষণাবেক্ষণ (কম্পিউটার, পিওএস প্রিন্টার, ফিঙ্গার প্রিন্ট মেশিন ইত্যাদি) এবং এগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে;
● এজেন্ট সব ধরনের লেনদেন রেকর্ড, প্রমাণ এবং কাজের সংরক্ষণ করবে;
● এজেন্ট তার বুথে এজেন্ট ব্যাংকিং সেবার চার্জ প্রদর্শন করবে;
● এজেন্ট সব ধরণের অডিট করতে আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করবে;
● ছোট ছোট ঋণ বিতরণ এবং কিস্তি আদায় করতে হবে;
● ক্লিয়ারিং এর জন্য চেক গ্রহন;
● বেতন, পেনশন স্কিম এবং অন্যান্য গ্র্যাচুইটি সেবা প্রদান;
● প্রয়োজনীয় ব্যাংকিং ই-মেইল ও চিঠি সংগ্রহ ও সংরক্ষণ।

ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং এ এজেন্টরা যেসব কার্যক্রম করতে পারবে না
ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে এজেন্টরা নিম্নলিখিত কার্যক্রম করতে পারবে না-
● এজেন্ট গ্রাহকদের জন্য নির্ধারিত চার্জ ছাড়া অন্য কোন চার্জ প্রয়োগ করতে পারবে না;
● এজেন্ট ব্যাংক এশিয়ার অনুমোদন ছাড়া অন্য কোন সেবা প্রদান করতে পারবে না;
● এজেন্ট আঙ্গুলের ছাপ ও কার্ড ব্যতীত চেক দ্বারা কোন লেনদেন করতে পারবে না;
● আর্থিক লেনদেনের পরিপ্রেক্ষিতে এজেন্ট গ্রাহকদের কাছ থেকে অ্যাকাউন্টের বিবরণ এবং গ্রাহকের PIN নম্বর সহ কোন ধরনের ব্যক্তিগত তথ্য জিজ্ঞাসা করতে পারবে না;
● এজেন্ট কোনও লিখিত অনুমতি ছাড়া ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের পাশে অন্য কোনও ব্যাংকিং ব্যবসার সাথে জড়িত হতে পারবে না;
● এজেন্ট তাদের পক্ষে সাব-এজেন্ট নিয়োগ করতে পারবে না;
● এজেন্ট কোন বিদেশী রেমিটেন্স সরাসরি লেনদেন করতে পারবে না;
● যে কোনও লেনদেনের উপর সীমাবদ্ধতা ব্যতীত এজেন্টকে ইবিএল এর নির্দেশিকা অনুসরণ করতে হবে।

ইবিএল এজেন্ট ব্যাংকিং এর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
আবেদন পত্রের সাথে নিম্নলিখিত দলিলাদি সংযুক্ত করতে হবে-
১. সম্পূর্ণভাবে পূরণকৃত আবেদনপত্র,
২. আবেদনকারীর ২(দুই) কপি পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি,
৩. নবায়নকৃত ট্রেড লাইসেন্সের সত্যায়িত ফটোকপি (যদি থাকে)
৪. TIN সার্টিফিকেটের সত্যায়িত ফটোকপি,
৫. এজেন্টের CIB রিপোর্ট।
৬. এজেন্ট ফিটনেস সার্টিফিকেট।
৭. পুলিশ ভেরিফিকেশন রিপোর্ট।
৮. VAT রেজিস্টেশন সার্টিফিকেটের সত্যায়িত ফটোকপি, (প্রযোজ্য হলে),
৯. ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের গত এক (০১) বছরের ব্যাংক হিসাবের বিবরনী,
১০. জাতীয় পরিচয় পত্রের সত্যায়িত ফটোকপি,
১১. সাইনবোর্ড সহ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের ফটোগ্রাফ,
১২. ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের লোকেশন ম্যাপ,
১৩. বিদ্যুৎ/ গ্যাস বিলের ফটোকপি,
১৪. দোকান/ অফিস ভাড়ার চুক্তিপত্র,
১৫. পরিচালক মন্ডলী বা অংশীদারগণের সম্মতিপত্র (প্রযোজ্য হলে),
১৬. পরিচয় প্রদানকারীর স্বাক্ষর ও সীল,
১৪. অংশীদারিত্ব চুক্তিনামা বা মেমোরেন্ডামের ফটোকপি (প্রযোজ্য হলে)।

বিস্তারিত জানতে
● ব্যাংকের যেকোন শাখায় যোগাযোগ করুন।
● অথবা ✆ কল সেন্টারঃ ১৬২৩০ এ কল করুন।
● অথবা ইমেইল করুনঃ [email protected]

Leave a Reply