1. bankingnewsbd@gmail.com : ব্যাংকিং নিউজ : ব্যাংকিং নিউজ
  2. mosharafnbl@yahoo.com : মোশারফ হোসেন : মোশারফ হোসেন
  3. msakanda@yahoo.com : ইবনে নুর : ইবনে নুর
  4. shafiqueshams@gmail.com : Shamsuddin Akanda : Shamsuddin Akanda
  5. surjoopathik@ymail.com : শরিফুল ইসলাম : শরিফুল ইসলাম
  6. tasniapopy@gmail.com : তাসনিয়া তাবাসসুম : তাসনিয়া তাবাসসুম



ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং

  • প্রকাশিত: রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

লেনদেন করুন আস্থার সাথে, আমরা আছি আপনার পাশে। এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড চালু করেছে এজেন্ট ব্যাংকিং। ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং দিচ্ছে নতুন অ্যাকাউন্ট খােলা, বিদেশ থেকে টাকা পাঠানাে, টাকা জমা ও উত্তোলন, ঋণ প্রদান সহ আরও নানা সুবিধা। দেশজুড়ে হাজারাে এজেন্ট ব্যাংকিং বুথ নিয়ে আস্থার নির্ভরতায় ব্র্যাক ব্যাংক এখন আপনার পাশে। তাই লেনদেন এখন আরও সহজ আর নিরাপদ।

এজেন্ট ব্যাংকিং কি?
টেলার বা ক্যাশিয়ারের পরিবর্তে বৈধ এজেন্সি চুক্তির অধীনে এজেন্ট নিযুক্ত করার মাধ্যমে ব্যাংকিং সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠির কাছে সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং ও অর্থিক সেবা প্রদানই হলো এজেন্ট ব্যাংকিং। আউটলেটের মালিক একটি ব্যাংকের পক্ষে ব্যাংকিং লেনদেন সম্পন্ন করেন।

এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ইতিহাস
বেশ কয়েকটি উন্নয়নশীল দেশে এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থা গ্রহণ ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে বিভিন্ন স্তরের সাফল্য পাওয়া গেছে। এক্ষেত্রে ব্রাজিলকেই অন্যান্য দেশের মধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে বলে মনে করা হয়। ব্রাজিল এজেন্ট ব্যাংকিং মডেল শুরুর দিকেই গ্রহণ করেছে এবং বছরের পর বছর কার্যক্রম চালানোয় এজেন্ট ব্যাংকিং নেটওয়ার্ক পুরোপুরি বিকশিত হয়ে বর্তমানে দেশটির ৯৯% এর বেশি পৌরসভা জুড়ে এই সেবা পরিচালিত হচ্ছে। মেক্সিকো, পেরু, কলম্বিয়া, ইকুয়েডর, ভেনেজুয়েলা, আর্জেন্টিনা, বলিভিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, কেনিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, উগান্ডা, ভারতসহ অনেক দেশ পরবর্তীতে এটি অনুসরণ করে।

ব্র্যাক ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ধারণা
অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ডিজিটাল ব্যাংকিং ব্যবস্থা ও ব্যাংকের এসএমই ব্যবসায়িক কৌশলের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বাংলাদেশের প্রতিটি স্থানে পৌঁছাতে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড এর এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা চালু করে। লক্ষ্য, নতুন এই ডিজিটাল সক্ষমতার মাধ্যমে ২৪ ঘণ্টা ব্যাংকিং সেবা প্রদান করে জনজীবনে স্বাচ্ছন্দ্য নিয়ে আসা। এজেন্ট ব্যাংকিংকে বিস্তৃত বিতরণ চ্যানেল হিসেবে গড়ে তুলতে ব্যাংক তার এসএমই ক্ষেত্রের অভিজ্ঞতা ব্যবহার করে। দেশের ব্যাংকিং সুবিধা থেকে বঞ্চিত জনগোষ্ঠিকে স্মার্ট ব্যাংকিং সেবা প্রদানে এজেন্ট ব্যাংকিং হবে ব্র্যাক ব্যাংকের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ, যা দেশজুড়ে আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকে জোরদার করবে। বাংলাদেশের ব্যাংকিং শিল্পে এজেন্ট ব্যাংকিং মোটামুটি নতুন ধারণা, যার মাধ্যমে ব্যাংকের শাখার পরিধির বাইরে থাকা গ্রাহকরা সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং সেবা পাবেন।

ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ (A Platform for Bankers Community) প্রিয় পাঠকঃ ব্যাংকিং বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ব্যাংকিং নিউজ বাংলাদেশ এ লাইক দিন এবং ফেসবুক গ্রুপ ব্যাংকিং ফর অল এ জয়েন করে আমাদের সাথেই থাকুন।

এই ব্যবস্থায় এজেন্সি চুক্তির অধীনে একজন এজেন্ট নিযুক্ত করা হবে, যিনি ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের একজন প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করবেন এবং ব্যাংকের পক্ষে লেনদেন পরিচালনা করবেন। এভাবে এজেন্ট ব্যাংকিং পরিপূর্ণ শাখা প্রতিষ্ঠা করা কষ্টকর এমন স্থানে একটি বিকল্প ব্যবস্থা করে দেয়, যা সুবিধাজনক ও স্বল্প ব্যায়ে ব্যাংকিং সেবা প্রদানের সুযোগ তৈরি করে।

এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা প্রদানের ব্যবস্থা ও একে নিরাপদ করতে এজেন্ট ব্যাংকিং সফটওয়্যার (এবিএস) ব্যবহার করতে হবে। এর মাধ্যমে অনলাইনে সরাসরি লেনদেন সম্পন্ন করা যাবে। দুই স্তরের নিরাপত্তা (টুএফএ) ব্যবস্থায় লেনদেনগুলোর নিরাপত্তা প্রদান করা হয়। এই ব্যবস্থায় লেনদেন বা লেনদেনের অনুরোধ বৈধ করতে একটি বায়েমেট্রিক যন্ত্রে গ্রাহক ও এজেন্ট উভয়ের আঙুলের ছাপ নিতে হয়। লেনদেন সম্পন্ন হলে গ্রাহককে একটি প্রিন্ট করা রিসিট ও মোবাইলে ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়ে জানানো হয়।

প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রথাগত শাখা ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে ব্যাংকিং সেবা প্রদান করা বেশ দুরূহ। কিন্তু এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় এসব অঞ্চলে বসবাসকারী ব্যাংকিং সুবিধাবঞ্চিতদের সেবা প্রদান করা সম্ভব। আর তাই ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড তার এজেন্ট ব্যাংকিং নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ করছে। ব্র্যাক ব্যাংক আনুষ্ঠানিক ও আর্থিক বিষয়ে স্বল্প শিক্ষিত মানুষের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যে এর সেবাপ্রাপ্তি নিশ্চিত করতে চায়।

ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং সেবাসমূহ
এজেন্ট ব্যাংকিং এর অধীনে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড নিম্নলিখিত সেবা সরবরাহ করে থাকে-
সঞ্চয়ী ও চলতি হিসাব খােলা;
মাসিক সঞ্চয় ও মেয়াদী সঞ্চয় প্রকল্প হিসাব খােলা;
নগদ অর্থ জমা ও উত্তোলন;
অর্থ স্থানান্তর (ব্র্যাক ব্যাংক-এর যে কোনাে হিসাব);
ইএফটিএন এর মাধ্যমে অর্থ স্থানান্তর (যে কোনাে ব্যাংকের হিসাব);
আরটিজিএস এর মাধ্যমে অর্থ স্থানান্তর (অল্প সময়ে যে কোনাে ব্যাংকের হিসাব);
বৈদেশিক রেমিটেন্স এর অর্থ প্রদান (পিন এর মাধ্যমে);
বৈদেশিক রেমিটেন্স সরাসরি গ্রাহক হিসাব প্রদান;
ইউটিলিটি বিল গ্রহন;
সরকারি ভাতা প্রদান;
ক্ষুদ্র, মাঝারি ও কৃষি ঋণ প্রদান;
ভােক্তা ঋণ প্রদান;
ঋণের কিস্তি গ্রহন;
ডেবিট কার্ড ও চেক বই প্রসেসিং;
ইন্টারনেট ব্যাংকিং;
ইনস্যুরেন্স পলিসির প্রিমিয়াম গ্রহন;
স্কুল ব্যাংকিং (স্কুল ফি গ্রহন সহ অন্যান্য সুবিধা);
মােবাইল রিচার্জ।

ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং হিসাব খোলার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড এর এজেন্ট ব্যাংকিং এর অধীনে হিসাব খোলার জন্য নিম্নলিখিত কাগজপত্র প্রয়োজন-
গ্রাহক ও নমিনির জাতীয় পরিচয়পত্র/ পাসপোর্ট/ ড্রাইভিং লাইসেন্স;
গ্রাহকের বর্তমান ঠিকানার প্রমাণ হিসেবে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র (বিদ্যুৎ/ টেলিফোন বিলের কপি);
অ-ব্যক্তিক হিসাবের জন্য ট্রেড লাইসেন্স/ টিআইএন সার্টিফিকেট/ ভ্যাট সার্টিফিকেট, ইত্যাদি;
যৌথ হিসাব/ কোম্পানি/ প্রতিষ্ঠান/ সমিতি/ সংঘ হিসাবের জন্য প্রযোজ্য কাগজপত্র।

ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এ গ্রাহকের জন্য লক্ষ্যণীয় বিষয়
নিম্নে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এ গ্রাহকের জন্য লক্ষ্যণীয় বিষয়গুলো তুলে ধরা হলো-
অর্থ উত্তোলনের সময় গ্রাহক আঙ্গুলের ছাপ দ্বারা প্রতিটি লেনদেন নিশ্চিত করবেন।
লেনদেনের তথ্য তাৎক্ষণিক মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে পাওয়া যাবে।
প্রতিটি লেনদেনের তথ্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছাপানো রশিদের মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়।
এজেন্ট কেন্দ্রের বাইরে এজেন্টের সাথে কোনো ব্যাংকিং লেনদেন করা যাবে না।
গ্রাহক তার লেনদেন নিশ্চিত হওয়ার পর এজেন্ট কেন্দ্র ত্যাগ করবেন।

ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এর লেনদেন সীমা
নিম্নে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এর লেনদেন সীমা তুলে ধরা হলো (দৈনিক লেনদেনের সংখ্যা এবং পরিমাণের সীমা লাখে)-

ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এর চার্জ ও ফি
নিম্নে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এর চার্জ ও ফি তুলে ধরা হলো (লেনদেনের ধরণ ও গ্রাহকের চার্জ)-

নগদ জমা:
নিজস্ব এজেন্ট আউটলেট একাউন্টে: ফ্রি
অন্যান্য এজেন্ট আউটলেট একাউন্টে: ০.২৫% (কমপক্ষে ১০ টাকা, সর্বোচ্চ ১০০ টাকা)
এজেন্ট আউটলেট হতে শাখার একাউন্টে: ০.২৫% (কমপক্ষে ১০ টাকা, সর্বোচ্চ ১০০ টাকা)
শাখা হতে এজেন্ট আউটলেট একাউন্টে: ফ্রি।

নগদ উত্তোলন:
নিজস্ব এজেন্ট আউটলেট একাউন্ট হতে: ফ্রি
অন্যান্য এজেন্ট আউটলেট একাউন্ট হতে: ০.২৫% (কমপক্ষে ১০ টাকা, সর্বোচ্চ ১০০ টাকা)
শাখা হতে: ফ্রি
নিজস্ব এটিএম হতে: ফ্রি
এনপিএসবি/ ভিসা/ মাস্টার কার্ড এটিএম হতে: ১৫ টাকা।

অর্থ স্থানান্তর:
নিজস্ব এজেন্ট আউটলেট একাউন্টে: ফ্রি
অন্যান্য এজেন্ট আউটলেট/ শাখার একাউন্টে: ০.২৫% (কমপক্ষে ১০ টাকা, সর্বোচ্চ ১০০ টাকা)
বিএফটিএন/ এনপিএসবি-এর মাধ্যমে: ০.২৫% (কমপক্ষে ১০ টাকা, সর্বোচ্চ ১০০ টাকা)
আরটিজিএস-এর মাধ্যমে: ১৫০ টাকা
এফএসি, বিকাশ, রকেট ও অন্যান্য ওয়ালেটে: ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত চার্জ অনুযায়ী।

ইউটিলিটি বিল:
ইউটিলিটি বিল গ্রহণ:
– ০ টাকা থেকে ৬০০ টাকা পর্যন্ত: ৫ টাকা
– ৬০১ টাকা থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত: ১০ টাকা
– ১,২০১ টাকার উপর যে কোন পরিমাণ: ১২ টাকা।

বৈদেশিক রেমিটেন্স:
পিন-এর মাধ্যমে: ফ্রি
একাউন্টে: ফ্রি।

এটিএম কার্ড ফি:
বাৎসরিক: ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত চার্জ অনুযায়ী
এটিএম কার্ড/ পিন প্রতিস্থাপন: ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত চার্জ অনুযায়ী
ক্রেডিট কার্ডের বিল গ্রহণ: ফ্রি।

চেক বই ফি:
চেক বই ইস্যু: প্রতি পাতা ২০ টাকা
ক্লিয়ারিং চেক গ্রহণ: ৫০ টাকা।

একাউন্ট মেইনটেনেন্স চার্জ:
সঞ্চয়ী হিসাব-
– ৫,০০০ টাকা পর্যন্ত: ফ্রি
– ৫,০০১ থেকে ২৫,০০০ টাকা পর্যন্ত: ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত চার্জ অনুযায়ী
– ২৫,০০১ এর অতিরিক্ত: ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত চার্জ অনুযায়ী
চলতি হিসাব-
– ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত চার্জ অনুযায়ী।

১. গ্রাহক নির্ধারিত ফি ছাড়া অতিরিক্ত ফি প্রদান করবে না।
২. উপরােক্ত চার্জ সমূহ যে কোন সময়ে পরিবর্তন হতে পারে।
৩. ঋণ প্রক্রিয়া ফি, এজেন্ট রিলেশনশীপ ফি গ্রাহকের উপর ধার্য করা হবে।
৪. ডেবিট কার্ডের বাৎসরিক চার্জ বিভিন্ন সময় বিশেষ সুবিধা/ ছাড়ের ভিত্তিতে হ্রাস করা যেতে পারে।
৫. হিসাবের মুনাফার হার অনুমােদিত হার অনুযায়ী ধার্য করা হবে।
৬. এজেন্ট ব্যাংকিং গ্রাহকের জন্য প্রাথমিক জমার জন্য কোন নির্ধারিত পরিমাণ নেই।
৭. হিসাবের মুনাফা তালিকাভুক্ত ব্যাংকে শর্তানুসারে নির্ধারণ করা হবে।
৮. সরকারী প্রকল্প এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ কর্মসূচী অনুযায়ী দারিদ্র্য বিমােচনে মুনাফা যে কোন একাউন্টে নির্ধারণ করা হবে এবং তা পরিশােধ করা হবে।
৯. অন্যান্য চার্জের জন্য ব্র্যাক ব্যাংকের ওয়েব সাইট www.bracbank.com -এ দেখুন।

এজেন্ট হওয়ার জন্য যোগ্যতা
নিম্নে এজেন্ট ব্যাংকিং এর এজেন্ট হওয়ার যোগ্যতা সমূহ তুলে ধরা হলো-
ট্রেড লাইসেন্সসহ কোনো ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান থাকতে হবে;
বাংলাদেশের ক্ষুদ্রঋণ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (এমআরএ) নিয়ন্ত্রিত ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান;
সমাজ সেবা অধিদপ্তরে নিবন্ধিত এনজিও;
সমিতি নিবন্ধন আইন- ১৮৬০ অনুযায়ী নিবন্ধিত সমিতি;
সমবায় সমিতি আইন- ২০০১ অনুযায়ী নিবন্ধিত ও নিয়ন্ত্রিত/পরিচালিত সমবায় সমিতি;
সরকারি প্রতিষ্ঠানের শাখা/ ইউনিট অফিস;
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধিত কুরিয়ার ও মেইলিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান;
কোম্পানি আইন- ১৯৯৪ অনুযায়ী নিবন্ধিত কোম্পানি;
মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরের এজেন্ট;
ইনস্যুরেন্স কোম্পানির এজেন্ট;
স্থানীয় সরকারের প্রতিষ্ঠান।

ব্র্যাক ব্যাংকের এজেন্ট হওয়ার যোগ্যতা
নিম্নে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এর এজেন্ট হওয়ার যোগ্যতা সমূহ তুলে ধরা হলো-
ট্রেড লাইসেন্স থাকা নিবন্ধিত বাংলাদেশি জাতীয়তা/ জাতীয়তা সূত্রের ব্যক্তি/ প্রতিষ্ঠান।
প্রস্তাবিত এজেন্টের কোনো ব্যবসা করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে (ন্যূনতম ১ বছর)।
আর্থিক সেবার নিয়ম ও নীতিগুলো বোঝার জন্য প্রস্তাবিত এজেন্টের ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা হতে হবে এসএসসি বা সমমান।
আবেদনকারীর বয়স ১৮ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।
এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের আউটলেটের জন্য এজেন্টকে এক বা একাধিক সম্ভাব্য স্থানের প্রস্তাব করতে হবে।
আবেদনকারীকে প্রস্তাবিত এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা হতে হবে (অগ্রাধিকারযোগ্য)।
ওই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে আর্থিকভাবে সচ্ছল হতে হবে।
আবেদনকারীর নিজস্ব বা ভাড়া ব্যবসায়িক স্থান থাকতে হবে।
প্রস্তাবিত এজেন্ট কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণ খেলাপি বা দেউলিয়া ঘোষিত হতে পারবে না এবং দেওয়ানি বা ফৌজদারি আদালত থেকে দণ্ডিত হতে পারবে না।
কোনো ধ্বংসাত্মক কার্যকলাপে জড়িত থাকতে পারবে না।
অন্য ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের নিবন্ধন থাকতে পারবে না।
প্রস্তাবিত এজেন্টের প্রযুক্তি ভিত্তিক আর্থিক সেবা প্রদানের জ্ঞান ও সক্ষমতা থাকতে হবে।
প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও প্রতিশ্রুতি পূরণের সক্ষমতা থাকতে হবে।
এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটে নগদ লেনদেন ব্যবস্থাপনার সক্ষমতা থাকতে হবে।
ব্যাংক-কোম্পানি আইন-১৯৯১ এর ২৬গ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, ব্যাংকের সঙ্গে সম্পৃক্ত কোনো ব্যক্তিকে এজেন্ট হিসেবে নিয়োগ দেওয়া যাবে না।
ব্র্যাক ব্যাংকের কোনো কর্মকর্তা তাঁর অবসরগ্রহণ বা পদত্যাগের ১ (এক) বছরের মধ্যে এজেন্ট হওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন না।

এজেন্ট ব্যাংকিং অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া
নিম্নে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং এ এজেন্ট হওয়ার প্রক্রিয়া সমূহ তুলে ধরা হলো-

১ম ধাপ:
এজেন্ট এক বা একাধিক বাজার বা এলাকা এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের জন্য প্রস্তাব করবেন (প্রস্তাবিত স্থানে কোনো ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড থাকলে তাঁকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে)।
এজেন্ট এক বা একাধিক এসএমই ইউনিট অফিস বা স্বতন্ত্র অবস্থানের প্রস্তাব দিতে পারেন।

২য় ধাপ:
এজেন্ট ব্যাংকিং টিম এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ব্যবসায়িক সম্ভাবনা বোঝার জন্য প্রস্তাবিত স্থানের সম্ভাব্যতা যাচাই বা সমীক্ষা প্রতিবেদন সংগ্রহ করবে।
বিনিয়োগ ও প্রয়োজনীয় নথিপত্রের বিষয়ে আরও আলোচনার জন্য এজেন্টের সঙ্গে যোগাযোগ করবে।

৩য় ধাপ:
ব্যাংকের চাহিদা অনুযায়ী এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের আউটলেটের জন্য এজেন্ট জায়গার ব্যবস্থা করবে।
– নিজস্ব/ ভাড়া।
– নিচ তলা বা প্রথম তলা।
– পাকা ভবন।
– জায়গার পরিমাণ ১৫০- ৮০০ বর্গফুট (ধরন এ: ৮০০ বর্গফুট, বি: ৩০০ বর্গফুট এবং সি: ১৫০ বর্গফুট)।
– টয়লেটের ব্যবস্থা থাকতে হবে।
এজেন্টকে দুজন ব্যক্তি নিয়োগ দিতে হবে (একজন পুরুষ ও একজন নারী অগ্রাধিকারযোগ্য)। এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট চালানোর জন্য ব্যাংক এজেন্টের নিয়োগকৃতদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে।

৪র্থ ধাপ:
এজেন্টের নিয়োগপত্র প্রদান।
এজেন্ট ও এজেন্টের কর্মচারীদের (এজেন্ট মাঠ কর্মী) জন্য বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা।

৫ম ধাপ:
আউটলেট প্রস্তুত করা (ব্র্যান্ডিং, আসবাবপত্র ও যন্ত্রপাতি)।
কার্যক্রম শুরু।

এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট আবেদন প্রক্রিয়া
ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের তালিকা দেখতে ক্লিক করুন এখানে
ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং মার্চেন্ট হিসেবে আবেদন করতে ক্লিক করুন এখানে

বিস্তারিত জানতে
❏ ব্যাংকের যেকোন শাখায়/ এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট/ উপশাখায় যোগাযোগ করুন।
❏ অথবা যোগাযোগ করুন- ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, অনিক টাওয়ার, ২২০/বি, তেজগাঁও গুলশান সংযোগ সড়ক, তেজগাঁও, ঢাকা ১২০৮।
❏ ✆ কল সেন্টারঃ ১৬২২১ (দেশ)/ +৮৮০ ২ ৫৫৬৬৮০৫৫-৬ (বিদেশ) এ কল করুন।
❏ ✆ টেলিফোনঃ ৮৮০১৩০১-৩২, ৮৮০১৩১১, ৮৮০১৩২১, +৮৮০ ৯৬১১২২৩৩৪৪
❏ ফ্যাক্সঃ +৮৮০-২-৯৮৬ ০৩৯৫
❏ সুইফটঃ BRAKBDDH
❏ ইমেইলঃ enquiry@bracbank.com
❏ ওয়েবসাইটঃ www.bracbank.com

সাধারণ জিজ্ঞাসা (FAQ)
নিম্নে ব্র্যাক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা/ প্রশ্ন (FAQ) সমূহ তুলে ধরা হলো-

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিং কী?
উত্তর: বৈধ এজেন্সি চুক্তির অধীনে এজেন্ট নিযুক্ত করার মাধ্যমে ব্যাংকিং সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠির জন্য সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং ও আর্থিক সেবা প্রদানই হলো এজেন্ট ব্যাংকিং। বাংলাদেশ ব্যাংকের সাম্প্রতিক নির্দেশিকা অনুযায়ী এটি নিয়ন্ত্রিত হয়।

প্রশ্ন: শাখা ব্যাংকিং ও এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মধ্যে পার্থক্য কী?
উত্তর: সেবার ক্ষেত্রে কোনো পার্থক্য নেই। অবশ্য ধরনের দিন থেকে পার্থক্য হলো, শাখার মালিক ব্যাংক নিজে, কিন্তু এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের মালিক তৃতীয় পক্ষ।

প্রশ্ন: কারা ব্র্যাক ব্যাংকের এজেন্ট হতে পারে?
উত্তর: ট্রেড লাইসেন্স ও বৈধ ব্যবসা আছে এমন যেকোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান।

প্রশ্ন: এজেন্টের পরিচয় কী?
উত্তর: অনুমোদনের পর ব্যাংক এজেন্টের নিয়োগপত্র প্রদান করবে এবং একই সঙ্গে কার্যক্রম শুরুর আগে এজেন্ট বা এজেন্টদের ব্যবসার ভিত্তিতে নিবন্ধন প্রদান করবে।

প্রশ্ন: এজেন্ট হওয়ার জন্য পূর্ববর্তী কোনো ব্যবসায়িক অভিজ্ঞতার কি প্রয়োজন আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। কমপক্ষে এক বছর ব্যবসার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

প্রশ্ন: কী ধরনের ব্যবসার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে?
উত্তর: ট্রেড লাইসেন্স থাকা যেকোনো ব্যবসা।

প্রশ্ন: কোনো শিক্ষাগত যোগ্যতার কি প্রয়োজন আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। আগ্রহী এজেন্টের ন্যূনতম এসএসসি বা সমমানের শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকতে হবে।

প্রশ্ন: কোনো বয়সসীমা কি আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। আগ্রহী এজেন্টের বয়স ১৮ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।

প্রশ্ন: আগ্রহী এজেন্টের প্রথম ধাপ কী হবে?
উত্তর: এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের জন্য এজেন্টকে এক বা একাধিক স্থান প্রস্তাব করতে হবে।

প্রশ্ন: একজন এজেন্ট কি একাধিক এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের প্রস্তাব করতে পারবে?
উত্তর: হ্যাঁ। একজন এজেন্ট একাধিক আউটলেটের প্রস্তাব করতে পারবে। তবে, প্রস্তাবিত স্থান বা এর কাছাকাছি আগ্রহী এজেন্টের কোনো ব্যবসা থাকতে হবে।

প্রশ্ন: স্থানীয় বাসিন্দা হওয়ার কি প্রয়োজন আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। আগ্রহী এজেন্টদের প্রস্তাবিত স্থান বা এর কাছাকাছি এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা হতে হবে (অগ্রাধিকারযোগ্য)।

প্রশ্ন: একজন এজেন্টের কি আর্থিকভাবে সচ্ছল হওয়ার প্রয়োজন আছে?
উত্তর: আগ্রহী এজেন্টদের অবশ্যই আর্থিকভাবে সচ্ছল হতে হবে।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের আউটলেট স্থাপনের স্থানের প্রস্তাব কি এজেন্ট করবে?
উত্তর: হ্যাঁ। আগ্রহী এজেন্টের নিজস্ব/ ভাড়া স্থানের প্রস্তাব করতে হবে এবং স্থানটি অবশ্যই প্রথম বা দ্বিতীয় তলায় হতে হবে।

প্রশ্ন: এজেন্ট হওয়ার ক্ষেত্রে কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের রেকর্ডের ওপর কি কিছু নির্ভর করবে?
উত্তর: প্রস্তাবিত এজেন্ট কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণ খেলাপি বা দেউলিয়া ঘোষিত হতে পারবে না এবং দেওয়ানি বা ফৌজদারি আদালত থেকে দণ্ডিত হতে পারবে না।

প্রশ্ন: ইতিমধ্যেই অন্য ব্যাংকের এজেন্ট হওয়া ব্যক্তি কি এজেন্ট হতে পারবেন?
উত্তর: না। কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান একই সময়ে একাধিক ব্যাংকের এজেন্ট হতে পারবে না।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের স্থানের ভাড়া ও অগ্রিম (যদি থাকে) কে বহন করবে?
উত্তর: মাসিক ভাড়া ও অন্যান্য অগ্রিম প্রদানের জন্য এজেন্টই একমাত্র দায়বদ্ধ থাকবে।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিং লাইসেন্সের জন্য কোনো কিছু কি বন্ধক (মর্টগেজ) রাখতে হবে?
উত্তর: না। কেনো বন্ধকের প্রয়োজন নেই।

প্রশ্ন: এজেন্ট হতে গেলে কী কোনো প্রতিষ্ঠাকালীন ব্যয় আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট প্রতিষ্ঠায় স্থানের পরিমাণের ওপর ভিত্তি করে একজন এজেন্টকে ১০০,০০০ থেকে ৩০০,০০০ টাকা বিনিয়োগ করতে হতে পারে। এই অর্থ প্রয়োজনীয় ব্র্যান্ডিং, আসবাবপত্র ও যন্ত্রপাতির জন্য ব্যয় হবে।

প্রশ্ন: প্রতিষ্ঠাকালীন ব্যয়ের পর আর কোনো বিনিয়োগের কি প্রয়োজন আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। দৈনিক লেনদেন সম্পন্ন করার জন্য এজেন্টকে তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ১০ থেকে ২০ লাখ টাকা নিশ্চিত করতে হবে।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ব্যবসা চালানোয় আর কোনো মাসিক ব্যয় কি আছে? এই ব্যয় কে বহন করবে?
উত্তর: হ্যাঁ। স্টেশনারি, বিনোদন ও পরিবহনের মতো কিছু মাসিক ব্যয় আছে। এসব ব্যয় এজেন্টকে বহন করতে হবে। তবে, অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের ফরম, লেনদেন স্লিপ, ক্যাশ রেজিস্টার ও উপস্থিতি রেজিস্টার ব্যাংক থেকে সরবরাহ করা হবে।

প্রশ্ন: ব্যাংকের শাখার গ্রাহক ও এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের গ্রাহকের মধ্যে পার্থক্য কী?
উত্তর: মূলত কোনো পার্থক্য নেই। সব অ্যাকাউন্টই ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রাহকদের জন্য ব্র্যাক ব্যাংকের শাখায় কি কোনো বিধিনিষেধ আছে?
উত্তর: না। কোনো বিধিনিষেধ নেই। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রাহকরা ব্র্যাক ব্যাংকের যেকোনো শাখায় যেকোনো ধরনের লেনদেন করতে পারেন।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রাহকরা এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট থেকে কীভাবে অর্থ উত্তোলন বা লেনদেন সম্পন্ন করবেন?
উত্তর: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রাহকরা বায়োমেট্রিক বা আঙুলের ছাপ দিয়ে অর্থ উত্তোলন বা লেনদেন সম্পন্ন করতে পারবেন।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের জন্য কি কোনো ব্যাংকিং সময়সীমা আছে?
উত্তর: ব্যাংকের নিয়মিত সময়সীমা হলো সকাল ১০ থেকে সন্ধ্যা ৬ টা। তবে এজেন্ট চাইলে এই সময়ের বাইরেও ব্যাংকিং সেবা দিতে পারবেন। সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টাই লেনদেনের সক্ষমতা আমাদের ব্যবস্থায় আছে।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটে ব্যাংক আকাউন্ট পরিচালনায় কি বাড়তি খরচ হবে?
উত্তর: না। কোনো বাড়তি খরচ নেই।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রাহকরা কি ইন্টারনেট ব্যাংকিয়ের সেবা পাবেন?
উত্তর: হ্যাঁ। গ্রাহকরা অ্যাকাউন্ট খুলতে পারলে, সহজেই ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ের সেবাও পাবেন।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের গ্রাহকরা কীভাবে অ্যাকাউন্ট ব্যালান্স দেখবেন?
উত্তর: গ্রাহকরা মোবাইল বার্তা/ ইন্টারনেট ব্যাংকিং/ এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট ব্যালান্স দেখতে পারবেন।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের কী কোনো ব্রাঞ্চ কোড আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ব্রাঞ্চ কোড হলো ৮৮৮৮।

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের কী কোনো রাউটিং নম্বর আছে?
উত্তর: হ্যাঁ। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের রাউটিং নম্বর হলো ০৬০২৭০৬০৯

প্রশ্ন: এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রাহকরা কি ডেবিট কার্ড ও চেক বইয়ের জন্য আবেদন করতে পারবেন?
উত্তর: হ্যাঁ। এজেন্ট ব্যাংকের গ্রাহকরা ডেবিট কার্ড ও চেক বইয়ের জন্য কল সেন্টার বা এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

Leave a Reply



লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যকে দেখার সুযোগ করে দিন:

এই বিভাগের অন্যান্য লেখা





ইমেইল সাবস্ক্রাইব করুন

আমাদের নতুন নতুন পোষ্ট গুলো ই-মেইল এর মাধ্যমে পেতে রেজিষ্ট্রেশন করুন।




আর্কাইভ



বিভাগ সমূহ