করের টাকা যাচ্ছে রাষ্ট্রমালিকানাধীন ব্যাংকে

0
217

মানুষের করের টাকা রাষ্ট্রমালিকানাধীন ব্যাংকগুলোকে দিয়ে দিচ্ছে সরকার। সাধারণ মানুষের ওপর করের বোঝা বাড়িয়ে বাড়তি রাজস্ব আদায় করে সরকার। আর এর একটি অংশ সরকারই দিয়ে দিচ্ছে সরকারি ব্যাংকগুলোকে।

একের পর এক আর্থিক কেলেঙ্কারি ও ক্রমবর্ধমান খেলাপি ঋণের কারণে বড় ধরনের মূলধন ঘাটতিতে আছে সরকারি ব্যাংকগুলো। এসব ব্যাংক টিকিয়ে রাখতে হচ্ছে এখন বাজেট বরাদ্দ দিয়ে। প্রতিবছরের বাজেটেই ব্যাংকগুলোকে টাকা দেওয়ার জন্য আলাদা বরাদ্দ রাখেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের যে বাজেট তাতেও ব্যাংকগুলোকে দেওয়ার জন্য রাখা হচ্ছে ২ হাজার কোটি টাকা।

বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) এ নিয়ে একটি গবেষণা করেছে। সিপিডি বলেছে, ২০০৮-০৯ থেকে ২০১৫-১৬ পর্যন্ত (২০১৬-১৭ অর্থবছর বাদে) আট বছরের ক্রমবর্ধমান রাজস্ব আয় থেকে সরকার গড়ে ১০ দশমিক ৮ শতাংশ অর্থ দিয়ে দিচ্ছে রাষ্ট্রমালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর মূলধন জোগানে।

সিপিডি অঙ্ক করে দেখিয়েছে, ৮ বছরের মোট রাজস্ব আয় ৮ লাখ ৬৮ হাজার ৪৪৯ কোটি টাকা এবং মোট ক্রমবর্ধমান (এক বছর থেকে আরেক বছরে যত টাকা বেশি) রাজস্ব আয় ১ লাখ ৮ হাজার ৬২৫ কোটি টাকা। এই ৮ বছরের মধ্যে ৭ বছরই পুনর্মূলধনের নামে ব্যাংকগুলোকে দেওয়া হয়েছে ১১ হাজার ৭০৫ কোটি টাকা, যা ক্রমবর্ধমান রাজস্ব আয়ের ১০ দশমিক ৮ শতাংশ। অর্থাৎ রাজস্ব আয়ের ভালো একটা অংশ চলে যাচ্ছে ব্যাংকগুলোর জন্য।

সিপিডি বলছে, সম্পদ ঘাটতির বাংলাদেশে রাষ্ট্রমালিকানাধীন ব্যাংকগুলোকে যেভাবে টাকা দেওয়া হচ্ছে, তা দিতে না হলে শিক্ষা, স্বাস্থ্য তথা সামাজিক খাতে টাকাগুলো খরচ করা যেত। এতে দেশও অনেক বেশি উপকৃত হতো।

সূত্র : প্রথম আলো।

Leave a Reply