ক‌রোনায় ব‌্যাংক শাট ডাউন বিষ‌য়ে ক‌য়েক‌টি কথা

0

ক‌রোনায় ব‌্যাংক শাট ডাউন বিষ‌য়ে ক‌য়েক‌টি কথা। গত ক‌দিন যাবৎ দেখ‌ছি ব‌্যাংক শাট ডাউন করার জন‌্য অ‌নেক ব‌্যাংকার দাবী কর‌ছেন। নি‌জে‌র প্রাণের মায়া সবারই আছে, ব্যাংকার‌দেরও আছে। কিন্তু আসল বাস্তবতাটা কি আমরা কখ‌নো উপল‌দ্ধি ক‌রে‌ছি বা করার চেষ্টা ক‌রে‌ছি?

বস্তুত একটা দে‌শে যখন শাট ডাউন ব‌লি লকড ডাউন ব‌লি যাই হোক না কেন, তারপ‌রেও যে ক‌টি এ‌জে‌ন্সি বা প্র‌তিষ্ঠান‌কে কার্যকর থাক‌তে হয় বা রাখ‌তে সেগু‌লো হলো ফুড সাপ্লাই এ‌জে‌ন্সি, মেডিক‌্যাল এ‌জে‌ন্সি, নিরাপত্তা এবং শৃঙ্খলার রক্ষার দা‌য়ি‌ত্বে থাকা বা‌হিনীগু‌লো। আর দে‌শের আর্থিক প্রবাহ ঠিক রাখার জন‌্য অবশ‌্যই আর্থিক প্র‌তিষ্ঠান বা ফাইনা‌ন্সিয়াল মা‌র্কেট তথা ব‌্যাংকগু‌লো।

অন‌্য দশটা প্র‌তিষ্ঠানের সা‌থে উপ‌রের প্র‌তিষ্ঠানগু‌লোর জন‌্য যেমন চ‌রিত্রগত মিল নেই তেম‌নি ব‌্যাংকগু‌লোর নেই। য‌দিও ব‌্যাং‌কের জন‌্য কোন স্বীকৃ‌তি নেই। কিন্তু দে‌শের ইমা‌র্জেন্সি‌তে ব‌্যাং‌কের ভু‌মিকা সব‌চে‌য়ে বে‌শি প্র‌য়োজনীয়। কারন ইমা‌র্জেন্সি‌তে মানু‌ষের স্বাভা‌বিক অবস্থার চে‌য়ে টাকা বে‌শি দরকারী হ‌য়ে প‌ড়ে।

বাস্তবতা হ‌লো, বাংলা‌দে‌শের ৭০% এর বে‌শি মানুষ ই‌লেক্ট্র‌নিক্স মা‌নি সু‌বিধার আওতায় নেই। আবার ই‌লেক্ট্রনিক্স মা‌নি প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ বা চালু রাখ‌তে হ‌বে ব‌্যাংক‌কেই। এটা দে‌শের প্র‌তি দে‌শের মানু‌ষের প্র‌তি ব‌্যাংক এবং ব‌্যাংক পেশার দায়বদ্ধতা।

আমরা ব‌্যাং‌কের কর্মীরা শাট ডাউন নয় বরং পর্যাপ্ত নিরাপত্তা এবং ঝু‌কি কমানোর জন‌্য প্র‌য়োজনীয় ব‌্যবস্থা গ্রহ‌ণের দাবী কর‌তে পারি। কিন্তু পু‌রো ব‌্যাং‌কিং সি‌স্টেম শাট ডাউ‌নের নয়।

কর্মী বাই রো‌টেশন ব‌্যবহার, যে সমস্ত বিভাগ বা সেবা বন্ধ রাখ‌লে আর্থিক প্রবা‌হে অসু‌বিধা সৃ‌ষ্টি কর‌বে না সে সব বিভাগ বন্ধ রাখার দাবী কর‌তে পা‌রি।

এ‌ দে‌শের সাধারণ মানু‌ষের ম‌ধ্যে ব‌্যাংক সম্প‌র্কে ধারণা, ব‌্যাং‌কিং লিটা‌রে‌সি নেই। কিন্তু একজন ব‌্যাংকা‌রেরও য‌দি সেই জ্ঞান না থা‌কে তার‌চে‌য়ে দুঃখজনক কিছু হ‌তে পা‌রে না। একটা বিষয় মাথায় রাখ‌তে হ‌বে যে, মানব জীবনের সকল কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রিত হয় অ‌র্থের দ্বারা এবং সেই অ‌র্থের নিয়ন্ত্রক ধারক এবং বাহক হ‌লো ব‌্যাংক।

সুতরাং মো‌ড়ের সেলু‌নের দোকান বন্ধ ক‌রে দেয়া আর ব‌্যাংকের শাখা বন্ধ ক‌রে দেয়া একই কথা না। ব‌্যাংকার‌দের এই ব‌্যাংক ব‌ন্ধের দাবী‌কে আমার কা‌ছে সত‌্যকে জে‌নে বু‌ঝেও অস্বীকার করার মত ম‌নে হয়।

আমার জানা ম‌তে, সারা পৃ‌থিবী‌তে যতগু‌লো দেশ এখন পর্যন্ত লকড ডাউ‌নে গে‌ছে সেসব দে‌শেও কিন্তু ব‌্যাংকসহ উপ‌রোক্ত এ‌জে‌ন্সিগু‌লোর মত এজে‌ন্সি খোলা আছে এবং তারা সেবার ম‌নোভাব নি‌য়েই কাজ ক‌রে যা‌চ্ছে। সমস্ত পৃ‌থিবী‌তেই ব‌্যাংকের চরিত্র একই। সুতরাং একজন ব‌্যাংকার হিসা‌বে সব‌চে‌য়ে ক্র‌শিয়াল মুহু‌র্তেও কাজ করার মান‌সিকতা রাখা অত‌্যন্ত জরুরী।

কা‌জেই আমরা ব‌্যাং‌কের শাট ডাউন দাবী না ক‌রে ব‌্যাংকারদের সুরক্ষার জন‌্য আওয়াজ তোলাটা সম্ভবত বে‌শি গুরুত্ব বহন কর‌বে।

য‌দিও আমার বক্তব‌্য বে‌শিরভাগ ব‌্যাংকা‌রের কা‌ছেই তিক্ত লাগ‌বে। কিন্তু বাস্তবতা একটু তিক্তই হয়। আমা‌দের ব‌্যাংকার‌দের ব‌্যর্থতা হ‌লো আমরা কখ‌নোই আমাদের সা‌র্ভিসের গুরুত্বটা ডাক্তার পু‌লিশ‌দের মত ক‌রে হাইলাইট কর‌তে পা‌রি না।

কার্টেসিঃ মার্শাল রাসেল

Leave a Reply