ওয়েবভিত্তিক সিস্টেমে সঞ্চয়পত্র কেনার সুবিধা

0
6492

কালো টাকা এবং অতিরিক্ত বিনিয়োগ বন্ধ করতে সঞ্চয়পত্র বিক্রির কার্যক্রম পরীক্ষামূলকভাবে অটোমেশন (অনলাইন) পদ্ধতিতে শুরু করেছে জাতীয় সঞ্চয়পত্র অধিদফতর। প্রাথমিকভাবে ফেব্রুয়ারি থেকে এ অটোমেশন পদ্ধতি চালু হয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল শাখায়, সোনালী ব্যাংকের মতিঝিল শাখায়, জাতীয় সঞ্চয়পত্র অধিদফতরের ব্যুরো অফিস (গুলিস্তান) এবং বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের প্রধান কার্যালয়।

আগামী ১ জুলাই থেকে দেশব্যাপী এটি শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে। অর্থবিভাগে বাস্তবায়নাধীন ‘সরকারি ব্যয়-ববস্থাপনা শক্তিশালীকরণ: অগ্রাধিকার কার্যক্রমসমূহের ধারাবাহিকতা রক্ষা’ শীর্ষক কর্মসূচি জাতীয় সঞ্চয়স্কিম ব্যবস্থাপনা অটোমেশনের জন্য একটি ওয়েবভিত্তিক সিস্টেম প্রণয়ন করেছে।

‘ন্যাশনাল সেভিং সার্টিফিকেটস অনলাইন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ নামে সঞ্চয়পত্রের অনলাইন ডাটাবেজ তৈরির কাজ এগিয়ে চলছে। অর্থমন্ত্রণালয়ের অর্থবিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন সরকারি ব্যয় ব্যবস্থাপনা শক্তিশালীকরণ কর্মসূচির উদ্যোগে জাতীয় সঞ্চয়স্কিমের ওয়েবভিত্তিক সিস্টেমের পাইলটিং কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন হয় ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বাংলাদেশ ব্যাংক, মতিঝিল অফিস, ঢাকায়। নিম্নে সঞ্চয়পত্রের মুনাফার অর্থ Electronic Fund Transfer (EFT)-এর মাধ্যমে গ্রাহকের ব্যাংক হিসাবে জমাকরণের সুবিধা সমূহ তুলে ধরা হলো-
• ম্যানুয়াল সঞ্চয়পত্র স্ক্রিপ ইস্যু হবে না।
• প্রচলিত নিয়মে গ্রাহক কর্তৃক ব্যাংকে স্বশরীরে এসে সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও আসল টাকা উত্তোলনে অপচয় হয় মূল্যবান সময় ও শ্রম, নিরাপত্তা ঝুঁকির সম্ভাবনাও থাকে; EFT প্রক্রিয়ায় গ্রাহককে সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের জন্য একবার ব্যাংকে আসতে হলেও মেয়াদপূর্তি পর্যন্ত প্রাপ্য অর্থ গ্রহণে আসার আর প্রয়ােজন হবে না- সকল প্রাপ্য অর্থ গ্রাহকের ব্যাংক হিসাবে নির্দিষ্ট নিয়মে জমা হবে। পাশ্ববর্তী এটিএম বুথ থেকে সে অর্থ উত্তোলন করা যাবে।
• মেয়াদপূর্তিতে মাসিক, ত্রৈমাসিক ও অন্যান্য মেয়াদী সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও মুল অর্থ ব্যাংক হিসাবে জমাকরণের পাশাপাশি এ সংক্রান্ত ক্ষুদ্র মােবাইল বার্তা (SMS) ও ই-মেইল গ্রাহককে প্রেরণ করা হয়।
• সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের ক্ষেত্রেও গ্রাহক পাবেন ক্ষুদ্র মােবাইল বার্তা (SMS) ও ই-মেইল।
• এই স্বয়ংক্রিয় লেনদেন প্রক্রিয়ার ফলে সঞ্চয়পত্র গ্রাহক নয় বরং বাংলাদেশ ব্যাংক সংরক্ষণ করছে বিধায় সেগুলো হারানো/ধ্বংস/বিনষ্ট হবার সম্ভবনা নেই।

সঞ্চয়পত্র সেবার আধুনিকায়ন ও স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা চালুর মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারের “রূপকল্প ২০২১” এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ ‘গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক-এর পক্ষ হতে সকল প্রকার সহযােগিতা প্রদানে এর কর্মকর্তা/কর্মচারীগণ সদা সচেষ্ট।

সোর্সঃ বাংলাদেশ ব্যাংক

Leave a Reply