ব্যাংক নির্বাহী

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক হলেন ওবায়েদ উল্যা চৌধুরী

বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংক পরিদর্শন বিভাগের মো. ওবায়েদ উল্যা চৌধুরী পদোন্নতি পেয়ে পরিচালক হয়েছেন। আগে তিনি ব্যাংক পরিদর্শন বিভাগ-৫ এর অতিরিক্ত পরিচালক ছিলেন।

ওবায়েদ উল্যা চৌধুরী পরিচালক পদে ৪ ডিসেম্বর পদোন্নতি পেয়েছেন বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব কমিউনিকেশনস অ্যান্ড পাবলিকেশন্স থেকে গণমাধ্যমকে রোববার (১১ ডিসেম্বর, ২০২২) জানানো হয়েছে।

আরও দেখুন:
বিভিন্ন ব্যাংকের নির্বাহী

ওবায়েদ উল্যা চৌধুরী ১৯৯৯ সালে ২৪ মার্চ সহকারী পরিচালক (জেনারেল) হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকে যোগদান করেন। ফাউন্ডেশন ট্রেনিং শেষে তদানীন্তন ব্যাংক পরিদর্শন বিভাগ-১ (সরকারি ব্যাংক উপবিভাগ) এ যোগদান করেন তিনি। পরবর্তীতে একাউন্টস অ্যান্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্ট, ব্যাংক পরিদর্শন বিভাগ-১ (বেসরকারি ব্যাংক উপবিভাগ) ও ব্যাংক পরিদর্শন বিভাগ-৫ এ অতিরিক্ত পরিচালক পদে দায়িত্ব পালন করেন।

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ (A Platform for Bankers Community) প্রিয় পাঠকঃ ব্যাংকিং বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ লাইক দিন এবং ফেসবুক গ্রুপ ব্যাংকিং ইনফরমেশন এ জয়েন করে আমাদের সাথেই থাকুন।

এ ছাড়াও তিনি ইক্যুইটি অ্যান্ড অন্ট্রাপ্রেনারশিপ ফান্ড ইউনিট এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটিতে প্রেষণে প্রায় আট বছর দায়িত্ব পালন করেছেন।

পেশাগত প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে তিনি সিঙ্গাপুরে বিজনেস প্রসেস রি-ইঞ্জিনিয়ারিং এবং মালয়েশিয়া ও ভারতে অ্যালায়েন্স ফর ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন (এএফআই) আয়োজিত কৃষি ও ক্ষুদ্র ঋণ কর্মসূচি সম্পর্কিত বিষয়ে প্রায়োগিক প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।

ওবায়েদ সম্পূর্ণ শিক্ষা জীবনেই যথেষ্ট কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগ থেকে সম্মানসহ প্রথম শ্রেণিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট থেকে কৃতিত্বের সাথে ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের ওপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি ইনস্টিটিউট অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের একজন ডিপ্লোম্যাট এ্যাসোসিয়েট।

তিনি ১৯৬৮ সালের ১ অক্টোবর নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি থানাধীন নবগ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি এক কন্যা ও দুই পুত্র সন্তানের জনক।

রিলেটেড লেখা

Leave a Reply

Back to top button