কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সব ব্যাংকে অভিন্ন সফটওয়্যার চালুর সিদ্ধান্ত

0
1339

প্রয়োজনমতো তথ্য সংগ্রহ, পর্যবেক্ষণ ও পরিদর্শন কার্যক্রম শক্তিশালী করতে সব ব্যাংকে অভিন্ন (ইউনিফর্ম) ব্যাংকিং সফটওয়্যার ব্যবহার করা হবে। এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গাইডলাইন চূড়ান্ত করতে এরই মধ্যে তিনটি ব্যাংক পরিদর্শন করেছে সংশ্লিষ্ট বিভাগ। বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে এমন তথ্য।

মূলত ব্যাংকগুলো বর্তমানে তাদের সফটওয়্যারে থাকা তথ্যের বিন্যাস এবং কোন ধরনের তথ্য রাখা হচ্ছে, এ সম্পর্কে ধারণা নিতে ব্যাংকগুলো পরিদর্শন করা হয়েছে। সেই অভিজ্ঞতা ও প্রয়োজন অনুযায়ী সব তথ্য সন্নিবেশ করে সব ব্যাংকের জন্য ইউনিফর্ম ব্যাংকিং সফটওয়্যারের মডিউল তৈরি করা হবে। পরিদর্শন দলের তথ্যের ভিত্তিতে আরও কয়েকটি ব্যাংক পরিদর্শন করা হবে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংক বিভিন্ন সময়ে ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে অনেক তথ্য নিয়ে থাকে। এর মধ্যে কিছু তথ্য নেওয়া হয় নিয়মিত আকারে, যা দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক, মাসিক ও ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে নিয়ে থাকে। এর বাইরে প্রয়োজনের আলোকে কিছু তথ্যের চাহিদা দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।

সূত্র জানিয়েছে, ব্যাংকগুলো নিয়মিত এর বাইরে অনেক তথ্য কেন্দ্রীয়ভাবে সংরক্ষণ করে না। তথ্য থাকার পরও একত্রে রাখা হয় না। বাংলাদেশ ব্যাংকের চাহিদা অনুযায়ী নতুন করে তথ্য সংগ্রহ করে প্রতিবেদন আকারে জমা দেয়। এতে অনেক ব্যাংক বেশি সময় নেয়। এ নিয়ে কয়েকটি বৈঠকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কর্মকর্তাদের মতবিরোধও হয়েছিল। একটি ইস্যুতে ব্যাংকাররা জানিয়েছিলেন, ‘আমাদের ব্যাংকগুলোর কেন্দ্রীয় সফটওয়্যারে এসব তথ্য সংরক্ষণ করা হয় না। আলাদাভাবে সংরক্ষণ করা হয়। এজন্য ওই সময়ে একটি ইস্যুতে তথ্য সংগ্রহের পরিমাণ কমিয়ে দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক।’

এরই আলোকে দেশের ব্যাংকগুলোর ওপর পর্যবেক্ষণ কাজ সহজীকরণ ও পরিদর্শন কাজকে আরও গতিশীল করতে এমন উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ব্যাংকগুলোতে প্রযুক্তির ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এজন্য ব্যাংকগুলো বিভিন্ন কোম্পানি ও নিজস্ব জনবল দিয়ে প্রয়োজনমতো সফটওয়্যার ব্যবহার করছে। কিন্তু সব সফটওয়্যারের তথ্যের বিন্যাস ও মডিউল এক ধরনের হয় না। কোন তথ্য কোথায় রাখা হচ্ছে, তা খুঁজে খুঁজে বের করতে হয়।

আবার সব তথ্যও রাখছে না সব ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রয়োজনীয় তথ্যের বাইরে, ব্যাংক নিজ প্রয়োজনেও তথ্য সংরক্ষণ করছে। সব ব্যাংকের প্রয়োজনীয়তা একরকম নয়। এক এক ব্যাংক ভিন্ন ভিন্ন বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। এতে তথ্যের বিন্যাস আলাদা আলাদা হচ্ছে। এতে পরিদর্শনকাজে বিঘেœর সৃষ্টি হচ্ছে। কিছু তথ্য অনলাইনে পাওয়া না গেলে, নথি দেখতে হচ্ছে। পুরোনো নথি খুঁজে বের করতেও সময়ের প্রয়োজন হয়। এজন্য ব্যাংকিং কাজ সহজ ও পরিদর্শনের কাজে গতি আনতে সব ব্যাংকে ইউনিফরম ব্যাংকিং সফটওয়্যার ব্যবহারের চিন্তা করছে বাংলাদেশ ব্যাংক বলে জানান তিনি।

নতুন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে, সব ব্যাংকে একই মডিউলের সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে। যাতে সব তথ্য সন্নিবেশিত থাকবে। এর ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক চাহিদামতো তথ্য দ্রুত নিতে পারে। এছাড়া ব্যাংক ও শাখা পরিদর্শনকালে পরিদর্শকদলের কাজ সহজ হবে।

জানা গেছে, বর্তমানে ব্যাংকগুলোর কেন্দ্রীয় সফটওয়্যারে কত ধরনের তথ্য সংগ্রহ করা হয়, তা জানতে পরিদর্শন কার্যক্রম চালাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এরই মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি পরিদর্শন দল বেসরকারি খাতের তিনটি ব্যাংক পরিদর্শন করেছে। তাদের পরিদর্শন শেষে আরও কয়েকটি ব্যাংক পরিদর্শনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, পরিদর্শন কাজ শেষে পর্যালোচনা করবে সংশ্লিষ্ট কমিটি। রাষ্ট্রীয় ও বেসরকারি খাতের সব ব্যাংক যাতে একই মডিউলের সফটওয়্যার ব্যবহার করে, এ-সংক্রান্ত গাইড লাইন দেওয়া হবে। এতে ব্যাংকগুলোর সফটওয়্যার কোম্পানি ও ভার্সন আলাদা হলেও তথ্যের বিন্যাস মোটামুটি একই ধরনের হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, পরিদর্শন কার্যক্রম শেষ হলেও এ-সংক্রান্ত পূর্ণাঙ্গ ধারণাপত্র তৈরি করা হবে। এতে পরিদর্শন কৌশলও নির্ধারণ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক, যাতে সহজেই কোনো তথ্য যাচাই করে দেখা যায়।

সফটওয়্যার মডিউল তৈরি শেষ হলে এ-সংক্রান্ত গাইডলাইন তৈরি করা হবে। জানা গেছে, এছাড়া ব্যাংক পরিদর্শনকালে পরিদর্শক দলের সদস্যদেরও সেভাবে নির্দেশনা দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোর্সঃ শেয়ার বিজ নিউজ

Leave a Reply